kalerkantho


রপ্তানি চাহিদা কমায় দাম কমেছে ভারতীয় চালের

বাণিজ্য ডেস্ক   

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



আন্তর্জাতিক বাজারে চাহিদা কমায় ভারতীয় চালের দাম কমেছে। যদিও বেড়েছে আরেক রপ্তানিকারক দেশ ভিয়েতনামের চালের দর। জানা যায়, সরবরাহ বেশি না থাকলেও ভিয়েতনাম থেকে বিভিন্ন দেশ আগের চুক্তিকৃত চাল নিতে থাকায় দাম বেড়েছে।

গত সপ্তাহে ভারতের ৫ শতাংশ ভাঙা চালের দাম টনপ্রতি কমেছে তিন ডলার। এতে প্রতি টন চাল বিক্রি হচ্ছে ৩৭৩ থেকে ৩৭৮ ডলার পর্যন্ত। বিশ্ববাজারে কয়েক সপ্তাহ ভারতীয় চালের ব্যাপক চাহিদা থাকলেও বর্তমানে তা অনেক কমে গেছে। অন্ধ্র প্রদেশের এক চাল রপ্তানিকারক বলেন, ‘গত কয়েক সপ্তাহে আফ্রিকার ক্রেতারা বিপুল পরিমাণ চাল নিয়েছিল; কিন্তু বর্তমানে তারা ক্রয় কমিয়ে দিয়েছে। মূলত এ কারণে থাইল্যান্ড ও ভিয়েতনামের তুলনায় গত এক মাসে আমাদের চালের দাম অনেক কমে গেছে। ’

বিশ্বের সবচেয়ে বড় চাল রপ্তানিকারক দেশ ভারত ২০১৬-১৭ মৌসুমে ১০৮ দশমিক ৮৬ মিলিয়ন টন চাল উৎপাদনের পূর্বাভাস দিয়েছে। অন্যদিকে জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা (এফএও) জানায়, ২০১৬ সালে ভারতের খাদ্যশস্য রপ্তানি ১০ শতাংশ কমে হয়েছে ১০.১ মিলিয়ন টন। ভারত মূলত আফ্রিকার দেশগুলোতে নন-বাসমতি চাল রপ্তানি করে এবং মধ্যপ্রাচ্যে প্রিমিয়ার বাসমতি চাল রপ্তানি করে।

বিশ্বের তৃতীয় বৃহৎ চাল রপ্তানিকারক দেশ ভিয়েতনাম। দেশটির ৫ শতাংশ ভাঙা চালের দর বেড়ে টনপ্রতি হয়েছে ৩৫০ থেকে ৩৫৫ ডলার। এক সপ্তাহ আগে এ চালের দাম ছিল ৩৪৫ থেকে ৩৫০ ডলার। দর বেড়েছে স্থানীয় পর্যায়েও। দেশটির ব্যবসায়ীরা বলছে, ফিলিপাইন থেকে চালের অর্ডার আসতে পারে এ সম্ভাবনায় দাম বেড়েছে, তবে মৌসুমি চাল আসতে শুরু করলে দাম কমে যাবে।

বর্তমানে থাইল্যান্ডের ৫ শতাংশ ভাঙা চাল বিক্রি হচ্ছে টনপ্রতি ৩৫০ থেকে ৩৫৫ ডলার। রয়টার্স।


মন্তব্য