kalerkantho


বাড়তি কর আগ্রহ কমাচ্ছে ক্রেতাদের

ভারতে সোনা বিক্রি বাড়াতে ছাড়

বাণিজ্য ডেস্ক   

১৩ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



ভারতে সোনা আমদানিতে বাড়তি কর আরোপ করায় বেড়েছে দাম, এতে চাহিদা কমেছে সোনার। এ অবস্থায় বাজার চাঙ্গা করতে ছাড়ের ঘোষণা দিয়েছে বিক্রেতারা।

এতে আবারও বাজারে সোনা বেচাকেনা বাড়তে শুরু করেছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, বিক্রেতারা প্রতি আউন্স সোনা ক্রয়ে এক ডলার ছাড় দিচ্ছে। এ ছাড়া বিশেষ অফার তো আছেই। ফলে সাত সপ্তাহের মধ্যে প্রথম চলতি সপ্তাহে বাজার কিছুটা সরগরম হয়েছে।

ভারতে প্রতি ১০ গ্রাম সোনা বিক্রি হয় প্রায় ২৯ হাজার ৪০০ রুপিতে। যদিও ডিসেম্বরে সোনার দাম ছিল ২৬ হাজার ৮৬২ রুপি।

মুম্বাইভিত্তিক একজন ব্যবসায়ী বলেন, ‘সোনার দাম কিছুটা বেড়ে যাওয়ায় বাজার গতি হারাচ্ছে। চাহিদা বাড়াতে এ মুহূর্তে দাম আউন্সপ্রতি ২৮ হাজার ৫০০ রুপির নিচে আনতে হবে। তবে আমরা এ মুহূর্তে ছাড় দিয়ে বাজার কিছুটা চাঙ্গা করার চেষ্টা করছি।

চেন্নাইয়ের পাইকারি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান এমএনসি বালিওনের পরিচালক প্রকাশ রাথোড় বলেন, তিন সপ্তাহ ধরে সোনার চাহিদা কমেছে। খুচরা ক্রেতারা দাম কমার অপেক্ষায় আছে, এমনকি অলংকার ক্রয়েও থেমে আছে। গত জানুয়ারিতে ভারতের সোনা আমদানি কমেছে ৩০ শতাংশ। বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহৎ সোনার বাজার ভারত।

এদিকে ভারতে নতুন বাজেটে সব পণ্যের ক্ষেত্রেই দুই লাখ রুপির বেশি নগদে কেনাকাটায় ১ শতাংশ হারে উেস কর আরোপের প্রস্তাব করা হয়েছে। দেশটির আয়কর বিভাগ বলছে, স্বর্ণালংকার কেনার ক্ষেত্রে আলাদা কোনো ব্যবস্থা না থাকায়, এ পণ্যও ওই করের আওতায় আসবে। অর্থাৎ নতুন নিয়ম অনুযায়ী, দুই লাখ রুপির সোনা কিনলে বাড়তি কর গুনতে হবে।

১ এপ্রিল থেকে চালু হবে নতুন কর প্রস্তাব। এ জন্য আয়কর আইনের ২০৬ সি ধারা সংশোধনের প্রস্তাবও আনা হয়েছে বাজেটে। বর্তমানে পাঁচ লাখ রুপির বেশি স্বর্ণালংকার নগদে কিনলে এই কর দিতে হয়। তবে কাঁচা সোনা ক্রয়ের ক্ষেত্রে এই নিয়ম ২০১২ সালের এপ্রিল থেকেই ছিল। দুই লাখ রুপির বেশি মূল্যের কাঁচা সোনা কেনায় ১ শতাংশ উেস কর দিতে হয়। রয়টার্স, বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড।


মন্তব্য