kalerkantho


লেনদেনে শীর্ষে প্রকৌশল খাত

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



চলতি বছরের শুরুতে ব্যাংক খাতের শেয়ার দামে উল্লম্ফন থাকলেও এখন কমছে। কোনো দিন সামান্য বাড়লেও পর দিন কমছে। গতকাল বৃহস্পতিবার মোট লেনদেনে ব্যাংকের অবদান নেমেছে ৬ শতাংশে। তবে লেনদেনে শীর্ষে উঠে এসেছে প্রকৌশল খাত। এই খাতের অবদান মোট লেনদেনের প্রায় ২০ শতাংশ। হিসাব বছর শেষে ভালো লভ্যাংশের আশায় প্রকৌশল খাতে ঝুঁকছে বিনিয়োগকারীরা। আর ব্যাংক খাতের শেয়ারে স্বাভাবিক সংশোধন হচ্ছে।

সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস গতকাল দেশের দুই পুঁজিবাজারেই ঊর্ধ্বমুখিতায় লেনদেন শেষ হয়েছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেন হয়েছে এক হাজার ৩৩৩ কোটি ১৫ লাখ টাকা। আর চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেন হয়েছে ৮৩ কোটি ৮৭ লাখ টাকা। তবে আগের দিনের চেয়ে মূল্যসূচক কমেছে দুই পয়েন্ট।

আইডিএলসির প্রতিবেদন বলছে, পুঁজিবাজারে প্রাণবন্ত লেনদেন থাকলেও সামান্যই ঊর্ধ্বমুখী হয়েছে বাজার। এতে প্রকৌশল খাত শীর্ষে উঠে এসেছে। লেনদেনের ১৯.৩ শতাংশই এই খাতের। এই খাতের আরএসআরএম স্টিল, বিবিএস, অ্যাপোলো ইস্পাত ও জিপিএইচ ইস্পাত শীর্ষদশে উঠেছে। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত দ্বিতীয় শীর্ষ অবস্থানে। যা লেনদেনের ১৬ শতাংশ। অন্যদিকে ব্যাংক খাতে সর্বোচ্চ পতন হয়েছে। ব্যাংকের লেনদেন কমেছে ১.৫ শতাংশ।

ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে এক হাজার ৩৩৩ কোটি ১৫ লাখ টাকা। তবে সূচক কমেছে ০.৫১ পয়েন্ট। আগের দিন বুধবার ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল এক হাজার ৩০৯ কোটি ১৫ লাখ টাকা। সেই হিসাবে লেনদেন বেড়েছে ২৪ কোটি টাকা।

দিন শেষে সূচক দাঁড়িয়েছে পাঁচ হাজার ৬২৫ পয়েন্ট। ডিএস-৩০ মূল্যসূচক ২ পয়েন্ট বেড়ে দুই হাজার ৩৬ পয়েন্ট ও ডিএসইএস শরিয়াহ সূচক পয়েন্ট ৩ পয়েন্ট কমে এক হাজার ৩০৯ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। লেনদেন হওয়া ৩২৮টি কম্পানির মধ্যে বেড়েছে ১২৬টি, কমেছে ১৬৪টি ও অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৮টি কম্পানির শেয়ারের দাম।

সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৮৩ কোটি ৮৭ লাখ টাকা। আর মূল্যসূচক কমেছে ২ পয়েন্ট। লেনদেন হওয়া ২৫৫টি কম্পানির মধ্যে বেড়েছে ৮৭টি, কমেছে ১৩৫টি ও অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৩টি কম্পানির শেয়ারের দাম।


মন্তব্য