kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


শুরু হচ্ছে ‘রূপচাঁদা-দ্য ডেইলি স্টার সুপার শেফ ২০১৭’

শেফ হিসেবে স্বীকৃতি পাবেন নারীরাও

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



শেফ হিসেবে স্বীকৃতি পাবেন নারীরাও

‘রূপচাঁদা-দ্য ডেইলি স্টার সুপার শেফ ২০১৭’ বাছাই প্রক্রিয়া উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনে ডেইলি স্টার সম্পাদক মাহফুজ আনামসহ অন্য অতিথিরা

‘এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে আমার আত্মবিশ্বাস বেড়েছে। এখন নিজেকে তুলে ধরা অনেকটা সহজ হয়েছে, বেড়েছে জ্ঞানের পরিধিও’, ২০১৬ সালের সুপার সেফ বিজয়ী খুলনার বসুপাড়ার রাফিজা আহাম্মেদ তাঁর প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে গিয়ে এভাবেই বলেন।

এ ছাড়া ২০১৫ সালের সুপার শেফ বিজয়ী চট্টগ্রামের উম্মে কুলসুম চৌধুরী বলেন, ‘এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে আমার ব্যক্তিগত এবং সর্বজনীন উপকার হয়েছে। ’ তিনি মনে করেন, রান্নার মাধ্যমে সুস্থ বিনোদনের বিকাশ ঘটছে।

গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারে ডেইলি স্টার ভবনে ‘রূপচাঁদা-দ্য ডেইলি স্টার সুপার  শেফ ২০১৭’ বাছাই প্রক্রিয়া উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন ২০১৬ এবং ২০১৫ সালের সুপার শেফ বিজয়ী রাফিজা এবং কুলসুম। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন ডেইলি স্টারের সম্পাদক মাহফুজ আনাম।

দেশের ভোজ্য তেলের অন্যতম বৃহৎ প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ এডিবল অয়েল লিমিটেডের রূপচাঁদা এবং জাতীয় ইংরেজি দৈনিক ডেইলি স্টারের আয়োজনে তৃতীয় ‘রূপচাঁদা-দ্য ডেইলি স্টার সুপার শেফ ২০১৭’ প্রতিযোগিতার বাছাই প্রক্রিয়া শুরু হতে যাচ্ছে আগামী নভেম্বর থেকে।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ এডিবল অয়েল লিমিটেডের ব্যবস্থাপক ফয়সল মাহমুদ, প্রতিষ্ঠানটির  বিক্রয় ও বিপণন বিভাগের প্রধান শোয়েব মো. আসাদুজ্জামান, এনটিভির অনুষ্ঠান বিভাগের প্রধান মোস্তফা কামাল সৈয়দ, জনপ্রিয় টিভি ব্যক্তিত্ব শারমিন লাকি প্রমুখ। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি মাহফুজ আনাম বলেন, সারা বিশ্বের মানুষের কাছে বাঙালির রসনার কথা আবারও তুলে ধরা হবে এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে। যেমনটা থাইল্যান্ডকে বিশ্বের অনেক দেশের মানুষ না জানলেও থাই ফুডের কথা প্রায় সবাই জানে। এ ছাড়া সুস্থ বিনোদনের জায়গা তৈরি করতে এই অনুষ্ঠান গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে তিনি মনে করেন।

নারীরা বৈষম্যের শিকার হচ্ছে উল্লেখ করে মাহফুজ আনাম আরো বলেন, পৃথিবীর ৯৯ শতাংশ নারী রান্নাবান্না করলেও তাদের এসব নিয়ে তেমন একটা স্বীকৃতি বা মাতামাতি নেই। অন্যদিকে পুরুষ শেফদের নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হয়। এখানেও নারীরা জেন্ডার বৈষম্যের স্বীকার বলে তিনি মন্তব্য করেন।

মোস্তফা কামাল সৈয়দ বলেন, দেশে অনেক রিয়ালিটি শো হলেও এর স্থায়িত্ব খুব একটা বড় হয়নি। তবে এ ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম রূপচাঁদা এবং ডেইলি স্টার। তাদের মধ্যে অনেক মতপার্থক্য থাকলেও তারা অনুষ্ঠানটি নিয়মিত চালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে। এটি একটি বিরল দৃষ্টান্ত।

শোয়েব মো. আসাদুজ্জামান বলেন, ‘এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে দেশের মানুষের সুষ্ঠু এবং বিকল্প বিনোদনের জায়গা তৈরি হবে বলে আমি মনে করি। ’ তিনি বলেন, এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে অনেকে তাদের জীবনে পরিবর্তন আনতে সক্ষম হয়েছে। সাধারণ একটা পরিবার থেকে উঠে এসেও ২০১৬ সালের চ্যাম্পিয়ন রাফিজা এখন আন্তর্জাতিক মানের হোটেলে শেফ হওয়ার স্বপ্ন দেখেন।

শোয়েব মো. আসাদুজ্জামান আরো বলেন, প্রায় ছয় কোটি থেকে সাত কোটি টাকা ব্যয়ে রান্না নিয়ে দেশের সবচেয়ে বড় রিয়ালিটি শোর আগামী নভেম্বর মাস থেকে আঞ্চলিক পর্যায়ে প্রতিযোগিতা শুরু হবে। আর আগামী বছরের ৪ ফেব্রুয়ারি থেকে এনটিভিতে প্রচারিত হবে। এটির প্রথম যাত্রা শুরু হয় ২০১৪ সালে। বেসরকারি টেলিভিশন এনটিভি এই শোটি নিয়মিত প্রচার করে আসছে।

উদ্যোক্তারা জানায়, এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দেশের আঞ্চলিক পর্যায়ে চমত্কার সব রান্নার গুণাগুণ বিচার করে সেরা রন্ধনশিল্পীদের কেন্দ্রীয় পর্যায়ে নিয়ে এসে সুপার শেপ নির্বাচিত করা হয়। এবারের প্রতিযোগিতায় দেশের ১৭টি অঞ্চল থেকে আঞ্চলিক প্রতিযোগিতা শুরু হবে। প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে চ্যাম্পিয়ন পাবেন ১০ লাখ টাকা, প্রথম রানার-আপ পাবেন পাঁচ লাখ টাকা, দ্বিতীয় রানার-আপ পাবেন তিন লাখ টাকা। এ ছাড়া চার থেকে দশম স্থান অর্জনকারীদেরও দেওয়া হবে আকর্ষণীয় পুরস্কার। সুপার শেফ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীরা ০৬৯ ১২ ৭৭৭ ৮৮৮ এই নম্বরে ফোন করে রেজিস্ট্রেশন করতে পারবে বলে জানায় কর্তৃপক্ষ।


মন্তব্য