kalerkantho


সাইবার নিরাপত্তায় সরকারি ২১ প্রতিষ্ঠানে বিশেষ গুরুত্ব

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



সাইবার নিরাপত্তায় সরকারি ২১ প্রতিষ্ঠানে বিশেষ গুরুত্ব

সাইবার নিরাপত্তার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্যাংক, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর), বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনসহ (বিএসইসি) সরকারের ২১টি প্রতিষ্ঠানকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। গতকাল জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) কার্যালয়ে ‘ডিজিটাল এনবিআর ও সাইবার নিরাপত্তা কার্যক্রম’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ তথ্য জানান। সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান।

জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘সাইবার আক্রমণের মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের ৮১ বিলিয়ন ডলার চুরি হয়ে গেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির ক্ষেত্রে যে অপরাধ ক্রাইম হয়েছে, তা আমাদের প্রচলিত ধারণার বাইরে। এ ধরনের অপরাধ রুখতে ফিলিপাইন বা অন্য দেশের সঙ্গে পারস্পরিক সম্পর্ক জোরদার করা দরকার। তা না হলে যেকোনো সময় এর থেকেও বড় ধরনের চুরির ঘটনা ঘটতে পারে। তথ্য নিরাপত্তাকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে বিএসইসি, নির্বাচন কমিশন (ইসি) এবং এনবিআরকে শক্তিশালী করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ’ এনবিআরে সাইবার নিরাপত্তা জোরদার করা প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেন প্রতিমন্ত্রী।

এনবিআরের উদ্দেশে জুনাইদ আহমেদ পলক আরো বলেন, ‘এনবিআরে এখন ২৭ লাখ অনলাইন টিনধারী রয়েছে।

এদের নিরাপত্তা দিতে হবে। এখানে টাকা না থাকলেও অনেক তথ্য রয়েছে। হ্যাকাররা এসব তথ্য চুরি করে অনেক বড় দুর্ঘটনা ঘটাতে পারে। তাই বছরে দুবার আইটি সিকিউরিটি অডিট করতে হবে। আমরা ফিজিক্যাল সিকিউরিটির জন্য অনেক টাকা খরচ করি, কিন্তু সাইবার সিকিউরিটির জন্য তেমন খরচ করি না। আমাদের এখন সাইবার সিকিউরিটি বিশেষজ্ঞ দরকার। ’

সেমিনারে সাইবার নিরাপত্তা বিষয়ে একটি পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেনটেশন প্রদান করেন প্রতিমন্ত্রী। এ বিষয়ে এনবিআর চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান বলেন, ‘আমাদের চিন্তার বিষয় অনেক প্রসারিত হয়েছে। এর মাধ্যমে আমরা অনেক কিছু জানতে পারলাম। ’ ভবিষ্যতে এনবিআর ও আইসিটি মন্ত্রণালয় একসঙ্গে কাজ করবে বলেও জানান তিনি।

সেমিনারে হাইটেক পার্ক অথরিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগম, বেসিস সভাপতি মোস্তাফা জব্বার, সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ ফরহাদ হোসেন, ন্যাশনাল ডাটা সেন্টারের পরিচালক তারেক বরকত উল্লাহ, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য ও কমিশনাররা উপস্থিত ছিলেন।

সাইবার নিরাপত্তার বিষয়ে এনবিআরকে সহায়তার আশ্বাস দিয়ে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘নিবন্ধিত করদাতার সংখ্যা ২৭ লাখ ছাড়িয়েছে। দিন দিন এ সংখ্যা বাড়ছে। এসব করদাতার তথ্য নিরাপত্তা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এনবিআর রাজস্ব আদায়ের জন্য যেভাবে ইন্টেলিজেন্স ব্যবহার করে, সেভাবে সাইবার নিরাপত্তা হুমকি মোকাবিলায় প্রস্তুতি নিতে হবে। এনবিআর দেশের ২১টি ক্রিটিক্যাল ইনফ্রাস্ট্রাকচারের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ। সাইবার নিরাপত্তার ক্ষেত্রে এটি সরকারের অগ্রাধিকার। তাই আমরা পার্টনারশিপ করে কাজ করছি। ’

নজিবুর রহমান আরো বলেন, ‘সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের অংশ হিসেবে ডিজিটাল এনবিআর গঠনের প্রয়াস চালানো হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে আমরা বহু দূর এগিয়েছি। ডিজিটাল এনবিআর গঠনে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ, বেসিসসহ সব সংস্থার সহায়তা পাচ্ছি। এসব প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে পার্টনারশিপ গড়ে তোলা হয়েছে। ভবিষ্যতে এ পার্টনারশিপ আরো সুদৃঢ় করার প্রয়াস চলছে। ’

অনুষ্ঠানে সদ্য সমাপ্ত ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় সর্বোচ্চ ভ্যাট প্রদানকারী ১০টি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধির হাতে সম্মাননা তুলে দেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী। প্রতিষ্ঠানগুলো হলো ওয়ালটন গ্রুপ, র্যাগস ইলেকট্রনিকস, হাতিল কমপ্লেক্স, সিপি বাংলাদেশ, সিঙ্গার বাংলাদেশ, নাদিয়া ফার্নিচার, আকতার ফার্নিচার, ব্রাদার্স ফার্নিচার, ফিট এলিগ্যান্স ও ডিউরেবল প্লাস্টিক লিমিটেড। এসব প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে সম্মাননা গ্রহণ করেন।


মন্তব্য