kalerkantho


ওয়ালটন আনছে ইন্টেলিজেন্ট ইনভার্টার এসি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



গরম পড়ার সঙ্গে সঙ্গে সারা দেশে বাড়ছে এয়ার কন্ডিশনার বা এসির চাহিদা। ক্রমবর্ধমান এসির চাহিদা পূরণে এগিয়ে রয়েছে দেশীয় ব্র্যান্ড ওয়ালটন। এবার গত বছরের চেয়ে ৫৭ শতাংশ বেশি এসি বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে দেশীয় প্রতিষ্ঠানটি। একই সঙ্গে ওয়ালটন এ মাসেই বাজারে আনছে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী ইন্টেলিজেন্ট ইনভার্টার প্রযুক্তির এসি।

ওয়ালটনের কর্মকর্তারা জানান, হঠাৎ অসহনীয় গরম পড়লে এসির চাহিদা ব্যাপক বেড়ে যায়। তখন চাহিদা মেটাতে হিমশিম খেতে হয়। তাই এ বছর আগেভাগেই প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে ওয়ালটন। কারখানায় উৎপাদন বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে বাড়ানো হচ্ছে মজুদ। এ মাসেই আসছে ব্যাপক বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী ইন্টেলিজেন্ট ইনভার্টার প্রযুক্তির এসি। আসছে ওয়ালটনের চার ও পাঁচ টনের সিলিং এবং ক্যাসেট টাইপের এসি।   

ওয়ালটন এসি বিপণন বিভাগের প্রধান আব্দুল বারী বলেন, চলতি বছর এসির বেশির ভাগ বাজার দখলে ব্যাপক প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ৫৭ শতাংশ। বাজারে ছাড়া হচ্ছে দেশের আবহাওয়া উপযোগী অসংখ্য মডেলের এসি। এর মধ্যে রয়েছে ৬৫ হাজার টাকা মূল্যের দেড় টনের ইন্টেলিজেন্ট ইনভার্টার প্রযুক্তির এসি। চলতি মাসেই ইন্টেলিজেন্ট ইনভার্টার প্রযুক্তির দুই টনের এসিও আসছে, যা সাধারণ এসির তুলনায় ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ বেশি বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী।

বাজারে ৩৫ হাজার টাকায় এক টন, ৪৩ হাজার ৯০০ টাকায় দেড় টন ও ৫৪ হাজার ৬০০ টাকায় দুই টনের ওয়ালটন এসি পাওয়া যাচ্ছে। বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো এসির কনডেনসারে অ্যান্টি করোসিভ হাইড্রফিলিক গোল্ডেন কালার ফিন প্রযুক্তি ব্যবহার করছে ওয়ালটন। এতে এসির স্থায়িত্ব আরো বাড়বে।  

এ প্রসঙ্গে ওয়ালটন আরঅ্যান্ডডি বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী তাপস কুমার মজুমদার বলেন, ইনভার্টার প্রযুক্তির এসিতে সেন্সর থাকায় ঘরের ভেতরের তাপমাত্রা বুঝে সে অনুযায়ী রেফ্রিজারেন্ট সরবরাহ করে এবং ঘর ঠাণ্ডা হয়ে গেলে কম্প্রেসার ঘুমন্ত অবস্থায় থাকে। প্রয়োজন অনুযায়ী তাপমাত্রা সরবরাহ করে বিধায় এতে বিদ্যুৎ খরচ অনেক কম হয়। কম্প্রেসারের স্থায়িত্বও বাড়ে।


মন্তব্য