kalerkantho


‘যাত্রী সুবিধা বাড়ানো হবে পেট্রাপোলে’

বেনাপোল প্রতিনিধি   

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বেনাপোলের ওপারে ভারতের পেট্রাপোল চেকপোস্টে কাস্টমসের আনুষ্ঠানিকতা শেষে পুনরায় তল্লাশির নামে বিএসএফের হয়রানির শিকার হচ্ছে বাংলাদেশি পাসপোর্টধারী যাত্রীরা। ভারত-বাংলাদেশ জয়েন্ট গ্রুপ কাস্টমসের যৌথ সভায় বিএসএফ কর্তৃক বাংলাদেশি পাসপোর্টধারী যাত্রী হয়রানির বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়েছে। বাংলাদেশি যাত্রীদের অসুবিধার বিষয়ে আরো উন্নতির জন্য সুনির্দিষ্ট ঘটনা পেলেই ভারতের যথাযথ কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নেবে বলে আশ্বস্ত করেছেন ভারতের কাস্টমসের কর্মকর্তারা।

গতকাল বৃহস্পতিবার কলকাতা কাস্টম কমিশনার অফিসে দুই দিনের ভারত-বাংলাদেশ কাস্টমসের যৌথ সভায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে। সভাটি শুক্রবার কলকাতায় শেষ হয়েছে।

সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ভারতীয় পক্ষ যাত্রীদের কাউন্টারসংখ্যা ও লোকবল বাড়ানোর উদ্যোগ নেবে। বেনাপোল শুল্ক স্টেশন দিয়ে প্রায় ১৫ লাখ পাসপোর্টধারী যাত্রী ভারত-বাংলাদেশে যাতায়াত করে। ওপারে ইমিগ্রেশনে কাউন্টার কম থাকায় যাত্রীদের দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়। যাত্রীদের রোদ-বৃষ্টির হাত থেকে রক্ষা করতে যাতায়াত পথে শেড নির্মাণের ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যাত্রীদের বসার ব্যবস্থাসহ   স্যানিটেশন ব্যবস্থার উন্নয়ন করা হবে।   বৈঠকে বাংলাদেশ পক্ষে ছিলেন শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মইনুল খান, যশোর কাস্টমসের কমিশনার মো. জামাল হোসেন, বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার মো. শওকাত হোসেন এবং জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের দ্বিতীয় সচিব মো. জিয়াউর রহমান।

কলকাতা কাস্টমসের কমিশনার ড. এন কে সরেনসহ অন্যান্য কর্মকর্তা এ সময় উপস্থিত ছিলেন। বেনাপোল কাস্টম কমিশনার শওকাত হোসেন বলেন, বৈঠকে পাসপোর্টধারী যাত্রীদের পাশাপাশি দুই দেশের আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যকে আরো গতিশীল করতে বেনাপোল বন্দরে অবকাঠামোগত উন্নয়ন, ট্রাফিক ইউনিট চালু, রপ্তানির সময় বৃদ্ধিসহ দুই দেশের আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যের তথ্য আদান-প্রদানের বিষয়ে ঐকমত্য পোষণ করেন দুই দেশের কর্মকর্তারা।


মন্তব্য