kalerkantho


সূচকের উত্থান পুঁজিবাজারে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



ঈদের ছুটিতে লেনদেন বন্ধ হওয়ার আগে পুঁজিবাজারের পালে হাওয়া লেগেছে। চলতি সপ্তাহের টানা চার দিনই সূচকের উত্থান হয়েছে। বেড়েছে লেনদেনও। আজ বৃহস্পতিবার সপ্তাহের স্বাভাবিক লেনদেন শেষে পুঁজিবাজারে ঈদের ছুটি শুরু হচ্ছে।

গতকাল বুধবার ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৪৯৮ কোটি ৬০ লাখ টাকা। আর মূল্যসূচক বেড়েছে ২৬ পয়েন্ট। লেনদেন বেড়েছে ২২ কোটি ৭৫ লাখ টাকা। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৪৭৫ কোটি ৮৫ লাখ টাকা। আর মূল্যসূচক বেড়েছিল ৪ পয়েন্ট।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, লেনদেন শুরুর পর থেকেই ঊর্ধ্বমুখী ধারায় লেনদেন চলতে থাকে, যা দিনশেষেও অব্যাহত ছিল। দিনশেষে সূচক দাঁড়িয়েছে চার হাজার ৫৯৪ পয়েন্ট।

ডিএস-৩০ ইনডেক্স ৮ পয়েন্ট বেড়ে এক হাজার ৭৬২ পয়েন্ট ও ডিএসইএস শরিয়াহ ইনডেক্স ৪ পয়েন্ট বেড়ে এক হাজার ১১১ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। লেনদেন হওয়া কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১৫৪টির, কমেছে ১২০টির ও দাম অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৬ কম্পানির শেয়ার দাম।

লেনদেনের ভিত্তিতে শীর্ষে রয়েছে শাহজিবাজার পাওয়ার, লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট, বিএমআরএম স্টিল, এমজেএল বাংলাদেশ, ফার কেমিক্যাল, ডরিন পাওয়ার, ইউনাইটেড পাওয়ার, আইএফআইসি ব্যাংক, মিথুন নিটিং ও সিঙ্গার বাংলাদেশ।

এদিকে সিএসই লেনদেন হয়েছে ২৬ কোটি ৯৪ লাখ টাকা। আর মূল্যসূচক বেড়েছে ৫১ পয়েন্ট। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ২২ কোটি ৭৬ লাখ টাকা। আর মূল্যসূচক বেড়েছিল ১৩ পয়েন্ট। লেনদেন হওয়া ২৩২ কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১২৮টির, কমেছে ৬৯টির ও দাম অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৫ কম্পানির শেয়ার দাম।

একমি ল্যাবের সম্পদ বেড়েছে : বছর শেষে সম্পদ পুনর্মূল্যায়নে একমি ল্যাবরেটরিজের সম্পদ বেড়েছে ৪৩ কোটি পাঁচ লাখ ৮০ হাজার টাকা। গতকাল বুধবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ ওয়েবসাইটে এ তথ্য জানানো হয়। ২০১৬ সালের ৩০ জুন শেষে কম্পানির সম্পদ দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৭২৪ কোটি এক লাখ টাকা, যা আগে ছিল এক হাজার ৬৮০ কোটি ৯৫ লাখ টাকা। এই সম্পদ পুনর্মূল্যায়নে আসবাব, বই ও সাময়িকী ধরা হয়নি। চলতি বছর ওষুধ ও রসায়ন খাতে তালিকাভুক্ত হয় কম্পানিটি। কম্পানিটির অনুমোদিত মূলধন ৫০০ কোটি টাকা।


মন্তব্য