kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


নিরাপদ গার্মেন্ট ভবন নির্মাণে ৬ শতাংশ সুদে ঋণ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



তৈরি পোশাক কারখানার কর্মপরিবেশ নিরাপদ করতে ভবন নির্মাণ ও সংস্কারে পুনরর্থায়ন সুবিধার আওতায় ঋণ দিতে আগ্রহী ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে আগামী ১৯ অক্টোবরের মধ্যে আবেদন করতে বলেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ভোক্তা পর্যায়ে এই তহবিল থেকে নেওয়া ঋণের সর্বোচ্চ সুদ হার হবে ৬ শতাংশ।

গতকাল সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংকের এসএমই অ্যান্ড স্পেশাল প্রোগ্রামস বিভাগ থেকে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের নির্বাহীদের কাছে পাঠানো এক নির্দেশনায় এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ওই নির্দেশনায় জানানো হয়েছে ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর জেলা এবং চট্টগ্রাম সিটির তৈরি পোশাক কারখানার ভবন নিরাপদ করতে ‘আরবান বিল্ডিং সেফটি প্রজেক্ট’ এর স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদি অর্থায়ন করা হবে। এতে সহায়তা করছে জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (জাইকা)।

কারিগরি সহায়তা উপাদানসহ প্রকল্পের তহবিলের মোট আকার ৪২৪ কোটি জাপানি ইয়েন। আর ঋণ তহবিলের আকার ৪১২ কোটি ৯০ লাখ জাপানি ইয়েন। প্রতি ইয়েন ৭২ পয়সা ধরলে বাংলাদেশি টাকায় এর পরিমাণ দাঁড়ায় ২৯৭ কোটি ২৮ লাখ টাকা।

পোশাক কারখানার ভবন পুনর্নির্মাণ, স্থানান্তর, রেট্রোফিটিং, চলতি মূলধন এবং অগ্নিনিরাপত্তার জন্য তহবিল থেকে ঋণসুবিধা দেওয়া হবে। বিজিএমইএ, বিকেএমইএ, বিজিএপিএমইএ-এর সদস্য এমন তৈরি পোশাক খাতের ভবন মালিক অথবা কারখানা মালিকরা এ ঋণসুবিধা পাবেন। ঋণের সর্বোচ্চ সুদ হার হবে ৬ শতাংশ।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনায় জানানো হয়েছে, বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে লাইসেন্স নিয়ে কমপক্ষে তিন বছর কার্যক্রম চালানো ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান আবেদন করার যোগ্য হবে। তবে কোনো ব্যাংকের খেলাপি ঋণ ১০ শতাংশের বেশি হলে ওই ব্যাংক আবেদনের যোগ্য হবে না।

ওই নির্দেশনায় আরো জানানো হয়েছে, পুনরর্থায়ন তহবিল থেকে সাবলোন হিসেবে একজন গ্রাহক সর্বোচ্চ ৩৫ কোটি টাকা ঋণসুবিধা পাবেন। রেট্রোফিটিং এবং অগ্নিনিরাপত্তার বিপরীতে নেওয়া ঋণ পরিশোধের মেয়াদ দুই বছর গ্রেস পিরিয়ডসহ সর্বোচ্চ ১০ বছর। আর ভবন পুনর্নির্মাণ এবং স্থানান্তরের ক্ষেত্রে তিন বছর গ্রেস পিরিয়ডসহ ঋণ পরিশোধের সময় ১৫ বছর।

নির্দেশনায় আরো বলা হয়েছে, ভূমিকম্প প্রতিরোধক ভবন নির্মাণকালীন কাজ বন্ধ থাকা কারখানাগুলো পুনরর্থায়ন তহবিল থেকে চলতি মূলধনের জন্য ঋণ সহায়তা পাবে। তবে এ ঋণ সহায়তা সাবলোনের ১০ শতাংশের বেশি হতে পারবে না।


মন্তব্য