kalerkantho


কুটির শিল্প মেলা শুরু

বিসিক ২৮ হাজার উদ্যোক্তাকে প্রশিক্ষণ দিয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশনের (বিসিক) নকশা কেন্দ্রের মাধ্যমে ব্লক, বাটিক প্রিন্টিং, পুতুল তৈরি, স্ক্রিন প্রিন্টিং, প্যাকেজিং, বাঁশ-বেতের কাজ, পাটজাত হস্তশিল্প, চামড়াজাতপণ্য, ধাতবশিল্প, বুননশিল্প ও ফ্যাশন ডিজাইন ইত্যাদি ১৩টি ট্রেডে এ পর্যন্ত ২৮ হাজার ৪১৫ জন উদ্যোক্তাকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। নকশা ও নমুনা উদ্ভাবন এবং বিতরণ করা হয়েছে যথাক্রমে ৩৩ হাজার ১২৪ এবং ৬৮ হাজার ৬০টি। এ পর্যন্ত মেলা ও প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়েছে ১৭৩টি। বিসিকের উদ্যোগে পাঁচ দিনব্যাপী বসন্তমেলায় প্রধান নকশাবিদ বশীর আহমেদ এসব কথা বলেন।

রাজধানীর মতিঝিলে বিসিক ভবন চত্বরে গতকাল প্রধান অতিথি হিসেবে এই মেলার উদ্বোধন করেন বিসিক চেয়ারম্যান মুশতাক হাসান মুহ. ইফতিখার। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিসিকের মহাব্যবস্থাপক (সম্প্রসারণ) আবদুল কাদির সরকার। মেলায় হস্ত ও কুটির শিল্প পণ্যের ৪৭টি স্টল রয়েছে। মেলা চলবে আগামী ২ মার্চ পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

অনুষ্ঠানে বিসিক চেয়ারম্যান বলেন, বিসিক ডিজাইন সেন্টার হলো বাংলাদেশের ডিজাইন বিবর্তনের পথিকৃত। কারণ এই ডিজাইন সেন্টারে কাজ করে গেছেন পটুয়া কামরুল হাসান, শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী ও শিল্পী এমদাদ হোসেনের মতো বহু গুণী শিল্পীরা। এই ডিজাইন সেন্টার নতুন নতুন ডিজাইন উদ্ভাবনসহ ক্ষুদ্র, কুটির ও হস্তশিল্প খাতের উদ্যোক্তাদের উৎপাদিত পণ্যের বিপণন সহায়তা বৃদ্ধির লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে।

সভাপতির বক্তব্যে মহাব্যবস্থাপক (সম্প্রসারণ) বলেন, বিসিকের নকশা কেন্দ্র থেকে প্রশিক্ষণ গ্রহণকারীদের বিভিন্ন পণ্য সামগ্রীর পরিচিতি ও বাজার সৃষ্টির মাধ্যমে তাদের সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যকে সামনে রেখে এ মেলার আয়োজন করা হয়েছে। মেলায় বিভিন্ন ধরনের পোশাক, নকশীকাঁথা, তাঁতের ও জামদানি শাড়ি, পাটের হস্তশিল্প, আধুনিক পদ্ধতিতে উৎপাদিত মধু, খাদ্যজাত সামগ্রীসহ হস্ত ও কুটির শিল্পজাত পণ্যের বিপুল সমারোহ ঘটেছে।


মন্তব্য