kalerkantho


চট্টগ্রাম বন্দর থেকে পণ্য সরবরাহ শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



পরিবহন ধর্মঘটের কারণে চট্টগ্রাম বন্দর থেকে পণ্য পরিবহন সরবরাহ সাড়ে সাত ঘণ্টা বন্ধ ছিল। গতকাল বুধবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত বন্দরে পণ্যবাহী ট্রাক-কাভার্ড ভ্যান আসা-যাওয়া সম্পূর্ণ বন্ধ ছিল।

এতে বিপুল পণ্য আটকা পড়ে জেটির ভেতর। ট্রাক সংকটের কারণে বন্দরের ভেতর খোলা জাহাজ থেকে পণ্য নামানো ব্যাঘাত ঘটলেও পণ্যবাহী কনটেইনার নামানো পুরোদমে সচল ছিল।

জানতে চাইলে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের পরিচালক (পরিবহন) গোলাম সারোয়ার কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘জেটির ভেতর পণ্য ওঠানামা সচল থাকলেও ট্রাক-কাভার্ড ভ্যান সংকটে সরবরাহে ব্যাঘাত ঘটে। পরে বিকেল থেকে পণ্য ওঠানামা পুরোদমে সচল হয়। আশা করছি রাতের মধ্যেই আটকা পড়া পণ্য সরবরাহ দেওয়া সম্ভব হবে। ’

জানা গেছে, চট্টগ্রাম বন্দর থেকে প্রতিদিন সাড়ে তিন হাজার একক পণ্যবাহী কনটেইনার সরবরাহ করা হয়। এগুলো বিভিন্ন কারখানা, আমদানিকারকের গুদাম ও দেশের বিভিন্ন স্থানে পরিবহন করা হয়। কিছু পণ্য জাহাজ থেকে ট্রাক ও লরিতে তুলে সরাসরি নেওয়া হয়। আবার কিছু পণ্য জাহাজ থেকে বন্দরের ইয়ার্ডে নামিয়ে সেখান থেকে কাভার্ড ভ্যানে ভর্তি করে সরবরাহ নেওয়া হয়।

দেশব্যাপী পণ্য পরিবহন ধর্মঘটের কারণে দুই ধরনের পণ্য বন্দর থেকে সরবরাহ নেওয়া যায়নি।

বন্দরের হিসাবে ২৮ ফেব্রুয়ারি ২৪ ঘণ্টায় তিন হাজার ৯৭০ একক কনটেইনার সরবরাহ নেওয়া হয়, আর ১ মার্চ তিন হাজার ৮৬৭ একক কনটেইনার সরবরাহ করা হয়। ধর্মঘটের প্রথম দিন বন্দরে কিছুটা প্রভাব পড়ায় সরবরাহ কিছুটা কমেছে। ১ মার্চ সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত ধর্মঘটের কারণে বন্দর থেকে পণ্য সরবরাহ পুরোপুরি বন্ধ ছিল। সেই হিসাব মিলবে ২ মার্চের প্রতিবেদনে।

বন্দর ব্যবহারকারীরা বলছে, ধর্মঘটের কারণে আট ঘণ্টায় এক হাজার ৩০০ একক কনটেইনার আটকা পড়েছে। এসব কনটেইনারে আমদানি-রপ্তানি পণ্যভর্তি ৫০০ কোটি টাকার পণ্য ছিল। নির্দিষ্ট সময়ে পণ্য নিতে পারায়  দুর্ভোগ-ভোগান্তিতে পড়ে এসব পণ্যের আমদানি-রপ্তানিকারকরা। জানতে চাইলে চট্টগ্রাম সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের বন্দর সম্পাদক লিয়াকত আলী হাওলাদার কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘প্রচুর পণ্য আটকে পড়ায় দুর্ভোগে পড়ে আমদানি-রপ্তানিকারকরা। এখন যে পরিমাণ পণ্য আটকা পড়েছে সেই পরিমাণ ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান, লরি মিললে ভোগান্তি থেকে রেহাই পাওয়া যাবে। ’


মন্তব্য