kalerkantho


তিন বছরে প্রথম মাসিক বাণিজ্য ঘাটতি

আমদানি ৩৮ শতাংশ বেড়েছে চীনের

বাণিজ্য ডেস্ক   

১০ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



বিশ্বের সবচেয়ে বড় রপ্তানিকারক দেশ চীনের আমদানি হঠাৎ করেই বেড়ে গেছে। দেশটির কাস্টমস প্রশাসন জানায়, গত ফেব্রুয়ারি মাসে আমদানি এক বছর আগের একই সময়ের তুলনায় বেড়েছে ৩৮.১ শতাংশ, যা ২০১২ সালের ফেব্রুয়ারির পর থেকে সর্বোচ্চ।

তবে একই সময়ে রপ্তানি অপ্রত্যাশিতভাবে কমেছে ১.৩ শতাংশ। এর ফলে ওই মাসে দেশটির বাণিজ্য ঘাটতি বেড়ে হয়েছে ৯.১৫ বিলিয়ন ডলার।

গতকাল বুধবার এ তথ্য প্রকাশ করে বলা হয়, পণ্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি ও অভ্যন্তরীণ বাজারে ভোক্তা চাহিদা বাড়ায় আশা করা হচ্ছে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহৎ অর্থনৈতিক দেশটি আবারও জোরালো প্রবৃদ্ধিতে ফিরছে। এর ফলে চীনের নীতিনির্ধারকরা অর্থনীতিতে যে কাঠামোগত সংস্কার করছেন তা অব্যাহত রাখতেও আত্মবিশ্বাস পাবেন।

এ নিয়ে ক্যাপিটাল ইকোনমিকসের জুলিয়ান ইভান্স প্রিচার্ড বলেন, ‘আমাদের মনে হচ্ছে, বিশ্ববাজারে পণ্যমূল্য বৃদ্ধির একটি প্রভাব এটি। তবে সেই সঙ্গে অভ্যন্তরীণ চাহিদাও যে বাড়ছে এটি তারই প্রমাণ। এতে অর্থনৈতিক সংস্কারে চীনের নীতিনির্ধারকরা অত্মবিশ্বাস পাবেন। ’ এদিকে ফেব্রুয়ারিতে বাণিজ্য ঘাটতি হলেও আশা করা হচ্ছে পুরো বছরের হিসাবে বাণিজ্যিক উদ্বৃত্ত আসবে ৩.৪ ট্রিলিয়ন ইউয়ান।

মূলত ক্ষমতায় আসার পর থেকেই চীনের বিরুদ্ধে এক ধরনের বাণিজ্যযুদ্ধে জড়িয়ে পড়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

তিনি অভিযোগ করে আসছেন চীন অনৈতিক বাণিজ্য সুবিধা নিচ্ছে, এমনকি মুদ্রা ম্যানিপুলেশন করেও বিশ্ব বাণিজ্য লাভবান হচ্ছে। তিনি যুক্তরাষ্ট্রে চীনের পণ্য আমদানিতে অতিরিক্ত শুল্ক আরোপের হুমকিও দেন। অনেকে মনে করেন, চীনের বাণিজ্য চিত্র ডোনাল্ড ট্রাম্পের বাণিজ্য সুরক্ষা নীতিরও একটি প্রভাব। রয়টার্স।


মন্তব্য