kalerkantho


অ্যাপিকটায় ১৫ অ্যাওয়ার্ড পেল বাংলাদেশ

নিজম্ব প্রতিবেদক   

১১ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



অ্যাপিকটায় ১৫ অ্যাওয়ার্ড পেল বাংলাদেশ

গতকাল বিজয়ীদের পুরস্কার তুলে দেন অর্থমন্ত্রী। ছবি : কালের কণ্ঠ

এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের তথ্য-প্রযুক্তি খাতের মর্যাদাপূর্ণ পুরস্কার এশিয়া প্যাসিফিক আইসিটি অ্যালায়েন্সে (অ্যাপিকটা) বাংলাদেশ মেরিটে ১৪ এবং একটি উইনার পুরস্কার পেয়েছে। গতকাল বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ১৭তম অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডের সমাপনী অনুষ্ঠানে ১৭ ক্যাটাগরিতে মেরিট পুরস্কার হিসেবে ৪৭ প্রকল্পকে সম্মানিত করা হয়। বাংলাদেশ ছাড়াও হংকং উইনার হিসেবে চারটি, মেরিটে পাঁচটি; শ্রীলঙ্কা তিনটি উইনার, ছয়টি মেরিট; থাইল্যান্ড ও চীন দুই বিভাগে দুটি করে; মালয়েশিয়া উইনার এক এবং মেরিটে আটটি পুরস্কার পেয়েছে। অস্ট্রেলিয়া উইনার এক এবং মেরিটে তিনটি, চায়নিজ তাইপে ও সিঙ্গাপুর দুই বিভাগেই একটি করে দুটি, পাকিস্তান উইনারে একটি, ইন্দোনেশিয়া মেরিটে পাঁচটি এবং ব্রুনাই ও ভিয়েতনাম মেরিটে একটি করে পুরস্কার জিতেছে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এ ছাড়া বিশেষ অতিথি ছিলেন তথ্য-প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহেমদ পলক। অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন বেসিস সভাপতি মোস্তাফা জব্বার এবং বেসিসের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি ও ১৭তম অ্যাপিকটার আহ্বায়ক রাসেল টি আহমেদ। অনুষ্ঠানে জানানো হয়, এবার অংশগ্রহণকারী ১৬টি দেশের প্রতিযোগীরা ১৭ ক্যাটাগরিতে ১৪১টি প্রকল্প জমা দেন। এর মধ্যে বাংলাদেশ থেকে ৪৭টি প্রকল্পে ১৬৬ জন প্রতিযোগী অংশ নেন। আর বিদেশি প্রতিযোগীর সংখ্যা ছিল ৩৬৬ জন। এর মধ্য থেকেই বাংলাদেশ ১৫টি পুরস্কার পায়।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, বাংলাদেশ আইসিটি খাতে সমগ্র বিশ্বে উদীয়মান শক্তি হিসেবে এগিয়ে যাচ্ছে। অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডস আয়োজনের মাধ্যমে সদস্য দেশগুলোর সঙ্গে আইসিটি খাতে বাণিজ্যের সম্ভাবনা উজ্জ্বল হয়েছে।

তথ্য-প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘তথ্য-প্রযুক্তিখাতে মাত্র ২৬ মিলিয়ন ডলার থেকে আমরা ৮০০ মিলিয়ন ডলারেরও বেশি আয় করতে সক্ষম হয়েছি। ২০১৮ সালে এক বিলিয়ন ডলার এবং ২০২১ সাল নাগাদ পাঁচ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি আয় করতে চাই।’



মন্তব্য