kalerkantho


লবণের দাম বাড়ায় মনিটরিংয়ের সুপারিশ সংসদীয় কমিটির

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



লবণের দাম বাড়ায় মনিটরিংয়ের  সুপারিশ সংসদীয় কমিটির

কক্সবাজারে লবণ উত্তোলনে ব্যস্ত এক শিশু। ফাইল ছবি

লবণের মূল্য বৃদ্ধিতে উদ্বিগ্ন বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। কমিটির বৈঠকে লবণসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য স্থিতিশীল রাখতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে মনিটরিং জোরদারের সুপারিশ করা হয়েছে। বাজার স্থিতিশীল করতে দ্রুতই ভারত থেকে লবণ আমদানি করা হবে বলে বৈঠকে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

গতকাল বুধবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত কমিটির বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি মো. তাজুল ইসলাম চৌধুরী। বৈঠকে কমিটির সদস্য বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, নূরুল মজিদ, মাহমুদ হুমায়ুন, ওয়ারেসাত হোসেন বেলাল, মো. ছানোয়ার হোসেন, মো. মনজুরুল ইসলাম লিটন, লায়লা আরজুমান বানু এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে কমিটির সদস্যরা অভিযোগ করেন, আর কয়েক দিন বাদেই কোরবানি ঈদ। আর এই ঈদকে সামনে রেখে এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী কৃত্রিম সংকট দেখিয়ে লবণের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে। এতে এবার কাঁচা চামড়ার বাজারে ধস নামার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। এ বিষয়ে মন্ত্রণালয়ের পদক্ষেপ জানতে চাইলে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়, অতিরিক্ত চাহিদা মেটাতে লবণ আমদানির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ভারত থেকে প্রতিদিন এক লাখ টন করে লবণ আমদানি করা হবে। ঈদের আগের ১০ দিন এই আমদানি করা চলবে।

এর পরেও প্রয়োজন হলে আমদানির মাধ্যমে চাহিদা মেটানো হবে। তবে দেশের লবণ চাষিদের যাতে কোনো ক্ষতি না হয়, সেদিক বিবেচনা করেই আমদানি করা হবে।

এ বিষয়ে কমিটির সদস্য নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন সাংবাদিকদের জানান, বাজার স্থিতিশীল রাখতে লবণ আমদানি করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। সব কিছু চূড়ান্ত করা আছে। আশা করি সামনের সপ্তাহেই পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত থেকে লবণ আমদানি করে বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখা যাবে। দিনে এক লাখ টন করে ১০ দিনে ১০ লাখ টন আমদানি করা যাবে।

বৈঠকে ২০১৬-১৭ অর্থবছরের জন্য নির্ধারিত রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে গৃহীত পরিকল্পনা বা কৌশল, দক্ষিণ আমেরিকায় রপ্তানি বাণিজ্য বৃদ্ধির পরিকল্পনা এবং ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাণিজ্য মেলাসংক্রান্ত ক্যালেন্ডার চূড়ান্ত করার বিষয়ে আলোচনা হয়। এ সময় কমিটির পক্ষ থেকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের রপ্তানি বৃদ্ধিতে সন্তোষ প্রকাশ করা হয়। মন্ত্রণালয়ের এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়।

বৈঠকে জানানো হয়, পবিত্র ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের পর্যাপ্ত মজুদ রাখা হয়েছে। ফলে এ নিয়ে কারসাজির কোনো সুযোগ নেই। কমিটি এ বিষয়ে সতর্কতা বাড়ানোর তাগিদ দিয়েছে। এ ছাড়া লবণসহ কিছু পণ্যের মূল্য বৃদ্ধির কারণ অনুসন্ধানের সুপারিশ করা হয়েছে।


মন্তব্য