kalerkantho


এসডিজির চ্যালেঞ্জ নতুন ব্যবসা সম্ভাবনা জাগাচ্ছে

বাণিজ্য ডেস্ক   

২ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



শক্তিশালী অর্থনৈতিক ভিত্তি, এক হাজার ৪৬৬ ইউএস ডলার মাথাপিছু আয়ের ফলে বাংলাদেশ ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হওয়ার পথে রয়েছে। এসডিজি বাস্তবায়নে চ্যালেঞ্জগুলো ব্যবসায়ে নতুন নতুন খাত তৈরির সম্ভাবনা জাগিয়েছে। ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (ডিসিসিআই) সভাপতি আবুল কাসেম খান এ কথা বলেন।   

ডিসিসিআই আয়োজিত ‘এসডিজি থেকে বেসরকারি খাতের ব্যবসায়িক সম্ভাবনার কৌশল নির্ধারণ’ বিষয়ে গতকাল ঢাকা চেম্বারের অডিটরিয়ামে এক অনুষ্ঠানে আবুল কাসেম খান এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজিবিষয়ক প্রধান সমন্বয়কারী আবুল কালাম আজাদ সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন। পাওয়ার অ্যান্ড পার্টিসিপেশন রিসার্চ সেন্টার পিপিআরসির নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. হোসেন জিল্লুর রহমান এবং পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য ড. শামসুল আলম বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

ডিসিসিআই সভাপতি জানান, এসডিজির ১৭টি লক্ষ্যমাত্রার মধ্যে ৭, ৮, ৯, ১২, ১৪ এবং ১৭ নম্বর লক্ষ্যগুলো সরাসরিভাবে ব্যবসা-বাণিজ্য এবং বিনিয়োগের সঙ্গে সম্পৃক্ত, যা বেসরকারি খাতের জন্য আশাব্যঞ্জক। নির্ধারিত সময়ে এসডিজির লক্ষ্য অর্জনে বর্তমানে বিদ্যমান সরাসরি বৈদেশিক বিনিয়োগের (এফডিআই) পরিমাণ এবং ট্যাক্স ও জিডিপির অনুপাত বাড়াতে হবে। তিনি সীমান্তবর্তী দেশগুলোর সঙ্গে বাণিজ্য বৃদ্ধি, আঞ্চলিক ব্যবসায়িক কার্যক্রম বৃদ্ধি এবং পিপিপির কার্যক্রম বাড়ানোর ওপর গুরুত্বারোপ করেন।      

ড. হোসেন জিল্লুর রহমান বলেন, ‘বিগত কয়েক দশকে আমরা সারা বিশ্বে বৈষম্য এবং অর্থনৈতিক অরাজকতা লক্ষ করছি। ’ তিনি সত্যিকার অর্থে দারিদ্র্য বিমোচনে বর্তমানে ব্যবহৃত উন্নয়নের মডেলগুলো সংস্কারের পরামর্শ দেন।


মন্তব্য