kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মুকেশ আম্বানি টানা ৯ বছর ভারতের শীর্ষ ধনী

বাণিজ্য ডেস্ক   

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



মুকেশ আম্বানি টানা ৯ বছর ভারতের শীর্ষ ধনী

টানা নবম বছর ভারতের শীর্ষ ধনীর খ্যাতি পেলেন বিশিষ্ট শিল্পপতি মুকেশ আম্বানি। তাঁর সম্পদের পরিমাণ ২২.৭ বিলিয়ন ডলার।

ভারতের শীর্ষ ১০০ ধনী নিয়ে বার্ষিক তালিকা প্রকাশ করেছে ফোর্বস ম্যাগাজিন। এতে দ্বিতীয় শীর্ষ ধনীর খ্যাতি পেলেন সান ফার্মার দিলিপ সাংগবি। তাঁর সম্পদের পরিমাণ ১৬.৯ বিলিয়ন ডলার।

তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে উঠে এসেছে হিন্দুজা পরিবার। তাদের সম্পদের পরিমাণ ১৫.২ বিলিয়ন ডলার। অন্যদিকে উইপ্রোর আজিম প্রেমজি এক ধাপ নিচে নেমে চতুর্থ স্থানে অবস্থান করছেন। তাঁর সম্পদের পরিমাণ ১৫ বিলিয়ন ডলার। তবে বিস্ময়কর উত্থান ঘটেছে যোগব্যায়াম গুরু রামদেবের ঘনিষ্ঠ সহকারী পতঞ্জলী আর্য়ুবেদের আচারিয়া বালকৃষ্ণের। এ বছর ২.৫ বিলিয়ন ডলার সম্পদের মালিকানা নিয়ে ৪৮তম অবস্থানে উঠে এসেছেন তিনি।

ফোর্বস ম্যাগাজিন জানায়, ভারতের ১০০ শীর্ষ ধনীর মোট সম্পদের পরিমাণ বেড়ে হয়েছে ৩৮১ বিলিয়ন ডলার (প্রায় ২৫.৫ লাখ কোটি রুপি)। এ সম্পদ ২০১৫ সালের ৩৪৫ বিলিয়ন থেকে বেড়েছে ১০ শতাংশ। ধনীদের বেশির ভাগই শেয়ার বাজারে মূল্যবৃদ্ধিতে লাভবান হয়েছেন।

মুকেশ আম্বানির সম্পদ গত বছর ছিল ১৮.৯ বিলিয়ন ডলার। এ বছর তা বেড়ে হয়েছে ২২.৭ বিলিয়ন ডলার। বিশেষ করে তাঁর কম্পানি রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের শেয়ারমূল্য বেড়েছে ২১ শতাংশ। তাঁর কম্পানি এ বছর ভারতে ফোর-জি সেবা চালু করেছে। মুকেশ আম্বানি বৈশ্বিক ধনীর তালিকায় ৩৬তম অবস্থানে উঠে এসেছেন। তাঁর ছোট ভাই অনিল আম্বানি ৩.৪ বিলিয়ন ডলার সম্পদের মালিকানা নিয়ে ভারতে ৩২তম ধনী হয়েছেন। যদিও গত বছর তাঁর অবস্থান ছিল ২৯তম।

ফোর্বস ইন্ডিয়ার সম্পাদক সৌরভ মজুমদার বলেন, এবারের তালিকায় দেখা যাচ্ছে দেশের ১০০ ধনীর সার্বিক সম্পদের পরিমাণ বেড়েছে বাজার ঊর্ধ্বমুখিতার কারণে। যদিও তালিকায় শীর্ষ ধনীদের অবস্থান অনেকটা অপরিবর্তিতই আছে। বর্তমানে ১০০ ধনীর যে সম্পদ রয়েছে তার ৫২ শতাংশ শীর্ষ ২০ জনের।

এবারের তালিকায় ছয়জন নতুন ধনী যোগ হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে রয়েছেন সিরিয়াল উদ্যোক্তা দুই ভাই ভভিন এবং দিভাঙ্ক তুরাখিয়া। তাঁদের সম্পদের পরিমাণ ১.৩ বিলিয়ন ডলার।

এ বছরের ১০০ ধনীর অন্তর্ভুক্ত হওয়ার ক্ষেত্রে ন্যূনতম সম্পদ ধরা হয় ১.২৫ বিলিয়ন ডলার। যা গত বছর হিসাব করা হয়েছিল ১.১ বিলিয়ন ডলার। এতে গত বছরের তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন ১৩ জন। ফোর্বস ম্যাগাজিন।


মন্তব্য