kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ডিজিটাল মার্কেটিং সম্মেলনে পলক

ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন আর স্বপ্ন নয়

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন আর কোনো স্বপ্ন নয়। এটি বাস্তবে রূপ নিয়েছে।

এই ডিজিটাল মার্কেটিং সম্মেলন তারই প্রমাণ। দেশ তথ্যপ্রযুক্তি খাতে এগোনোর ফলেই এ রকম একটি আয়োজনের প্রয়োজন পড়েছে।

গতকাল রাজধানীর কৃষিবিদ মিলনায়তনে দ্য বেস্ট অব ডিজিটাল মার্কেটিং সম্মেলনে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, সরকার ডিজিটাল অগ্রযাত্রার জন্য তিনটি বিষয় নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। অ্যাকসেসেবিলিটি, অ্যাভেইলেবিলিটি এবং অ্যাফোর্ডেবিলিটি। ফলে সামনে এ খাতে আরো অগ্রগতি হবে, নতুন নতুন প্রতিভাবান ছেলেমেয়েরা যুক্ত হবে।

দ্য বেস্ট অব ডিজিটাল মার্কেটিং—ডিজিটাল মার্কেটিং বিষয়ে আয়োজিত একটি সম্মেলন, যেখানে সোশ্যাল মিডিয়া, মোবাইল মার্কেটিং, কনটেন্ট মার্কেটিং, বিগ ডাটা এবং রিয়েল টাইম মার্কেটিংসহ ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের প্রায় সব দিক সম্বন্ধে জানা যায়। কনফারেন্সটিতে দেশের বিভিন্ন খাতের, বিশেষ করে মার্কেটিং খাতের কয়েক শ পেশাজীবী অংশ নেন।

বিটপি লিও বার্নেটের ডিজিটাল কমিউনিকেশনস ডিরেক্টর নওশের রহমান বলেন, ‘আমরা আন্তর্জাতিক মানের একটি কনফারেন্স নিজেদের জন্যই আয়োজন করতে চাচ্ছিলাম। কিন্তু পরে ভেবে দেখলাম, ইন্ডাস্ট্রির সবাইকে নিয়ে করলে সবারই উপকার হবে। ডিজিটাল বাংলাদেশ আন্দোলন আরো এক ধাপ সামনের দিকে এগিয়ে যাবে এ আয়োজনের কারণে। এ কারণেই এ রকম একটি উদ্যোগ। ’

সম্প্রতি বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের পুরস্কারজয়ী ডিজিটাল মার্কেটিং ক্যাম্পেইনের কেস স্টাডির ওপর ভিত্তি করে সম্মেলনটি আয়োজন করা হয়। যেখানে কথা বলেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন বক্তা নর্ম্যান ওয়্যাগনার, ম্যানেজিং ডিরেক্টর, মিডিয়াকম বিয়ন্ড অ্যাডভার্টাইজিং, জার্মানি, হান্ডো সিনিসালু, সিইও, বেস্ট মার্কেটিং ইন্টারন্যাশনাল এস্তোনিয়া, রেফায়েত আহমেদ, লিড স্পেশালিস্ট, ব্র্যান্ড কমিউনিকেশনস, গ্রামীণফোন।

আয়োজনের স্পন্সর ডি-মানির অন্যতম উদ্যোক্তা সোনিয়া বশির কবির বলেন, ‘আমরা বরাবরই নতুন কিছুর সঙ্গে যুক্ত থাকতে আগ্রহী। ডিজিটাল মার্কেটিং সেক্টরে বাংলাদেশের তরুণদের অমিত সম্ভাবনা আছে। এই কনফারেন্স থেকে পুরো ইন্ডাস্ট্রি লাভবান হবে বলে আমার বিশ্বাস। ’

সম্মেলনে প্রায় ২০টি কেস স্টাডি নিয়ে গভীরভাবে আলোচনা করা হয়। সঙ্গে ছিল ক্রিয়েটিভ কাজের উদাহরণ এবং ক্লায়েন্ট ও তাদের এজেন্সির সাক্ষাৎকার।


মন্তব্য