kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বিশ্ব প্রবৃদ্ধি কমে হবে ২.৯ শতাংশ : ওইসিডি

বাণিজ্য ডেস্ক   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



বিশ্ব প্রবৃদ্ধি কমে হবে ২.৯ শতাংশ : ওইসিডি

বিশ্ব অর্থনীতি এ বছর হোঁচট খাবে, এমনকি আগামী বছরও ঘুরবে না প্রবৃদ্ধির চাকা। বিশ্ব অর্থনীতি নিয়ে এমন হতাশা প্রকাশ করেছে অর্গানাইজেশন ফর ইকোনমিক কো-অপারেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (ওইসিডি)।

সংস্থার মতে, বিশ্ব অর্থনীতিতে সংকট শুরু হওয়ার পর থেকেই প্রবৃদ্ধি শক্তিশালী হওয়ার মতো কোনো সফল প্রচেষ্টা প্রতিভাত হয়নি।

গতকাল বুধবার বিশ্ব অর্থনীতি নিয়ে এক পূর্বাভাসে সংস্থা সতর্ক করে দিয়ে জানায়, বিশ্ব অর্থনীতিতে যন্ত্রের মতো কাজ করে বিশ্ববাণিজ্য। কিন্তু বাণিজ্যিক প্রবৃদ্ধিও পিছিয়ে পড়েছে এ বছর, যা অতীতের চেয়ে খারাপ অবস্থায়। সংস্থার মতে, বাণিজ্যকে ঘিরে বিশ্বায়নের যে সম্ভাবনা তৈরি হয়েছিল, তা মনে হয় থেমে গেছে।

ওইসিডি জানায়, এ বছর বিশ্ব অর্থনীতিতে প্রবৃদ্ধি আসবে মাত্র ২.৯ শতাংশ। যা সংস্থার জুনে প্রকাশিত ৩.০ শতাংশ পূর্বাভাসের চেয়ে কম। এমনকি ২০০৮-০৯ বছরে বিশ্ব অর্থনৈতিক সংকট শুরু হওয়ার পর থেকে সর্বনিম্ন। তবে আগামী বছর বিশ্ব প্রবৃদ্ধি কিছুটা বেড়ে হবে ৩.২ শতাংশ। অন্যদিকে বিশ্বের সবচেয়ে বড় অর্থনৈতিক দেশ যুক্তরাষ্ট্রের প্রবৃদ্ধি এ বছর কমে হবে ১.৪ শতাংশ এবং ইউরোজোনের প্রবৃদ্ধি আসবে ১.৫ শতাংশ।

সংস্থা জানায়, চীনকে ঘিরে অনেক বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান তাদের উৎপাদন ও সরবরাহব্যবস্থা গড়ে তুলেছিল বিশ্বব্যাপী। এসব কম্পানির প্রতিটি পর্যায়ে অর্থনৈতিক মূল্য যোগ হয়। কিন্তু চীনের অর্থনীতি শ্লথ হয়ে আসায় এসব কম্পানি এখন বিপাকে পড়েছে এবং তারা নিজ দেশে উৎপাদনব্যবস্থা নিয়ে আসছে। এ ছাড়া বাণিজ্য উদারীকরণ ও মন্দার ফলে পণ্য উৎপাদনকারী অনেক দেশের বাণিজ্য কমেছে। এতে কমে যাওয়া উৎপাদনব্যবস্থা আরো দুর্বল হয়ে পড়বে বলে মনে করে সংস্থা।

আশঙ্কা প্রকাশ করে ওইসিডির প্রধান অর্থনীতিবিদ ক্যাথেরিন ম্যান বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, ‘যদি আমরা বাণিজ্যের ক্ষেত্রে ১৯৯০ থেকে ২০০০ সময়কার প্রবৃদ্ধিতে ফিরতে পারি তবে আমরা অর্থনৈতিক সংকটের আগে যে জিডিপি প্রবৃদ্ধি ছিল তাতে ফিরতে পারব। ’ তিনি বলেন, মূলত অর্থনৈতিক সংকটের পর থেকেই বিশ্ব উৎপাদনশীলতা অর্ধেকের মতো কমে গেছে, যা সব শ্রেণির নাগরিকের জন্য হতাশার কারণ। রয়টার্স।


মন্তব্য