kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বিডিজি-মাগুরা গ্রুপ ও সিজিজিসির মধ্যে চুক্তি

বাংলাদেশে বিনিয়োগ করবে চায়না গোজহোবা গ্রুপ

বাণিজ্য ডেস্ক   

১০ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



বাংলাদেশে বিনিয়োগ করবে চায়না গোজহোবা গ্রুপ

বিডিজি-মাগুরা গ্রুপের সঙ্গে চায়না গোজহোবা গ্রুপ ইন্টারন্যাশনাল ইঞ্জিনিয়ারিং কম্পানির ব্যবসাসংক্রান্ত চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন বিডিজি-মাগুরা গ্রুপের চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল মহীউদ্দীন এবং চায়না গোজহোবা গ্রুপ ইন্টারন্যাশনাল ইঞ্জিনিয়ারিং কম্পানির প্রেসিডেন্ট এল ভি জেকজিয়াং

বাংলাদেশে অবকাঠামো উন্নয়ন, বিদ্যুৎ, আবাসনসহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ খাতে বিনিয়োগ করবে চীনের অন্যতম নেতৃস্থানীয় বৃহৎ ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান চায়না গোজহোবা গ্রুপ (সিজিজিসি)। এ লক্ষ্যে বিডিজি মাগুরা গ্রুপ ও সিজিজিসির মধ্যে সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে।

বিডিজি-মাগুরা গ্রুপের চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল মহীউদ্দীনের নেতৃত্বে সাত সদস্যের প্রতিনিধিদলের চীন সফরকালে এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

সম্প্রতি বেইজিংয়ে সিজিজিসির কার্যালয়ে বিডিজি-মাগুরা গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট কম্পানি লিমিটেডের পক্ষে গ্রুপ চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল মহীউদ্দীন এবং চায়না গোজহোবা গ্রুপ ইন্টারন্যাশনাল ইঞ্জিনিয়ারিং কম্পানির পক্ষে প্রেসিডেন্ট এল ভি জেকজিয়াং চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। বাংলাদেশের প্রতিনিধিদলে সংসদ সদস্য এ এম নাইমুর রহমান দুর্জয়, বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফওয়ান সোবহান, বিডিজি-মাগুরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান দিলারা মোস্তফা এবং গ্রুপ ডিরেক্টর মোস্তফা আজাদ মহীউদ্দীন ছাড়াও চীনে বাংলাদেশ দূতাবাসের বাণিজ্যিক কাউন্সিলর মো. মাহফুজুল আলম খান সমঝোতা স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

এই সমঝোতা চুক্তির ফলে বিদ্যুৎ ও শিল্পপ্রতিষ্ঠানের বিকাশ, আবাসন খাতের উন্নয়ন এবং সার্বিক অবকাঠামোগত উন্নয়নে প্রতিষ্ঠান দুটি একসঙ্গে কাজ করবে। এ ক্ষেত্রে উভয় পক্ষ তাদের স্বার্থ রক্ষা করে সর্বোচ্চ প্রযুক্তি ও অভিজ্ঞতা নিজেদের মধ্যে বিনিময় করবে। সিজিজিসি ও বিডিজি-মাগুরা গ্রুপ বেসরকারি খাতে প্রকল্প, সরকারি-বেসরকারি অংশগ্রহণে (পিপিপি) প্রকল্প ও গভর্নমেন্ট টু গভর্নমেন্ট (জিটুজি) প্রকল্পের নকশা তৈরি, নির্মাণ, ঠিকাদারি, প্রকল্প ব্যবস্থাপনা, পরিচালনা ও অর্থায়নে সহায়তা করবে। এ ছাড়া উভয় পক্ষ সার্বিক উন্নয়নে গবেষণামূলক কার্যক্রম, তথ্য, যোগাযোগসহ পণ্যের নতুন বাজার সৃষ্টি নিয়েও একসঙ্গে কাজ করবে।

প্রসঙ্গত, সিজিজিসি আন্তর্জতিক মানের চীনের নেতৃত্বস্থানীয় ব্যবসায়িক গ্রুপ। ১৯৭০ সালে প্রতিষ্ঠিত এই প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রম সরাসরি চীনের কেন্দ্রীয় সরকারের নিয়ন্ত্রণে পরিচালিত হয়। বিশ্বের ১০০টির বেশি দেশে অবকাঠামোগত উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। সিজিজিসি বাংলাদেশের অবকাঠামোগত উন্নয়নের পাশাপাশি, বিদ্যুৎ, আবাসন ও অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ খাতের উন্নয়নে কাজ করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। বাংলাদেশের সংশ্লিষ্ট খাতগুলোতে তারা ব্যাপক উন্নয়নে সহায়তা করতে আগ্রহী।


মন্তব্য