kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


স্যামসাংয়ের শেয়ার বিক্রি চার কম্পানির কাছে

বাণিজ্য ডেস্ক   

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



স্যামসাংয়ের শেয়ার বিক্রি চার কম্পানির কাছে

মূল ব্যবসায় বিনিয়োগ বাড়াতে চায় স্যামসাং। আর সেই লক্ষ্যেই চার কম্পানির কাছে কম্পানির বেশ কিছু শেয়ার বিক্রির ঘোষণা দিয়েছে টেকবিশ্বের সবচেয়ে বড় এ কম্পানি।

এক বিবৃতিতে স্যামসাং জানায়, কম্পানির প্রায় অর্ধেক শেয়ার বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে এএসএমএল হোল্ডিং এনভি নামের প্রতিষ্ঠানের কাছে। এ ছাড়া ৪.২ শতাংশ শেয়ার সিগেটের কাছে, ০.৭ শতাংশ বিক্রি করা হয়েছে শার্প করপোরেশনের কাছে, বাকি ৪.৫ শতাংশ শেয়ার পেয়েছে র‌্যামবাস ইনকরপোরেশন।

মূলত স্যামসাং নোট ৭ বিপর্যয়ের পর বেশ খারাপ সময় পার করছে দক্ষিণ কোরীয় এ কম্পানি। ওই ঘটনার পর হঠাৎ করে শেয়ারবাজারে দরপতন ঘটতে শুরু করে তাদের শেয়ারের। ওই ঘটনায় কম্পানির শেয়ারের দর পড়ে ৭ শতাংশ এবং বাজার থেকে ১৪ বিলিয়ন ডলার হারিয়ে যায়। ঠিক এমন পরিস্থিতিতে স্যামসাং তাদের মূল প্রতিষ্ঠানের মূলধন বাড়াতে বিক্রি করে দিল বেশ কিছু শেয়ার। শেয়ারগুলো কবে নাগাদ বিক্রি করা হয়েছে তা না জানালেও বিক্রির বিষয়টি রয়টার্সকে নিশ্চিত করেছেন স্যামসাংয়ের একজন মুখপাত্র।

ওই মুখপাত্র জানিয়েছেন, বিক্রীত শেয়ারের বিপরীতে স্যামসাংয়ের প্রায় এক ট্রিলিয়ন ডলারের অধিক অর্থ অর্জিত হবে। মোট চারটি প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রি করা হয়েছে শেয়ারগুলো। এদিকে রয়টার্স একটি টার্ম শিটের বরাত দিয়ে জানিয়েছে, এএসএমএল যে শেয়ার কিনেছে তার অর্থমূল্য ৬৭৫.৯৯ মিলিয়ন ডলার। বাকি তিন প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রীত শেয়ারের যৌথ অর্থমূল্য হচ্ছে ৪৫৬.৪ মিলিয়ন ডলার। আর এই হিসাব করা হয়েছে গত শুক্রবার পর্যন্ত স্যামসাংয়ের শেয়ার লেনদেনের চলমান মূল্য বিবেচনায় নিয়ে।

গ্যালাক্সি সিরিজের নোট ৭-এর বিস্ফোরণ বিপর্যয়ে দিশাহারা হয়ে পড়েছে স্যামসাং। তারা বাজার থেকে বিপর্যস্ত স্মার্টফোনটি সরিয়ে নেওয়ার ঘোষণা দিয়েও পরিস্থিতি সামাল দিতে পারছে না। সংবাদমাধ্যম বলছে, স্যামসাং ঠিক সেই মুহূর্তে এক মাস আগে ছাড়া স্মার্টফোন নিয়ে বেসামাল পরিস্থিতিতে পড়ল, যখন তার বড় প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যাপল নতুন স্মার্টফোন বাজারে ছাড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

স্যামসাং জানায়, তারা কিছু স্মার্টফোনে ব্যাটারি ত্রুটির বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছে। সে কারণে যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়াসহ ১০টি দেশে নোট ৭ বিক্রি বন্ধ করে দিয়েছে। এ ছাড়া বাজারে ছাড়ার পর গত এক মাসের মধ্যে যে ২৫ লাখ নোট ৭ বিক্রি হয়েছে সেগুলো নতুন কোনো স্মার্টফোনের সঙ্গে বিনিময়ও করবে তারা। এমনকি গ্রাহক চাইলে তারা অর্থ ফেরতও দেবে। যদিও এরই মধ্যে ‘ঝামেলার মাসুল’ হিসেবে প্রত্যেক ব্যবহারকারীকে ২৫ ডলার করে দিচ্ছে স্যামসাং। রয়টার্স।


মন্তব্য