kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি হবে ৬.৯ শতাংশ

বাণিজ্য ডেস্ক   

৬ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি হবে ৬.৯ শতাংশ

বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি এ বছর ৬.৯ শতাংশ হবে, একই প্রবৃদ্ধি ২০১৭ সালেও অব্যাহত থাকবে। সর্বশেষ অর্থনৈতিক পূর্বাভাসে এমন তথ্য দিয়েছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)।

গত মঙ্গলবার প্রকাশিত ‘ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক আউটলুক’ শীর্ষক এই প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৫ সালে বাংলাদেশের মূল্যস্ফীতি ৬.৫ শতাংশ থাকলেও এ বছর তা বেড়ে হবে ৭ শতাংশ। আগামী বছরও একই মূল্যস্ফীতি বজায় থাকবে।

সম্প্রতি আরেক প্রতিবেদনে চলতি ২০১৬-১৭ অর্থবছরে বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৬.৮ শতাংশ অর্জিত হবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে বিশ্বব্যাংক। তবে সরকারি হিসাবে চলতি অর্থবছরে প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৭.২ শতাংশ।

২০১৭ সালের জন্য বিশ্ব অর্থনৈতিক পূর্বাভাস অপরিবর্তিত রেখেছে আইএমএফ। সংস্থা হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছে, সরকারগুলোকে শ্লথ প্রবৃদ্ধির মোকাবিলা ও সুরক্ষানীতির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। সংস্থা জানায়, এ বছর বিশ্ব অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি হবে ৩.১ শতাংশ। ২০১৭ সালে তা বেড়ে হবে ৩.৪ শতাংশ।

উন্নত দেশগুলোর অর্থনৈতিক সম্ভাবনা এ বছর অন্ধকারচ্ছন্ন বলে মনে করে আইএমএফ। সংস্থা জানায়, এ বছর বিশ্বের সবচেয়ে বড় অর্থনৈতিক দেশ যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি কমবে। তবে জাপান ও ইউরোজোনের সম্ভাবনা বাড়বে। প্রবৃদ্ধি জোরালো করতে ধনী দেশগুলোর দুর্বলতার দিকে ইঙ্গিত করে আইএমএফের প্রধান অর্থনীতিবিদ মরিস অবসফেল্ড বলেন, সার্বিক হিসাবে বলা যায়, বিশ্ব অর্থনীতি একদিকে কাত হয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, ‘আমরা মনে করছি, উন্নত দেশগুলো শ্লথ প্রবৃদ্ধিতেই অপরিবর্তিত থাকবে। সে ক্ষেত্রে উদীয়মান ও উন্নয়নশীল দেশগুলোকে প্রবৃদ্ধি বাড়াতে হবে। তবে উদীয়মান দেশগুলোর মধ্যে চীনের অর্থনীতি এই মুহূর্তে একটি বড় ঝুঁকি বলে তিনি মনে করেন। এর ফলে আন্তর্জাতিক বাজারে নিত্যপণ্যের দাম পড়ে যাচ্ছে। এ ছাড়া ভূরাজনৈতিক উত্তেজনা ও মধ্যপ্রাচ্যের যুদ্ধও অর্থনীতির জন্য একটি হুমকির কারণ হয়ে উঠছে। ’

মরিস অবসফেল্ড বলেন, বিশ্ব অর্থনীতিতে যে বিষণ্নতাভাব বিরাজ করছে, তা দূর করার একমাত্র উপায় বিশ্ববাণিজ্য অর্থনৈতিক সংকটের আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনা। প্রতিবেদনে বলা হয়, এ বছর বিশ্ববাণিজ্য ০.৪ শতাংশ কমে হবে ২.৩ শতাংশ। তবে ২০১৭ সালে তা কিছুটা বেড়ে হবে ৩.৮ শতাংশ।

পূর্বাভাস অনুযায়ী, এ বছর উন্নত দেশগুলোর প্রবৃদ্ধি ০.২ শতাংশ কমে হবে ১.৬ শতাংশ। তবে উদীয়মান ও উন্নয়নশীল দেশগুলোর প্রবৃদ্ধি বেড়ে হবে ৪.২ শতাংশ। সংস্থা জানায়, এ বছর যুক্তরাষ্ট্রের প্রবৃদ্ধি আসবে ১.৬ শতাংশ। আগামী বছর তা কিছুটা বেড়ে হবে ১.৮ শতাংশ। জাপানের অর্থনীতি এ বছর ০.৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করবে এবং আগামী বছর তা হবে ০.৬ শতাংশ। এ ছাড়া চীনের অর্থনীতি এ বছর ৬.৬ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করবে। তবে আগামী বছর তা কিছুটা কমে হবে ৬.২ শতাংশ। এএফপি।


মন্তব্য