kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মূল্যস্ফীতি কমল আগস্টে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



আগস্টে দেশে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম কিছুটা কমেছে। তবে খাদ্যবহির্ভূত পণ্যের দাম বেড়েছে।

শহরেও গড় মূল্যস্ফীতির হার বাড়তির দিকে। গতকাল মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে মূল্যস্ফীতির হালনাগাদ তথ্য প্রকাশ করেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। রাজধানীর শেরে বাংলানগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, আগস্টে গড় মূল্যস্ফীতির হার কমে ৫.৩৭ শতাংশে নেমে এসেছে। আগের মাস অর্থাৎ জুলাইয়ে এই হার ছিল ৫.৪০ শতাংশ। এ সময় খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতির হার কমে ৪.৩০ শতাংশ হয়েছে, আগের মাসে যা ছিল ৪.৩৫ শতাংশে। তবে খাদ্যবহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতির হার বেড়ে ৭ শতাংশে উন্নীত হয়েছে, জুলাইয়ে যা ছিল ৬.৯৮ শতাংশে।

খাদ্যবহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতির হার বেড়ে যাওয়ার কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, এ সময়ে বাড়িভাড়া কিছুটা বেড়েছে। এর সঙ্গে গৃহস্থালি, আসবাবপত্র, জামাকাপড়, শিক্ষা উপকরণ, পরিবহনসহ অন্যান্য সেবা খাতের ব্যয় কিছুটা বেড়েছে। যার প্রভাব পড়েছে খাদ্যবহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতির ওপর। সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে পরিকল্পনাসচিব তারিক উল ইসলাম, পরিসংখ্যান ব্যুরোর ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক বাইতুল আমিন ভূঁইয়াসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গ্রামে সার্বিক মূল্যস্ফীতির হার কমতির দিকে। গ্রামে গড় মূল্যস্ফীতির হার কমে ৪.৪১ শতাংশে নেমে এসেছে। আগের মাসে যা ছিল ৪.৫৪ শতাংশে। এ ছাড়া গ্রামে খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতির হার জুলাইয়ে যেখানে ছিল ৩.৫৯ শতাংশ, আগস্টে সেটি কমে ৩.৪০ শতাংশ হয়েছে। আর খাদ্যবহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতির হার বেড়ে ৬.২৮ শতাংশে উন্নীত হয়েছে, আগের মাসে যা ছিল ৬.২৬ শতাংশে।

অবশ্য শহরাঞ্চলে আগস্টে গড় মূল্যস্ফীতির হার বেড়েছে। বিবিএসের তথ্য বলছে, আগস্টে গড় মূল্যস্ফীতির হার বেড়ে ৭.১৫ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। জুলাইয়ে এই হার ছিল ৭ শতাংশ। খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতির হারও বেড়ে ৬.৩৯ শতাংশে পৌঁছেছে, আগের মাসে যা ছিল ৬.১১ শতাংশ। এ ছাড়া খাদ্যবহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতির হার বেড়ে ৭.৯৯ শতাংশ হয়েছে, আগের মাসে যেটি ছিল ৭.৯৮ শতাংশ। অবশ্য গতকালের সংবাদ সম্মেলনে পরিকল্পনামন্ত্রী আরো বলেন, ‘সার্বিকভাবে মূল্যস্ফীতি আমাদের প্রত্যাশা ও সহনীয় অবস্থায় আছে। মূল্যস্ফীতি সহনীয় রাখতে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া আছে। ’


মন্তব্য