kalerkantho


বারভিডা নির্বাচনে জমজমাট প্রচারণা

আসিফ সিদ্দিকী, চট্টগ্রাম   

৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বারভিডা নির্বাচনে জমজমাট প্রচারণা

দেশে রিকন্ডিশন্ড বা একবার ব্যবহৃত গাড়ির ব্যবসা বছরে তিন হাজার কোটি টাকা। সেই ব্যবসায়ীদের সংগঠন বারভিডার নির্বাচনী প্রচারণা জমে উঠেছে। আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে এই নির্বাচন। অনেক বছর পর সরাসরি নির্বাচন হওয়ায় জমজমাট হয়ে উঠেছে প্রচারণা।

গাড়ি ব্যবসায়ীদের সংগঠনে ২৫ সদস্যের পরিচালক নির্বাচনে দুটি প্যানেল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। এর মধ্যে রয়েছে সাবেক সভাপতি হাবিব উল্লাহ ডনের নেতৃত্বে সম্মিলিত পরিষদ এবং বর্তমান সভাপতি আবদুল হামিদ শরীফের নেতৃত্বে ঢাকা-চট্টগ্রাম ঐক্য পরিষদ। নির্বাচনী প্রচারণায় দুটি পরিষদই নিজেদের সাফল্য তুলে ধরছে, একই সঙ্গে পরস্পরকে ঘায়েল করছে।

গাড়ি ব্যবসায়ী ম্যাক্সিম কারের কর্ণধার সুজা উদ্দিন মামুন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘অনেক বছর পর নির্বাচন হওয়ায় জমজমাট হয়ে উঠেছে প্রচারণা। নির্বাচনে ব্রোকারদের বদলে মূল আমদানিকারকদের আমরা অগ্রাধিকার দেব। কারণ তারাই ব্যবসা সুরক্ষার বিষয়টি বিবেচনা করবে। আর আগামী বাজেটে গাড়ি আমদানি ও হাইব্রিড গাড়ি আমদানিতে সুফল আদায়ে কে জোরালো ভূমিকা রাখতে পারবেন সেগুলো বিবেচ্য হবে। ’

নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করে সম্মিলিত পরিষদের মূল নেতা তিনবার নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল হক চৌধুরী বাবর কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘গাড়ি ব্যবসার চরম সংকট অবস্থা থেকে ধাপে ধাপে এই পর্যায়ে নিয়ে আসার ক্ষেত্রে আমাদের নেতৃত্বের অবদান অবশ্যই ভোটের সময় বিবেচ্য হবে। ২০০৯-১০ সাল ছিল রিকন্ডিশন্ড গাড়ি ব্যবসার স্বর্ণযুগ। সেটি ছিল আমাদের সময়েই। ’

মাহবুবুল হক চৌধুরী বাবর আরো বলেন, ‘সম্মিলিত পরিষদে ঢাকার ১৩ জন এবং ও চট্টগ্রামের ১২ জন ব্যবসায়ীকে পরিচালক হিসেবে মনোনয়ন দিয়েছি। ফলে ভোটাররা নেতৃত্ব নির্বাচনে ভুল করলে অন্তত তিন হাজার কোটি টাকার রুটি-রুজি-বিনিয়োগ সংকটাপন্ন হবে। ’ নির্বাচনে জয়ের বিষয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করে ঢাকা-চট্টগ্রাম ঐক্য পরিষদের নেতা ও বর্তমান সভাপতি আবদুল হামিদ শরীফ বলেন, ‘অনেক বছর ধরে মনোনীতভাবে বারভিডার নেতৃত্ব পরিচালিত হচ্ছে। আমরাই এই নির্বাচনের ব্যবস্থা করেছি। সুতরাং আমাদের দ্বারাই উন্নয়ন হবে। ’

হামিদ শরীফ আরো বলেন, ‘বারভিডা প্রতিষ্ঠা করেছি আমি। প্রতিষ্ঠার আগে থেকেই রিকন্ডিশন্ড গাড়ি ব্যবসার স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে আমি কাজ করেছি। সুতরাং বারভিডার স্বার্থ আমার চেয়ে কেউ ভালো দেখবে না। ’

হামিদ শরীফ প্রতিপক্ষের সভাপতির বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে বলেন, এত বছর তিনি নেতা ছিলেন, কিন্তু কোনো সফলতা দেখাতে পারেননি।

চট্টগ্রাম-ঢাকা ঐক্য পরিষদ গত ২৯ জানুয়ারি চট্টগ্রামের আগ্রাবাদ হোটেলে নির্বাচনী সভা করে। সেখানে এফবিসিসিআই সভাপতির বিরুদ্ধে অভিযোগ, গাড়ি আমদানিতে চেসিস জালিয়াতি, সদস্য সংগ্রহ চাঁদা কমানোসহ প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে বিস্তর অভিযোগ করা হয়। এর আগে ২৮ জানুয়ারি চট্টগ্রামের পেনিনসুলা হোটেলে নির্বাচনী সভা করে সম্মিলিত পরিষদ।

এসব বিষয়ে মাহবুবুল হক চৌধুরী বাবর বলেন, ‘নির্বাচনী প্রচারণায় কাদা ছোড়াছুড়িতে আমরা বিশ্বাসী নই। এতে গাড়ি খাতই ক্ষতিগ্রস্ত হবে। ভোটাররাই এখন অনেক সচেতন। ফলে মিথ্যা প্রচারণায় তারা বিভ্রান্ত হবে বলে মনে হয় না। ’ 

ঢাকা-চট্টগ্রাম ঐক্য পরিষদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তারা বারভিডা নির্বাচনে চট্টগ্রামের গুরুত্বকে খাটো করে দেখছে। সেই প্যানেলে চট্টগ্রামের ব্যবসায়ী মাত্র চারজন। আর ২৫ সদস্যের মধ্যে তারা দিয়েছে ২৪ জনের প্যানেল। সেই প্যানেলে রিকন্ডিশন্ড, একই সঙ্গে নতুন গাড়ির ব্যবসায়ীও রয়েছে।

এ বিষয়ে আবদুল হামিদ শরীফ বলেন, ‘রিকন্ডিশন্ড গাড়ি ব্যবসায় চট্টগ্রামের সেই অবস্থা এখন নেই। ফলে চট্টগ্রাম থেকে আমরা চারজন দিয়েছি। ঢাকা, গাজীপুর, সিলেট ও খুলনা থেকে সদস্য মনোনয়ন দিয়েছি। ’ একজন সদস্য না দেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘একজন স্বতন্ত্র প্রার্থীকে আমরা সমর্থন দিয়েছি। ’ 

 

জানা গেছে, আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি ঢাকার বিজয়নগরের মৌরি রেস্টুরেন্টে বারভিডা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে ঢাকার ৩০০ এবং চট্টগ্রামের ১২২ জন ভোটার ঢাকায় গিয়ে ভোট দেবে।

নির্বাচনী প্রস্তুতি নিয়ে জানতে চাইলে বারভিডা নির্বাচনী বোর্ডের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমাদের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভোটগ্রহণ চলবে। ফলাফল ঘোষণা হতে রাত ১০টা লাগতে পারে। ’


মন্তব্য