kalerkantho


‘পোশাক কারখানার কর্মপরিবেশ নিয়ে প্রশ্ন তোলার সুযোগ নেই’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



‘পোশাক কারখানার কর্মপরিবেশ নিয়ে প্রশ্ন তোলার সুযোগ নেই’

দেশের তৈরি পোশাক খাতে গত তিন-চার বছরে ব্যাপক সংস্কারকাজ হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। তিনি বলেন, বাংলাদেশ এখন পোশাক খাতের দুর্বলতাগুলো কাটিয়ে শক্তিশালী হয়ে উঠেছে।

বাণিজ্য ও উন্নয়নের ক্ষেত্রে যেকোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে এগিয়ে যেতে সক্ষম বাংলাদেশ। তবে অনেক দেশ শুধু উপদেশ দেয়, কিন্তু উন্নয়নে সহায়তা দেয় না।

গতকাল রবিবার ঢাকায় হোটেল লা মেরিডিয়ানে বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অব ফ্যাশন অ্যান্ড টেকনোলজি (বিইউএফটি) এবং নেদারল্যান্ডস ইনিশিয়েটিভ ফর ক্যাপাসিটি ডেভেলপমেন্ট ইন হায়ার এডুকেশন আয়োজিত ‘এনগেজমেন্ট অব স্টেকহোল্ডার্স ফর রেসপনসিবিলিটি অ্যান্ড সাসটেইনেবল ভ্যালু চেইন ইন বাংলাদেশ গার্মেন্ট সেক্টর’ শীর্ষক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, বাংলাদেশের পোশাক খাতের মান উন্নয়নে ও কর্মপরিবেশ উন্নয়নে বড় অনেক ক্রেতা এগিয়ে না এলেও এ ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম নেদারল্যান্ডস। দেশটি বাংলাদেশের তৈরি পোশাক খাতের উন্নয়নে অনেক সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। তিনি আশা করেন, নেদারল্যান্ডস তাদের এ সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে।

বিইউএফটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান মোজাফ্ফর ইউ সিদ্দিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন ঢাকায় নিযুক্ত নেদারল্যান্ডসের রাষ্ট্রদূত লিওনি কুয়িলেনেয়ার, বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি টিপু মুন্সি, বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অব ফ্যাশন অ্যান্ড টেকনোলজির ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. নিজামউদ্দিন আহমেদ এবং এমডিএফ প্রোগ্রাম ম্যানেজার ইনেকা টিপস। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন নেদারল্যান্ডসের আইএএফের সিনিয়র উপদেষ্টা মি. টন উইডেনহোপ এবং বিজিএমইএর সিনিয়র সহসভাপতি ফারুক হাসান।

অনুষ্ঠানে বাণিজ্যমন্ত্রী আরো বলেন, রানা প্লাজা ধসের পর থেকে বিগত তিন-চার বছরে তৈরি পোশাক খাতে ব্যাপক সংস্কারকাজ হয়েছে।

ক্রেতা জোট অ্যাকর্ড, অ্যালায়েন্সে এবং ন্যাশনাল অ্যাকশন প্ল্যানের অধীনে সাড়ে তিন হাজার পোশাক কারখানা পরিদর্শন করা হয়েছে; কিন্তু মাত্র ৩৫টি কারখানা বন্ধ করা হয়েছে, কারণ এগুলোতে ত্রুটি ছিল বেশি। বাকি কারখানা ভবন কাজের উপযোগী। সুতরাং বাংলাদেশের পোশাক খাতের কর্মপরিবেশ নিয়ে আর প্রশ্ন তোলার সুযোগ নেই।

নেদারল্যান্ডসের রাষ্ট্রদূত লিওনি কুয়িলেনেয়ার বলেন, বাংলাদেশের পোশাক খাতের কর্মপরিবেশ আগের চেয়ে উন্নত হয়েছে। তবে এখনো অনেক কাজ বাকি। তবে এ দেশের পোশাক খাতের কর্মপরিবেশ উন্নয়নে নেদারল্যান্ডস সব সময় বাংলাদেশের পাশে আছে, আগামীতেও থাকবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে দিনব্যাপী আয়োজনে বেশ কয়েকটি সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। এসব সেমিনারে পোশাক খাতের সিএসআর ও মান উন্নয়নের বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হয়। এসব সেমিনারে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এটিএন বাংলার চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমান, ভিয়েলাটেক্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডেভিড হাসনাত, মোহাম্মদী গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রুবানা হক, প্রোগ্রেসিভ এ্যাপারেল ইন্ডাস্ট্রিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাসান জাহিদুল ইসলাম প্রমুখ।


মন্তব্য