kalerkantho


উৎপাদনে আসছে চট্টগ্রাম ইউরিয়া সার কারখানা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



দুই বছরেরও বেশি সময় বন্ধ থাকার পর উৎপাদনে আসছে চট্টগ্রাম ইউরিয়া ফার্টিলাইজার ফ্যাক্টরি লিমিটেড (সিইউএফএল)। আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে এ কারখানায় অ্যামোনিয়া এবং ১২ ফেব্রুয়ারি থেকে ইউরিয়া উৎপাদন শুরু হবে।

২০১৫ সালের ৩১ জানুয়ারি ইউরিয়া রিঅ্যাক্টরে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে এ কারখানায় উৎপাদন বন্ধ হয়েছিল। পরবর্তী সময়ে ইটালিয়ান কম্পানির মাধ্যমে দুই দফা মেরামত শেষে এটি চালু করা হচ্ছে। মেরামতকালে এতে সম্পূর্ণ নতুন কুলিং টাওয়ার প্রতিস্থাপন এবং ইউরিয়া রিঅ্যাক্টর রিলাইনিং করা হয়েছে। কারখানাটি চালু হলে দৈনিক দেড় হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া সার উৎপাদিত হবে।

এ ছাড়া গত বছর অক্টোবর মাসে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে বন্ধ হয়ে যাওয়া আশুগঞ্জ সার কারখানাও আগামী ৫ ফেব্রুয়ারি থেকে উৎপাদন শুরু করবে। এই কারখানা থেকেও প্রতিদিন দেড় হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া সার পাওয়া যাবে।

দেশে ইউরিয়া সারের পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে। বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশন (বিসিআইসি) জানিয়েছে, বর্তমানে দেশে ইউরিয়া সারের পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে। গতকাল পর্যন্ত বিসিআইসির বিভিন্ন গুদামে আট লাখ ১৩ হাজার ১৬৭ মেট্রিক টন ইউরিয়া সার মজুদ রয়েছে।

একই সঙ্গে জি-টু-জি পদ্ধতিতে কাতার, সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে সার আমদানি অব্যাহত রয়েছে। মোংলা বন্দরে একটি জাহাজ থেকে আমদানীকৃত সাড়ে ২৭ হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া সার খালাসের কাজ চলছে। এ ছাড়া আরো ৪২ হাজার মেট্রিক টন সার নিয়ে দুটি জাহাজ খালাসের অপেক্ষায় রয়েছে। পাশাপাশি বর্তমানে বিসিআইসির সার কারখানাগুলোতে প্রতিদিন গড়ে পাঁচ হাজার মেট্রিক টন সার উৎপাদন অব্যাহত রয়েছে। সিইউএফএল এবং আশুগঞ্জ কারখানা উৎপাদনে গেলে দৈনিক আরো তিন হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া যোগ হবে। গত জুন থেকে জানুয়ারি ২০১৭ পর্যন্ত ১৩ লাখ ৭৮ হাজার ৬৭০ মেট্রিক টন ইউরিয়া সার চাষি পর্যায়ে বিতরণ করা হয়েছে বলে বিসিআইসি জানিয়েছে।


মন্তব্য