kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বোয়িং ৭৩৭-৮০০ উড়োজাহাজ যুক্ত হলো ইউএস-বাংলায়

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



বোয়িং ৭৩৭-৮০০ উড়োজাহাজ যুক্ত হলো ইউএস-বাংলায়

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসে যুক্ত হওয়া নতুন বোয়িং ৭৩৭-৮০০ উড়োজাহাজের সামনে প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসে সংযোজন হয়েছে নতুন বোয়িং ৭৩৭-৮০০ উড়োজাহাজ। ১৫৮ আসনের বোয়িং দিয়ে আন্তর্জাতিক গন্তব্যে আরো বেশি ফ্লাইট পরিচালনার পরিকল্পনা করছে বেসরকারি এই বিমান সংস্থা।

গতকাল দুপুর ৩টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নতুন উড়োজাহাজটি অবতরণ করে। এ সময় ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মামুনসহ প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা করতালির মাধ্যমে বহরে যুক্ত হওয়া নতুন এয়ারক্রাফটিকে গ্রহণ করেন।

নতুন যুক্ত হওয়া বোয়িংয়ে আটটি বিজনেস ক্লাস, প্রিমিয়াম ইকোনমি ও ইকোনমি ক্লাসসহ মোট ১৫৮টি আসনব্যবস্থা রয়েছে। বর্তমানে ৭৬ আসনবিশিষ্ট তিনটি ড্যাশ৮-কিউ৪০০ এয়ারক্রাফট রয়েছে। গত দুই বছরের বেশি সময়ে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস আঞ্চলিক রুট ঢাকা-কাঠমাণ্ডু-ঢাকাসহ অভ্যন্তরীণ বিভিন্ন গন্তব্যে প্রায় ১৬ হাজারের বেশি ফ্লাইট সফলভাবে পরিচালনা করেছে। নতুন যুক্ত হওয়া বোয়িং ৭৩৭-৮০০সহ বর্তমানে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের বিমান বহরে চারটি উড়োজাহাজ রয়েছে।

‘ফ্লাই ফাস্ট-ফ্লাই সেফ’ স্লোগানে যাত্রা শুরু করা ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের আন্তর্জাতিক রুট সম্প্রসারণে এ মাসের শেষ সপ্তাহে এবং চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে আরো দুটি নতুন বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এয়ারক্রাফট বিমান বহরে যুক্ত করার পরিকল্পনা রয়েছে।

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের কর্মকর্তারা জানান, বোয়িং ৭৩৭-৮০০ উড়োজাহাজ দিয়ে কলকাতা, কুয়ালালামপুর, ব্যাংকক, সিঙ্গাপুর, মাসকাট, দোহা, গুয়াংজুসহ বিভিন্ন রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে। এ ছাড়া শিগগিরই ঢাকা-পারো-ঢাকা রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করতে যাচ্ছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস। গত দুই বছরে অভ্যন্তরীণ রুটে সফলতার স্বীকৃতিস্বরূপ ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস ট্রাভেল বিষয়ক পত্রিকা দ্য বাংলাদেশ মনিটরের ‘বেস্ট এয়ারলাইন অব দ্য ইয়ার-২০১৫’ অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে। এ ছাড়া বাংলাদেশ ট্রাভেলার্স ফোরাম কর্তৃক পর পর দুই বছর ‘বেস্ট ডমিস্টিক এয়ারলাইন অব দ্য ইয়ার-২০১৪ ও ২০১৫’ নির্বাচিত হয়েছে ইউএস-বাংলা। অন-টাইম ফ্লাইট অপারেশন, আন্তর্জাতিক মানের কেবিন সার্ভিস, উন্নত মানের নিজস্ব ক্যাটারিং সার্ভিস ইত্যাদির কারণে ইউএস-বাংলা এই স্বীকৃতি পেয়েছে। ইউএস-বাংলার সঠিক সময়ে ফ্লাইট পরিচালনার রেকর্ড শতকরা ৯৮.৭ ভাগ।

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, ‘যাত্রীদের সেবার মান বৃদ্ধির জন্য করণীয় সব কিছু আন্তর্জাতিক মানদণ্ডে উপনীত করাই আমাদের লক্ষ্য। অভ্যন্তরীণ এয়ারলাইনসগুলোর মধ্যে স্বীকৃত সেরা এয়ারলাইনস ইউএস-বাংলা অদূর ভবিষ্যতে এশিয়ার শ্রেষ্ঠ এয়ারলাইনসের স্বীকৃতি অর্জনই হবে পরবর্তী লক্ষ্য। ’


মন্তব্য