kalerkantho


১৬৪ রপ্তানিকারক পেলেন সিআইপি কার্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



১৬৪ রপ্তানিকারক পেলেন সিআইপি কার্ড

গতকাল বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের কাছ থেকে সিআইপি কার্ড গ্রহণ করেন বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান। ছবি : কালের কণ্ঠ

নিজেদের দেশে ট্রেড ইউনিয়ন না থাকলেও বাংলাদেশে ট্রেড ইউনিয়ন আছে কি না এ নিয়ে একটি দেশ প্রায়ই প্রশ্ন তোলে, যা মোটেই উচিত নয় বলে মন্তব্য করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। রপ্তানি বাণিজ্যে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় ১৬৪ রপ্তানিকারককে সিআইপি কার্ড বিতরণ-২০১৩ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

গতকাল সোমবার রাজধানীর র‌্যাডিসন ব্লু ওয়াটার গার্ডেনে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, চীন বিশ্বের সবচেয়ে বড় রপ্তানিকারক দেশ হলেও এ নিয়ে কারো কোনো মাথাব্যথা নেই। অথচ চীনের শিল্প খাতে অনেক বড় বড় দুর্ঘটনা ঘটে। আর বাংলাদেশে কোনো ঘটনা ঘটলেই সারা বিশ্বে হইচই পড়ে যায়।

বাংলাদেশে অর্থনৈতিক অগ্রগতির কথা তুলে ধরে বাণিজ্যমন্ত্রী আরো বলেন, ‘বাংলাদেশের অর্থনীতি ক্রমেই এগিয়ে যাচ্ছে। আমরা বিশ্বব্যাংকের অর্থ না নিয়ে পর্দা সেতু তৈরি করছি নিজেদের অর্থায়নে। এ ছাড়া সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এমডিজি) অর্জন করেছি। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রাও (এসডিজি) অর্জন করতে পারব। এ নিয়ে সপ্তম পঞ্চমবার্ষিকী পরিকল্পনা করা হয়েছে।

রপ্তানি আয় বাড়াতে তোফায়েল আহমেদ ব্যবসায়ীদের নতুন বাজার এবং পণ্য বহুমুখীকরণে জোর দেওয়ার পরামর্শ দেন। তিনি বলেন, ‘রপ্তানি আয় বাড়াতে সরকার কৃষি খাত, জাহাজ, হিমায়িত খাদ্য, চামড়াসহ বিভিন্ন পণ্যে নগদ সহায়তা দিচ্ছে। আমাদের প্রত্যাশা ২০২১ সালে তথ্য-প্রযুক্তি খাতে পাঁচ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি আয় সম্ভব হবে। এ ছাড়া চামড়াশিল্পে চলতি অর্থবছরে প্রবৃদ্ধি হয়েছে প্রায় ২৬ শতাংশ। এ খাতে ভালো রপ্তানি আয়ের প্রত্যাশা রয়েছে। ’  

গতকাল বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ ২০১৩ সালে ১৪ রপ্তানি পণ্যে অবদান রাখায় ১২৫ জন রপ্তানিকারক এবং পদাধিকারবলে ৩৯ জন ব্যবসায়ীসহ মোট ১৬৪ জনকে সিআইপি কার্ড হস্তান্তর করেন।

বিদেশে পণ্য রপ্তানি করে বাংলাদেশের অর্থনীতিতে বিশেষ অবদান রাখায় স্বীকৃতিস্বরূপ এ সিআইপি কার্ড দেয় ইপিবি। রপ্তাণি বাণিজ্যে সর্বাধিক সাফল্য, নতুন পণ্য রপ্তানি, নতুন বাজার সৃষ্টি, অপ্রচলিত পণ্যের রপ্তানি বৃদ্ধি—এসব বিবেচনায় নিয়ে এ সিআইপি কার্ড দেওয়া হয় ব্যবসায়ীদের।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে ছিলেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন, ইপিবির ভাইস চেয়ারম্যান মাফরূহা সুলতানা, ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমাদ প্রমুখ।


মন্তব্য