kalerkantho


ডিএসইর বাজার মূলধনে রেকর্ড

ব্যাংক খাতের আধিপত্য চলছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



আর্থিক হিসাব বছর শেষে লভ্যাংশ ঘোষণার সময় ঘনিয়ে আসায় পুঁজিবাজারে ব্যাংক খাতের আধিপত্য চলছেই। কয়েক দিন ধরেই লেনদেনের শীর্ষে রয়েছে ব্যাংক।

একই সঙ্গে এই খাতের শেয়ারে বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ বেশি থাকায় দামও বাড়ছে। গত বছরের ডিসেম্বর পর্যন্ত সময় শেষ হলেও লভ্যাংশ ঘোষণার দিন-তারিখ ঘনিয়ে আসছে। এ মাসের মধ্যেই ব্যাংকগুলো শেয়ার গ্রাহকদের জন্য লভ্যাংশ ঘোষণা করবে। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস গতকাল বৃহস্পতিবার মোট লেনদেনের ২৮.৯৯ শতাংশ এই খাতের।

এদিকে ডিএসইর মূলধন বৃদ্ধি অতীতের রেকর্ড ছাড়িয়েছে। বৃহস্পতিবার ডিএসইর মূলধন সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছেছে। এর আগের ২০১০ সালে বাজার ঊর্ধ্বমুখিতার সময় ও ধস নামার আগে সর্বোচ্চ পর্যায়ে ছিল বাজার মূলধন। তবে চলতি বছরের জানুয়ারিতে আবারও ঊর্ধ্বমুখী বাজারে ওই রেকর্ড ভেঙে শীর্ষে উঠেছিল মূলধন। গতকাল আবারও অতীতের রেকর্ড ভেঙে শীর্ষে উঠেছে বাজার মূলধন।

দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেন হয়েছে এক হাজার ১৯ কোটি টাকা। যার মধ্যে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৯৬৪ কোটি ছয় লাখ টাকা আর সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৫৫ কোটি ৫০ লাখ টাকা। এই লেনদেনের ২৮.৯৯ শতাংশ বা ২৭৮ কোটি টাকা ব্যাংক খাতে। আগের দিনের চেয়ে এই খাতের লেনদেন কিছুটা কমেছে। আর দুই বাজারেই আগের দিনের চেয়ে মোট লেনদেন কমেছে।

বৃহস্পতিবার ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩২৭ কম্পানির ৩০ কোটি ১৮ লাখ ৩৯ হাজার ৩৭৭টি শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডে ইউনিট। অপর শেয়ারবাজার সিএসইতে ৫৫ কোটি ৫০ লাখ টাকা। আর সূচক বেড়েছে ৪২ পয়েন্ট। ডিএসইর বাজার মূলধনে রেকর্ড: বৃহস্পতিবার ডিএসইর বাজার মূলধন অতীতের রেকর্ড ছাড়িয়েছে। প্রধান সূচকও রেকর্ডের দ্বারপ্রান্তে। আর ৭ পয়েন্ট হলেই রেকর্ড ভেঙে যাবে। সূচক চালুর পর সর্বশেষ চলতি বছরের ২৪ জানুয়ারি সূচক রেকর্ড ভাঙে। এর আগে ২০১০ সালে সর্বোচ্চ অবস্থানে উঠেছিল সূচক।


মন্তব্য