kalerkantho

26th march banner

গ্রামীণফোনের রাজস্ব আয় ১১৪৯০ কোটি টাকা

এক বছরে বেড়েছে ৯.৬ শতাংশ

বাণিজ্য ডেস্ক   

২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



গ্রামীণফোনের রাজস্ব আয় ১১৪৯০ কোটি টাকা

আর্থিক ফলাফল প্রকাশ অনুষ্ঠানে গ্রামীণফোনের সিইও পেটার ফারবার্গ এবং সিএফও দিলীপ পাল

গ্রামীণফোন ২০১৬ সালে ১১ হাজার ৪৯০ কোটি টাকা রাজস্ব আয় করেছে, যা আগের বছরের তুলনায় ৯.৬ শতাংশ বেশি। নতুন গ্রাহক ও সেবা থেকে অর্জিত রাজস্ব (আন্তসংযোগ আয় ব্যতীত) বেড়েছে ১২ শতাংশ। সেই সঙ্গে ডাটা রাজস্বের প্রবৃদ্ধিও অব্যাহত ছিল। ডাটা থেকে অর্জিত রাজস্ব বেড়েছে ৬৯.৭ শতাংশ, ডাটা গ্রাহক ৫৬.১ শতাংশ। ব্যবহারের পরিমাণ বেড়েছে ১৬৭.৯ শতাংশ। ব্যবহৃত মিনিটের পরিমাণ বাড়ার ফলে ভয়েস থেকে অর্জিত রাজস্ব বেড়েছে ৫.১ শতাংশ। চতুর্থ প্রান্তিকে নতুন গ্রাহক ও ট্রাফিক রাজস্ব ২০১৫-এর একই সময়ের তুলনায় ১২.২ শতাংশ বেড়েছে।

গ্রামীণফোন পাঁচ কোটি ৮০ রাখ স্বয়ংক্রিয় গ্রাহক নিয়ে বছরটি শেষ করেছে। যেখানে প্রবৃদ্ধির হার ছিল ২.২ শতাংশ। গত বছর গ্রামীণফোনে যুক্ত হয়েছে ৮৮ লাখ ডাটা গ্রাহক। এর ফলে মোট গ্রাহকের ৪২.৩ শতাংশ ইন্টারনেট সেবা ব্যবহার করছে।

গ্রামীণফোনের সিইও পেটার ফারবার্গ বলেন, ‘২০১৬ ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে গ্রামীণফোনের জন্য একটি সার্বিক সাফল্যের বছর। ডাটা রাজস্বের অব্যাহত প্রবৃদ্ধির পাশাপাশি ভয়েস খাতেও প্রবৃদ্ধি হয়েছে। এই বছর আমরা সাফল্যের সঙ্গে বায়োমেট্রিক যাচাই প্রক্রিয়া ও ৯০ শতাংশ সাইটে থ্রিজি পৌঁছে দিতে পেরেছি। তিনি জানান, আয়কর প্রদানের পর ২০১৬-এ গ্রামীণফোনের মুনাফা হয়েছে দুই হাজার ২৫০ কোটি টাকা, যা ২০১৫-তে ছিল এক হাজার ৯৭০ কোটি টাকা।

গ্রামীণফোনের সিএফও দিলীপ পাল বলেন, গ্রামীণফোনে দৃঢ় টপ লাইন ও পরিচালন দক্ষতা উদ্যোগের কারণে ১৪.৩ শতাংশ রাজস্ব প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে। ৯.৬ শতাংশ রাজস্ব প্রবৃদ্ধির বিপরীতে বড় ধরনের নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ সত্ত্বেও পরিচালন ব্যয় মাত্র ৬.৫ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। তিনি বলেন, ‘সম্ভাব্য প্রবৃদ্ধি এবং পরিচালন দক্ষতা কম্পানিকে ভবিষ্যতে লাভজনক থাকতে সহায়তা করবে। আমরা আনন্দের সঙ্গে জানাচ্ছি যে বোর্ড অব ডিরেক্টরস আমাদের শেয়ারহোল্ডারদের জন্য শেয়ারপ্রতি ৯ টাকা লভ্যাংশ সুপারিশ করেছে। ’

গ্রামীণফোন ২০১৬-এ তার থ্রিজি নেটওয়ার্ক স্থাপন, টুজি নেটওয়ার্কের মানোন্নয়ন এবং আইটি অবকাঠামোর দক্ষতা বৃদ্ধিতে দুই হাজার ১১০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে। এদিকে দেশের বৃহত্তম করদাতা গ্রামীণফোন ২০১৬ সালে সরকারি কোষাগারে কর, ভ্যাট, শুল্ক ও লাইসেন্স ফি হিসেবে পাঁচ হাজার ৮৬০ কোটি টাকা দিয়েছে, যা কম্পানির মোট রাজস্ব আয়ের ৫১.০ শতাংশ।

৩১ জানুয়ারি ২০১৭-এ অনুষ্ঠিত বোর্ড সভায় গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, গ্রামীণফোনের পরিচালকমণ্ডলী ২০১৬ সালের জন্য পরিশোধিত মূলধনের ৯০ শতাংশ (প্রতিটি ১০ টাকার শেয়ারের জন্য ৯ টাকা) চূড়ান্ত নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এর ফলে ২০১৬ সালের জন্য মোট নগদ লভ্যাংশের পরিমাণ দাঁড়াল পরিশোধিত মূলধনের ১৭৫ শতাংশ, যা ২০১৫ সালের কর-পরবর্তী মুনাফার ১০৫ শতাংশ। (এর মধ্যে রয়েছে ৮৫ শতাংশ অন্তর্বর্তী নগদ লভ্যাংশ) রেকর্ড তারিখ ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৭-তে যারা শেয়ারহোল্ডার থাকবে তারা এই লভ্যাংশ পাবে, যা ২০ এপ্রিল ২০১৭-এ অনুষ্ঠতব্য ২০তম বার্ষিক সাধারণ সভার দিন শেয়ারহোল্ডারদের অনুমোদনের ওপর নির্ভরশীল।


মন্তব্য