kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


উচ্চশিক্ষার মানোন্নয়ন

৭৮০ কোটি টাকা ঋণ দেবে বিশ্বব্যাংক

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের আওতাধীন যেসব কলেজ রয়েছে, সেসব কলেজের শিক্ষার মানোন্নয়ন ও প্রশাসনিক ব্যবস্থাপনা আধুনিকায়নে ১০ কোটি ডলার ঋণ দেবে বহুজাতিক সংস্থা বিশ্বব্যাংক। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ ৭৮০ কোটি টাকা।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর শেরে বাংলানগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে দুই পক্ষের মধ্যে এ-সংক্রান্ত একটি চুক্তি সই হয়েছে। চুক্তিতে বাংলাদেশের পক্ষে সই করেন অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) অতিরিক্ত সচিব কাজী শফিকুল আযম, আর বিশ্বব্যাংকের পক্ষে সংস্থাটির ভারপ্রাপ্ত আবাসিক প্রধান জাহিদ হোসেন। এ সময় ইআরডি ও  বিশ্বব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। বাংলাদেশের জন্য এই প্রথমবারের মতো ঋণের শর্ত কিছুটা কঠিন করল বিশ্বব্যাংক। গতকাল চুক্তি সই অনুষ্ঠানে জানানো হয়, নির্ধারিত সময়ে ঋণের অর্থ খরচ করতে না পারলে অব্যবহৃত ঋণের ওপর ০.৫০ শতাংশ হারে কমিটমেন্ট বা প্যানাল্টি ফি দিতে হবে বাংলাদেশকে। যা আগে কখনো দিতে হয়নি। অর্থাৎ ১০০ টাকা অব্যবহৃত থাকলে তার জন্য ৫০ পয়সা জরিমানা গুনতে হবে সরকারকে।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ‘কলেজ এডুকেশন ডেভেলপমেন্ট’ প্রকল্পের আওতায় বিশ্বব্যাংকের এই ঋণ খরচ হবে। প্রকল্পটি গত জুনে এক হাজার ৪০ কোটি টাকা ব্যয়ে একনেক সভায় অনুমোদন পায়। বিশ্বব্যাংকের ৭৮০ কোটি টাকা ঋণ বাদে বাকি ২৬০ কোটি টাকা রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে জোগান দেওয়া হবে। অনুষ্ঠানে ইআরডির অতিরিক্ত সচিব কাজী শফিকুল আযম বলেন, সরকার এখন শিক্ষা খাতের গুণগত মান নিশ্চিত করার ওপর জোর দিচ্ছে। একই সঙ্গে চাকরির বাজারের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে শিক্ষার্থীদের দক্ষ করে তোলার ওপর গুরুত্ব দিচ্ছে।

বিশ্বব্যাংকের ভারপ্রাপ্ত আবাসিক প্রধান জাহিদ হোসেন বলেন, বিশ্বব্যাংকও এখন বাংলাদেশের শিক্ষা খাতের ওপর গুরুত্ব দিচ্ছে। একসময় প্রাথমিক ও মাধ্যমিকে সহায়তা ছিল। এখন সেটি উচ্চশিক্ষা, কারিগরি শিক্ষায় দেওয়া হচ্ছে।


মন্তব্য