kalerkantho


বাংলাদেশেও বিমানে গ্যালাক্সি নোট-৭ ব্যবহারে সতর্কতা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



বাংলাদেশেও বিমানে গ্যালাক্সি নোট-৭ ব্যবহারে সতর্কতা

বাংলাদেশে চলাচলরত বিভিন্ন উড়োজাহাজ কম্পানিকে এয়ারক্রাফটের ভেতরে স্যামসাং নোট-৭ এবং ইলেকট্রনিক ডিভাইস ব্যবহারে সতর্কতা জারি করেছে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। বাংলাদেশের বিমানবন্দর ব্যবহারকারী ২৯টি এয়ারলাইনসকে গত ২১ সেপ্টেম্বর এ-সংক্রান্ত একটি চিঠি দিয়েছে তারা। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে স্যামসাং নোট-৭-এর ব্যাটারিতে বিস্ফোরণের ঘটনায় এই সতর্কতা জারি করা হয়।

বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের পরিচালক (ফ্লাইট সেফটি) মোহাম্মদ জিয়াউল কবির স্বাক্ষরিত এই চিঠিতে বলা হয়েছে, প্লেনে ওঠার পর স্যামসাং নোট-৭ সচল রাখা যাবে না। চার্জেও দেওয়া যাবে না। কোনো লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি কিংবা ডিভাইসও ব্যাগে রাখা যাবে না। এসব ডিভাইস যাত্রীকে অবশ্যই হাতে রাখতে হবে। এ ব্যাপারে স্যামসাং বাংলাদেশের পক্ষ থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ‘বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ যে বিষয়ে সতর্কতা জারি করেছে এ ব্যাপারে আমরা অবগত রয়েছি। ভোক্তা নিরাপত্তা ও তাদের মানসিক স্বস্তির বিষয়টি আমাদের অগ্রাধিকারে রয়েছে। গ্যালাক্সি নোট-৭ এখনো বাংলাদেশে ছাড়া হয়নি। আমরা এ পণ্য বিক্রিতে দেরি করছি এর নিরাপত্তা নিয়ে যে উদ্বেগ রয়েছে তা দূর করার জন্য।

এর আগে স্যামসাংয়ের গ্যালাক্সি নোট-৭-এর বিস্ফোরণের ঘটনায় এর ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা দেয় বিভিন্ন দেশের বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ ও বিমান সংস্থা। যুক্তরাষ্ট্রের বিমান কর্তৃপক্ষ বিমানের মধ্যে নোট-৭ চালু করা কিংবা চার্জ দেওয়ার বিষয়ে যাত্রীদের সতর্ক করে দেয়। ফেডারেল এভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফএএ) স্যামসাংয়ের এই ফোনটি লাগেজের ভেতর নেওয়ার বিষয়েও সতর্ক করেছে।

সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনস, কানতাস এবং ভারজিন অস্ট্রেলিয়াও তাদের যাত্রীদের বলে দিয়েছে বিমানে নোট-৭ ব্যবহার বা চার্জ দেওয়া যাবে না। বিমান সংস্থা আমেরিকান (এএএল) জানিয়েছে, তারা তাদের যাত্রীদের বলেছে বিমানে চলাকালীন যেন নোট-৭ বন্ধ করে রাখে। তবে স্যামসাংয়ের দেশ দক্ষিণ কোরিয়ার নিজস্ব বিমান সংস্থা কোরিয়ান এয়ারে গ্যালাক্সি নোট-৭ ব্যবহারে কোনো বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়নি।


মন্তব্য