kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


উৎপাদনশীলতা দিবসের আলোচনায় কৃষিমন্ত্রী

সরকারের নজরদারিতে টিকে আছে পাটের স্বত্ব

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



সরকারের নজরদারিতে টিকে আছে পাটের স্বত্ব

জাতীয় উৎপাদনশীলতা দিবস উপলক্ষে এনপিও গতকাল সকালে এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার আয়োজন করে। ছবি : কালের কণ্ঠ

‘দেশের ঐতিহ্যবাহী সম্পদ জামদানির স্বত্ব নিয়ে টানাপড়েন চলছে। আমাদের এ বিষয়ে আরো আগেই সতর্ক হওয়া উচিত ছিল।

তবে সরকারের সতর্ক অবস্থান এবং সংশ্লিষ্টদের নজরদারিতে সোনালি আঁশ পাটের স্বত্ব ধরে রেখেছে। এ স্বত্ব হারালে গলায় দড়ি দেওয়া ছাড়া উপায় ছিল না। ’

গতকাল রবিবার জাতীয় উৎপাদনশীলতা দিবস উপলক্ষে রাজধানীর মতিঝিলের ফেডারেশন ভবনের সম্মেলন কক্ষে ‘টেকসই প্রবৃদ্ধির জন্য উৎপাদনশীলতা অপরিহার্য’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী এ মন্তব্য করেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সুষেণ চন্দ্র দাস। বিশেষ অতিথি ছিলেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মঈনউদ্দিন আবদুল্লাহ, এফবিসিসিআই সভাপতি আব্দুল মাতলুব আহমাদ প্রমুখ। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিআইএমের সিনিয়র ম্যানেজমেন্ট কাউন্সিলর এ এন এম শহিদুল্লাহ। স্বাগত বক্তব্য দেন ন্যাশনাল প্রোডাক্টিভিটি অর্গানাইজেশন (এনপিও) পরিচালক অজিত কুমার পাল। শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন প্রতিষ্ঠান এনপিও দেশের ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের সহযোগিতায় সেমিনারের আয়োজন করে।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘সংকটকালে চ্যালেঞ্জ নিয়ে পাটের আইপিও রক্ষায় সরকার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। আমরা জামদানির আইপিও হারিয়ে ফেলেছি। ’

উৎপাদনশীলতা বাড়াতে দক্ষ বেসরকারি খাত গড়ে তুলতে হবে উল্লেখ করে কৃষিমন্ত্রী আরো বলেন, ‘প্রকৃতপক্ষে সরকার শিল্প করতে চায় না। বেসরকারি খাতকে সহযোগিতা করতে চায়। কিন্তু বেসরকারি খাতে সংকট তৈরি হলে সরকার ঠুঁটো জগন্নাথ হয়ে বসে থাকতে পারে না। সরকারকে নেমে পড়তে হয়। তাই সরকার শিল্পায়ন এগিয়ে নিতে অতীতের যেকোনো সময় থেকে সতর্ক রয়েছে। ফলে উৎপাদনশীলতাও সবচেয়ে গুরুত্ব পাচ্ছে। ’

এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, ‘ব্যবসায়ীরা এখন অনেক সচেতন। তারা শিল্প-কারখানায় উৎপাদনশীলতা বাড়াতে আধুনিক উদ্যোগ নিচ্ছে। এখন সরকারের উচিত সহযোগিতার হাত আরো বাড়ানো। এতে উৎপাদন দ্বিগুণ হবে। ’

শোভাযাত্রা ও সভা

জাতীয় উৎপাদনশীলতা দিবস উপলক্ষে এনপিও গতকাল সকালে এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার আয়োজন করে। এটি রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন গেট থেকে শুরু হয়ে জাতীয় প্রেস ক্লাব ও পল্টন মোড় ঘুরে দৈনিক বাংলা হয়ে শিল্প মন্ত্রণালয়ে এসে শেষ হয়। শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সুষেণ চন্দ্র দাসের নেতৃত্বে শোভাযাত্রায় মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. দাবিরুল ইসলাম, বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প করপোরেশনের চেয়ারম্যান এ কে এম দেলোয়ার হোসেন, এনপিওর পরিচালক অজিত কুমার পালসহ শিল্প মন্ত্রণালয় এবং এর আওতাধীন বিভিন্ন সেক্টর-করপোরেশন ও সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, শিল্প-কারখানার মালিক, শ্রমিক ও কর্মচারীরা অংশগ্রহণ করেন।

ফরিদপুর : জাতীয় উৎপাদনশীলতা দিবস উপলক্ষে গতকাল সকালে ফরিদপুরে শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। ফরিদপুর জেলা প্রশাসনের আয়োজনে ও চেম্বারের সহযোগিতায় এ কর্মসূচি উদ্যাপিত হয়। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়া।

ঝালকাঠি : ঝালকাঠিতেও সকালে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শহরে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। এতে সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি,এনজিও প্রতিনিধিসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ অংশ নেয়। আলোচনা সভায় ঝালকাঠির জেলা প্রশাসক মো. মিজানুল হক চৌধুরী প্রধান অতিথি ছিলেন।

গাইবান্ধা : গাইবান্ধা চেম্বারের উদ্যোগে শহরে শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। স্বাধীনতা চত্বর থেকে শোভাযাত্রাটি বের হয়ে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে চেম্বার মিলনায়তনে এক সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. আব্দুস সামাদ।  

নীলফামারী : সকালে জেলা প্রশাসক কার্যালয় চত্বর থেকে একটি শোভাযাত্রা শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে নীলফামারী চেম্বার ভবনে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে এক আলোচনা সভায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এ জে এম এরশাদ আহসান হাবিবের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন নীলফামারী শিল্প ও বণিক সমিতির সভাপতি এস এম সফিকুল আলম।


মন্তব্য