kalerkantho


৫৫ শতাংশই নারী কর্মী

হবিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কে ১৮ হাজার কর্মসংস্থান

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৪ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



হবিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কে ১৮ হাজার কর্মসংস্থান

সভায় প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের পরিচালক (বিপণন) কামরুজ্জামান কামাল, সাংবাদিক মনজুরুল আহসান বুলবুলসহ অন্য অতিথিরা

তিন বছর আগে প্রতিষ্ঠার পর এ পর্যন্ত হবিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কে গত ১৮ হাজার লোকের কর্মসংস্থান হয়েছে। বর্তমানে কারখানায় ৩৭টি প্রডাকশন লাইনের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের পণ্য উত্পাদন করা হচ্ছে। আগামী বছর নাগাদ আরো ৮ থেকে ১০টি প্রডাকশন লাইন কারখানায় যুক্ত হবে। এতে অতিরিক্ত আরো প্রায় পাঁচ থেকে সাত হাজার কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে। ফলে আগামী বছর এ কারখানার কর্মীসংখ্যা ২৫ হাজার হতে পারে।

গতকাল সোমবার দুপুরে হবিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কে স্থানীয় সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের পরিচালক (বিপণন) কামরুজ্জামান কামাল এসব কথা দেন।

তিনি আরো জানান, ২০১৪ সালে কারখানাটিতে উত্পাদন শুরু হয়। এরপর থেকে নতুন নতুন প্রডাকশন লাইন যুক্ত হতে থাকে এবং কারখানার কর্মীসংখ্যাও বাড়তে থাকে। কারখানায় কর্মরত লোকবলের ৮০ শতাংশই স্থানীয়। এ ছাড়া কর্মীদের মধ্যে ৫৫ শতাংশ নারী কাজ করছে। কারখানাটি স্থাপনের ফলে এ অঞ্চলের আর্থসামাজিক অবস্থার ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে বলেও তিনি জানান।

হবিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কের জেনারেল ম্যানেজার এইচ এম মঞ্জুরুল হক জানান, কর্মসংস্থানের পাশাপাশি শায়েস্তাগঞ্জ এলাকায় উন্নত শিক্ষার সুযোগ সম্প্রসারণে কাজ করছে কম্পানিটি। আধুনিক সুযোগ-সুবিধাসহ কারখানাসংলগ্ন একটি স্কুল স্থাপন করা হয়েছে। বর্তমানে এই স্কুলে প্রায় ৬০০ শিক্ষার্থী পড়াশোনা করছে। এ ছাড়া বেশ কিছু স্কুলে মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের বৃত্তি প্রদানসহ বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। এই এলাকার লোকজনের যাতায়াতের সুবিধার জন্য বেশ কিছু রাস্তাঘাট নির্মাণ, পয়োনিষ্কাশনের ব্যবস্থাসহ বিভিন্ন কার্যক্রম চলছে, যা ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান।

তিনি আরো জানান, হবিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কে তিনটি উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন ইটিপি প্লান্ট রয়েছে। এগুলোতে প্রতিদিন ৫৪ লাখ লিটার পানি পরিশোধন করতে পারে।

সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি ও একুশে টেলিভিশনের সিইও মনজুরুল আহসান বুলবুল। তিনি তাঁর সাংবাদিকতার জীবনের বিভিন্ন অভিজ্ঞতা তুলে ধরে স্থানীয় সাংবাদিকদের অনুপ্রেরণা জোগান।

তিনি বলেন, ‘সাংবাদিকতা অজ্ঞ লোকের পেশা নয় বরং এটি শিক্ষিত লোকের পেশা। আগামী দিনে সাংবাদিকতায় সফল হতে হলে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতায় মনোযোগ দিতে হবে। ’ অন্যদের মধ্যে হবিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কের জিএম আরএফএল-অ্যাডমিন ফজলে রাব্বি, সিনিয়র ম্যানেজার প্রাণ-অ্যাডমিন এহসানুল হাবিব উপস্থিত ছিলেন।


মন্তব্য