kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মেয়র সাঈদ খোকন

২০১৭ হবে ডিএসসিসির ‘স্মার্ট সিটি বর্ষ’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন বলেছেন, ২০১৭ সালকে ‘স্মার্ট সিটি বর্ষ’ ঘোষণা করা হবে। তিনি আরো বলেন, আগামী বছর গ্রাহকদের দক্ষতার সঙ্গে নাগরিকসেবা নিশ্চিত করা ও একইভাবে সমস্যাগুলো মোকাবিলা করতে সব ধরনের প্রস্তুতি নেবে ডিএসসিসি।

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র বসুন্ধরায় ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ-প্রেক্ষিত স্মার্ট ঢাকা’ বিষয়ক সেমিনারে তিনি এসব কথা বলেন।

ডিএসসিসি মেয়র বলেন, ‘বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে ঢাকার বিদ্যমান অবস্থার আলোকে এ শহরকে স্মার্ট করে গড়ে তুলব আমরা। তবে রাজধানী ঢাকার সঙ্গে শুরুতে সিঙ্গাপুর, লন্ডন, বেইজিংয়ের তুলনা করলে চলবে না। কেননা ঢাকার বর্তমান অবকাঠামো এবং দেশের বিদ্যামান সামগ্রিক অবস্থা বিবেচনা করে আমাদের কাজ করতে হবে। আমরা নিজেদের মতো করে স্মার্ট সিটি গড়ে তুলব। ’

সাঈদ খোকন বলেন, ‘ঢাকা শহরকে বাসযোগ্য করে গড়ে তুলতে অনেক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হচ্ছে। একই সঙ্গে বহু প্রতিবন্ধকতাও রয়েছে। ময়লা-আবর্জনা ব্যবস্থাপনা, জলাবদ্ধতা নিরসন বড় চ্যালেঞ্জ। তবে এসব চ্যালেঞ্জ ও প্রতিবন্ধকতা মোকাবিলা করেও আমরা এগিয়ে চলছি। ’ এই সেমিনারে স্মার্ট ঢাকা বিষয়ক মূল প্রবন্ধ পাঠ করা হয়। এরপর আরো তিনটি বিষয়ভিত্তিক উপস্থাপনা তুলে ধরা হয়।

উন্মুক্ত মতামতে বিশেষজ্ঞ ও নগরবাসী বলেন, উন্নত শহরে গাড়ির বিকট হর্ন বাজে না, রিকশার দৌরাত্ম্য দেখা যায় না এবং ফুটপাত হকারমুক্ত থাকে। জনসংখ্যাবহুল এ শহরকে সত্যিকারের স্মার্ট সিটি করতে হলে বিদ্যমান সমস্যাগুলোর যৌক্তিক সমাধান করতে হবে।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিশ্বব্যাংকের পরামর্শক আইজ্যাক কিম। এ ছাড়া অন্যদের মধ্যে বিষয়ভিত্তিক উপস্থাপনা ও আলোচনায় অংশ নেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব শ্যাম সুন্দর সিকদার, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সচিব খান মোহাম্মদ রেজাউল করিম প্রমুখ।


মন্তব্য