kalerkantho


ব্যবসার মালিকানায় এগিয়ে বাংলাদেশের নারীরা

বাণিজ্য ডেস্ক   

৮ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



ব্যবসার মালিকানায় এগিয়ে বাংলাদেশের নারীরা

একজন নারী উদ্যোক্তাকে আর্থিক সহায়তা প্রদান বা ব্যবসায়িক সুযোগ দেওয়ার ক্ষেত্রে বিশ্বের অনেক দেশের তুলনায় পিছিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ। তবে এ দেশের নারীরা তাদের সংগ্রাম ও প্রচেষ্টার মধ্য দিয়ে ব্যবসায়িক মালিকানায় যথেষ্ট এগিয়েছে।

আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে ‘মাস্টারকার্ড ইনডেক্স অব উইমেন এন্টারপ্রেনারস (এমআইডাব্লিউই) ২০১৭’ প্রকাশ করে আর্থিকসেবা প্রতিষ্ঠান মাস্টারকার্ড। বিশ্বের ৫৪টি দেশের ওপর পরিচালিত এ জরিপে উঠে এসেছে এসব তথ্য।

প্রতিবেদনে বলা হয়, সামাজিক বাধার পাশাপাশি বাংলাদেশের নারীরা পুরুষের চেয়ে অর্ধেক সুযোগ পায় উদ্যোক্তা হওয়ার ক্ষেত্রে। কারণ পুরুষরা যে ব্যাংকিং সুবিধা পেয়ে থাকে তা নারীরা নিতে পারে না। এ ছাড়া নারীদের জন্য আর্থিক প্রগ্রাম কম, এসএমই প্রশিক্ষণ এবং উন্নয়ন প্রগ্রামও কম। নারীরা প্রয়োজন ছাড়া ব্যবসায় আসে না। কারণ এ ক্ষেত্রে সমাজ থেকে তারা খুব কমই সহযোগিতা বা উত্সাহ পেয়ে থাকে।

ফলে ব্যবসায় নারীদের আর্থিক সহযোগিতা ও ব্যবসা করার সুযোগের দিক থেকে বিশ্বের ৫৪টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশ পিছিয়ে রয়েছে। বিশেষ করে জ্ঞানগত সহায়তা, আর্থিক সুবিধা এবং উদ্যোক্তা হওয়ার জন্য সহায়ক পরিবেশ কম।

তবে ৫৪টি দেশের মধ্যে ব্যবসায়িক মালিকানার দিক থেকে বাংলাদেশের নারীরা অনেক দেশের চেয়ে এগিয়ে। এতে শীর্ষদশ দেশের মধ্যে ৩১.৬ শতাংশ পয়েন্ট নিয়ে বাংলাদেশ ষষ্ঠ। এ তালিকায় ৩৪.৮ শতাংশ পয়েন্ট নিয়ে প্রথম উগান্ডা, দ্বিতীয় বোতসোয়ানা, তৃতীয় নিউজিল্যান্ড, চতুর্থ রাশিয়া, পঞ্চম অস্ট্রেলিয়া, সপ্তম ভিয়েতনাম, অষ্টম চীন, নবম স্পেন এবং দশম আমেরিকা।

মাস্টারকার্ডের সূচকে ব্যবসায় নারীদের আর্থিক সহযোগিতা ও ব্যবসা করার সুযোগের দিক থেকে শীর্ষ ১০টি দেশ হচ্ছে প্রথম নিউজিল্যান্ড, দেশটির প্রাপ্ত পয়েন্ট ৭৪.৪। দ্বিতীয় কানাডা, দেশটির প্রাপ্ত পয়েন্ট ৭২.৪। তৃতীয় আমেরিকা, প্রাপ্ত পয়েন্ট ৬৯.৯। চতুর্থ সুইডেন, প্রাপ্ত পয়েন্ট ৫৯.৬ ও পঞ্চম সিঙ্গাপুর, দেশটি পেয়েছে ৬৯.৫ পয়েন্ট। শীর্ষদশে থাকা বাকি দেশগুলো হচ্ছে যথাক্রমে বেলজিয়াম, অস্ট্রেলিয়া, ফিলিপাইন, যুক্তরাষ্ট্র এবং থাইল্যান্ড।

জরিপ প্রতিবেদনে বলা হয়, আর্থিক সহায়তা এবং ব্যবসার সহজলভ্যতা নারীদের ব্যবসায় এগিয়ে দেয়। আর দুটি বাধা নারীদের ব্যবসা থেকে দূরে রাখে। বাধা দুটি হচ্ছে সাংস্কৃতিক গোঁড়ামি ও সুযোগের অভাব।

তালিকা অনুযায়ী নারীদের ব্যবসার পথের সবচেয়ে বড় সমস্যাগুলো হচ্ছে আর্থিক সহায়তার অভাব, নিয়ন্ত্রক বিধিনিষেধ ও প্রাতিষ্ঠানিক অকার্যকারিতা, আত্মবিশ্বাস ও উদ্যোক্তা প্রবণতার অভাব, ব্যর্থতার ভীতি, সামাজিক-সাংস্কৃতিক বিধিনিষেধ এবং শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের অভাব। তালিকার ৫৪টি অর্থনৈতিক দেশে এই কারণগুলোর কমপক্ষে একটি বা অধিক কারণ নারীদের ব্যবসায় অগ্রগতির বাধা হয়ে দাঁড়িয়ে আছে।

এ সূচক তৈরিতে ১২টি নির্দেশক ও ২৫টি উপনির্দেশক ব্যবহার করা হয়েছে। এতে বিশ্বের ৭৮.৬ শতাংশ নারী উঠে এসেছে। এ ছাড়া ব্যবসার মালিকানায় নারী এ সূচক তৈরি করা হয়েছে তিনটি কম্পোনেন্ট, ১২টি নির্দেশক ও ২৫টি উপনির্দেশক দিয়ে।


মন্তব্য