kalerkantho


সুস্বাদু কাবাবের পসরা নিয়ে বসুন্ধরায় ‘বাবা রাফি’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



সুস্বাদু কাবাবের পসরা নিয়ে বসুন্ধরায় ‘বাবা রাফি’

রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় গতকাল ‘বাবা রাফির কনটেইনার কাবাব’ আউটলেটের উদ্বোধন করেন কালের কণ্ঠ সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন। ছবি : কালের কণ্ঠ

বেসরকারি নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বসুন্ধরা ক্যাম্পাসের প্রধান ফটকের সামনে সুস্বাদু কাবাবসহ কয়েক ধরনের ফাস্টফুড ও কোমল পানীয়র পসরা সাজিয়ে বসেছে ‘বাবা রাফি’। ইন্দোনেশিয়াভিত্তিক বিশ্বের সর্ববৃহৎ এই কাবাব চেইনের ঢাকায় এটাই প্রথম আউটলেট। দেশের শীর্ষ ব্যবসায়ী গোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান বসুন্ধরা অ্যামিউজমেন্ট পার্কের সহযোগিতায় ইন্দোনেশিয়ার বিখ্যাত এই কাবাব চেইনটির ঢাকায় এ রকম আরো ৯টি আউটলেট খোলার পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানা গেছে।

গতকাল সোমবার দুপুর ২টার দিকে রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের সামনে স্থাপিত ‘বাবা রাফির কনটেইনার কাবাব’ নামের এই আউটলেটের উদ্বোধন করেন কালের কণ্ঠ সম্পাদক ও জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলন।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যানের ব্যক্তিগত সহকারী মো. ফয়েজুর রহমান, নিউ বিজনেসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার হানিফ হাকিম, বাবা রাফির প্রকল্প সমন্বয়কারী সাকিরুজ্জামান প্রমুখ।

উপস্থিত ক্রেতা ও ভোক্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়টির শিক্ষার্থীদের মধ্যে বাবা রাফি সম্পর্কে আগ্রহ ছিল অনেক বেশি। তাই তারা মধ্যাহ্নভোজের বিরতির সময় দলবেঁধে চলে আসে বাবা রাফিতে। আর এ কারণে প্রথম দিনই ভিড় সামলাতে হিমশিম খেতে হয়েছে বাবা রাফির বিক্রয়কর্মীদের। একসঙ্গে সাতজন বিক্রয়কর্মী মিলেও ক্রেতাদের চাহিদামাফিক খাবার সরবরাহ করতে বেগ পেতে হয়েছে। এ সময় ধৈর্য ধরে সারিতে দাঁড়িয়ে থেকে খাবারের অর্ডার দিয়েছে ক্রেতারা। আবার কাউন্টার থেকে খাবার নিয়ে আউটলেটের পাশের শ্যাডোতে বসে অথবা দাঁড়িয়ে খেয়েছে কেউ কেউ। কেউ কেউ আবার খেতে খেতেই রওনা দিয়েছে যার যার গন্তব্যে।

বাবা রাফির খাবারগুলো মূলত এমনভাবে মোড়কজাত করে পরিবেশন করা হয়, যাতে ক্রেতা বা ভোক্তা হাঁটতে হাঁটতে অথবা গাড়ি চালাতে চালাতে অথবা ভ্রমণের সময় বেশ স্বাচ্ছন্দ্যে খেতে পারে।

বাবা রাফির কনটেইনার কাবাবের স্লোগান ‘স্টপ-ইট অ্যান্ড শেয়ার’ বা ‘থামুন-খান এবং শেয়ার করুন’। উদ্বোধনের পর থেকেই ‘প্রোমোশনাল অফার’ চলছে বাবা রাফিতে। মাত্র ৯৯ টাকায় চিকেন কাবাব, বিফ কাবাব, চিকেন বার্গার, বিফ বার্গার বিক্রি করছে প্রতিষ্ঠানটি।

উদ্বোধনকালে ইমদাদুল হক মিলন বলেন, বসুন্ধরা গ্রুপ সব সময় দেশের মানুষের কল্যাণে কাজ করে আসছে। এরই অংশ হিসেবে আজ ইন্দোনেশিয়ার মতো একটি দেশের বিখ্যাত কাবাব চেইন শপ ‘বাবা রাফি’ বাংলাদেশে নিয়ে এলো। তিনি আরো বলেন, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়-সংলগ্ন এলাকায় বাবা রাফির আউটলেট স্থাপনের লক্ষ্য হচ্ছে ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে স্বল্পমূল্যে স্বাস্থ্যকর ও টাটকা খাবার পৌঁছে দেওয়া। খুবই সুস্বাদু এই কাবাবের আউটলেট প্রথমে ঢাকা শহরের ব্যস্ত এলাকায়, পরে সব বিভাগীয় শহরে স্থাপন করা হবে।

 


মন্তব্য