kalerkantho


পোশাক কারখানা উন্নয়নে ৬ শতাংশ সুদে ঋণ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



তৈরি পোশাক শিল্পের কারখানা সংস্কারে স্বল্প সুদে জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (জাইকা) থেকে ঋণ পাবে শিল্প মালিকরা। কারখানা ভবনের সংস্কার, পুনর্গঠন, পুনর্নির্মাণ এবং অগ্নি নিরাপত্তা কাজের জন্য ৬ শতাংশ সুদে এই ঋণ দেওয়া হবে।

গতকাল সোমবার গভর্নর ফজলে কবিরের উপস্থিতিতে বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে ২৫টি ব্যাংক ও ১০টি আর্থিক প্রতিষ্ঠানের অংশগ্রহণমূলক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। জাইকার ‘আরবান বিল্ডিং সেফটি প্রজেক্ট’-এর অধীনে এ ঋণ দেবে প্রতিষ্ঠানগুলো।

অনুষ্ঠানে গভর্নর ফজলে কবির বলেন, তৈরি পোশাক শিল্পে নিরাপদ কর্মপরিবেশ সৃষ্টি করতে কাজ করছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। আগামী ২০২১ সালে ৫০ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে। তা অর্জনে জাইকার সহযোগিতা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। একই সঙ্গে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে তা সহায়ক হবে। এ সময় তিনি তৈরি পোশাক খাত উন্নয়নে দেশের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, মাত্র ২ শতাংশ সুদহারে ব্যাংকগুলোকে তহবিল সরবরাহ করবে বাংলাদেশ ব্যাংক। পোশাক কারখানার ভবন পুনর্নির্মাণ, স্থানান্তর, সংযোজন বা রেট্রোফিটিং, চলতি মূলধন এবং অগ্নি নিরাপত্তার জন্য তহবিল থেকে ঋণ সুবিধা দেওয়া হবে।

গ্রাহকদের সর্বোচ্চ ৬ শতাংশ সুদহারে এ ঋণ দেবে ব্যাংকগুলো। পুনরর্থায়ন তহবিল থেকে একজন গ্রাহক সর্বোচ্চ ৩৫ কোটি টাকা ঋণ সুবিধা পাবে। তিন বছর বাড়তি সময়সহ ঋণ পরিশোধের সময় ১৫ বছর। তবে প্রয়োজনে প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট কমিটির অনুমোদন সাপেক্ষে ঋণের অর্থের পরিমাণ বাড়তে পারে।

প্রকল্পের তহবিলের মোট আকার ৪২৪ কোটি জাপানি ইয়েন। আর ঋণ তহবিলের পরিমাণ ৪১২ কোটি ৯০ লাখ জাপানি ইয়েন। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ২৯৮ কোটি টাকা। বিজিএমইএ, বিকেএমইএ, বিজিএপিএমইএর সদস্যভুক্ত তৈরি পোশাক কারখানার ভবন মালিক অথবা কারখানার মালিকরা এ ঋণ সুবিধা পাবে।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক মো. আবদুর রহিমের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য দেন জাইকা বাংলাদেশ অফিসের চিফ রিপ্রেজেনটেটিভ তাকাতোশি নিশিকাতা, বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এস কে সুর চৌধুরী, এবিবি চেয়ারম্যান ও মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আনিস এ খান, আইডিএলসি ফাইন্যান্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরিফ খান প্রমুখ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন বাংলাদেশ ব্যাংকের এসএমই অ্যান্ড স্পেশাল প্রগ্রামস বিভাগের মহাব্যবস্থাপক স্বপন কুমার রায়।


মন্তব্য