kalerkantho


অর্থবছরের প্রথম সাত মাস

বাণিজ্য ঘাটতি বেড়েছে ৩৬ শতাংশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১০ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



বাণিজ্য ঘাটতি বেড়েছে ৩৬ শতাংশ

বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ার পরিপ্রেক্ষিতে আমদানি খরচ বেড়ে যাওয়ায় দেশের পণ্য বাণিজ্য ঘাটতি বাড়ছে। চলতি ২০১৬-১৭ অর্থবছরের প্রথম সাত মাসে (জুলাই-জানুয়ারি) পণ্য বাণিজ্যে সামগ্রিক ঘাটতির পরিমাণ দাঁঁড়িয়েছে ৫২৮ কোটি ২০ লাখ ডলার। এই অঙ্ক গত বছরের একই সময়ের ঘাটতির চেয়ে প্রায় ১৪০ কোটি ডলার বা ৩৬ শতাংশ বেশি।

বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক লেনদেন ভারসাম্যের হালনাগাদ করা তথ্য থেকে দেখা যায়, চলতি অর্থবছরের জুলাই-জানুয়ারি সময়ে সব মিলিয়ে বাংলাদেশ দুই হাজার ৪৯০ কোটি ডলারের পণ্য আমদানি করেছে, যা গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে প্রায় ১০ শতাংশ বেশি।

অন্যদিকে এই সময়ে বিভিন্ন পণ্য রপ্তানি থেকে বাংলাদেশ এক হাজার ৯৬১ কোটি ৮০ লাখ ডলার আয় করেছে, যা গত বছরের একই সময়ের চেয়ে ৪.৪২ শতাংশ বেশি। এ হিসাবে অর্থবছরের প্রথম সাত মাসে সামগ্রিক পণ্য বাণিজ্যে ঘাটতি দাঁড়াচ্ছে ৫২৮ কোটি ২০ লাখ ডলার।

গত ২০১৫-১৬ অর্থবছরের জুলাই-জানুয়ারি সময়ে পণ্য বাণিজ্যে ঘাটতি ছিল ৩৮৭ কোটি ৮০ লাখ ডলার। ওই অর্থবছরের পুরো সময়ে ঘাটতির পরিমাণ ছিল ৬২৭ কোটি ৪০ লাখ ডলার। এর আগে ২০১৪-১৫ অর্থবছরে ঘাটতি ছিল ৬৯৬ কোটি ৫০ লাখ ডলার।

২০১২ সালে বিশ্ববাজারে প্রতি ব্যারেল (প্রায় ১৫৯ লিটার) জ্বালানি তেলের দাম ছিল ১০৫ থেকে ১১৫ ডলার। দফায় দফায় কমে একপর্যায়ে ২০১৬ সালে তা ৩০ ডলারে নেমে আসে।

চলতি সপ্তাহে এ মূল্য ৫৫ থেকে ৫৮ ডলারে ওঠানামা করছে।

প্রাপ্ত তথ্যে দেখা যায়, ২০১৬-১৭ অর্থবছরের জুলাই-ডিসেম্বর সময়ে জ্বালানি তেল আমদানিতে বাংলাদেশের ব্যয় বেড়েছে ১০ শতাংশের মতো। এ ছাড়া খাদ্যপণ্য আমদানিতে খরচ বেড়েছে ২০ শতাংশের বেশি। মূলধনী যন্ত্রপাতি আমদানিতে ব্যয় বেড়েছে ৩ শতাংশ।

বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (বিআইডিএস) গবেষক জায়েদ বখত বলেন, ‘অনেক দিন ধরে জ্বালানি তেলের দাম কম ছিল। সেই সময় এ খাতে বাংলাদেশের খরচ কম হয়েছে। খাদ্যপণ্যের দামও কম ছিল। অন্যদিকে রপ্তানি আয় বাড়ছিল। স্বাভাবিকভাবেই বাণিজ্য ঘাটতি সহনীয় পর্যায়ে ছিল। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে জ্বালানি তেলের দাম বাড়তে বাড়তে প্রায় ৬০ ডলারে উঠেছে। পদ্মা সেতু, মেট্রো রেলসহ বড় প্রকল্পের কাজ শুরু হওয়ায় প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম আমদানি বেড়ে গেছে। এসব কারণেই বাণিজ্য ঘাটতি বেড়েছে। ’

অর্থবছরের সাত মাসে সেবা খাতের বাণিজ্য ঘাটতিও বেড়েছে। গত অর্থবছরের জুলাই-জানুয়ারি সময়ে সেবা বাণিজ্যে ঘাটতির পরিমাণ ছিল ১৫৪ কোটি ৬০ লাখ ডলার। চলতি অর্থবছরের একই সময়ে তা বেড়ে ১৯৫ কোটি ৩০ লাখ ডলারে দাঁড়িয়েছে। মূলত বীমা, ভ্রমণ, বিদেশে উচ্চশিক্ষা ও চিকিৎসা প্রভৃতি খাতের আয়-ব্যয় হিসাব করে সেবা খাতের বাণিজ্য পরিমাপ করা হয়।

বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাবে চলতি অর্থবছরের জুলাই-জানুয়ারি সময়ে দেশে মোট ১৭১ কোটি ডলারের সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগ (এফডিআই) এসেছে, যা গত বছরের একই সময়ের চেয়ে ৭.০৮ শতাংশ বেশি। এর মধ্যে নিট এফডিআই এসেছে ৯৭ কোটি ৫০ লাখ ডলার। গত বছরের জুলাই-জানুয়ারি সময়ে নিট এফডিআই ছিল ৮৯ কোটি ৮০ লাখ ডলার। এ হিসাবে এই সাত মাসে নিট এফডিআই প্রবাহ বেড়েছে ৮.৫৭ শতাংশ।


মন্তব্য