kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিক

চামড়াজাত পণ্যে রপ্তানি আয় ২৪৯৫ কোটি টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



চলতি ২০১৬-১৭ অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য রপ্তানিতে আয় হয়েছে ৩১ কোটি ৯০ লাখ ৬০ হাজার মার্কিন ডলার বা প্রায় দুই হাজার ৪৯৫ কোটি টাকা; যা এই সময়ের লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৮.১৬ শতাংশ বেশি। একই সঙ্গে গত ২০১৫-১৬ অর্থবছরের একই সময়ের রপ্তানি আয়ের তুলনায়ও ১৬.৬৯ শতাংশ বেশি আয় হয়েছে এ খাতে।

বাংলাদেশ রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) সেপ্টেম্বর মাসে প্রকাশিত হালনাগাদ প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৫-১৬ অর্থবছরে চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য রপ্তানিতে আয় হয়েছিল ১১৬ কোটি ৯ লাখ ৫০ হাজার ডলার। চলতি ২০১৬-১৭ অর্থবছরে এই খাতের রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ১২২ কোটি ডলার। এর মধ্যে জুলাই-সেপ্টেম্বর মেয়াদে রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ২৯ কোটি ৪৯ লাখ ৮০ হাজার ডলার।

২০১৬-১৭ অর্থবছরের প্রথম তিন মাসে কাঁচা চামড়া রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ছয় কোটি ৭৭ লাখ ডলার। তবে এ সময়ের মধ্যে আয় হয়েছে ছয় কোটি ৭০ লাখ ৭০ হাজার মার্কিন ডলার, যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ০.৯৩ শতাংশ কম। গত ২০১৫-১৬ অর্থবছরের জুলাই-সেপ্টেম্বর মেয়াদে চামড়া রপ্তানিতে আয় হয়েছিল সাত কোটি সাত লাখ ৩০ হাজার ডলার। অর্থাৎ আগের অর্থবছরের তুলনায়ও এ বছরের প্রথম প্রান্তিকে চামড়া রপ্তানিতে আয় ৫.১৭ শতাংশ কমেছে।

সদ্য সমাপ্ত ২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রথম তিন মাসে চামড়াজাত পণ্য রপ্তানিতে আয় হয়েছিল সাত কোটি ৩৭ লাখ ৫০ হাজার মার্কিন ডলার। চলতি অর্থবছরের জুলাই-সেপ্টেম্বর মেয়াদে এ খাতের পণ্য রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ১০ কোটি ৮৮ লাখ ডলার। এর বিপরীতে আয় হয়েছে ৯ কোটি ৩৬ লাখ ডলার, যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১৩.৯৭ শতাংশ কম। তবে ২০১৫-১৬ অর্থবছরে আগের তুলনায় চলতি অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে রপ্তানি আয় ২৬.৯২ শতাংশ বেড়েছে।

২০১৬-১৭ অর্থবছরের জুলাই-সেপ্টেম্বর মেয়াদে চামড়ার জুতা রপ্তানিতে আয় হয়েছে ১৫ কোটি ৮৩ লাখ ৯০ হাজার মার্কিন ডলার, যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩৩.৭০ শতাংশ বেশি। আগের অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় এই খাতের রপ্তানি আয় ২২.৮৪ শতাংশ বেড়েছে। ২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে চামড়া জুতা রপ্তানিতে আয় হয়েছিল ১২ কোটি ৮৯ লাখ ৪০ হাজার ডলার।


মন্তব্য