kalerkantho


বিশ্বমানের টায়ার উত্পাদন করবে যমুনা গ্রুপ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৭ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



বিশ্বমানের টায়ার উত্পাদন করবে যমুনা গ্রুপ

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ ও যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান মো. নুরুল ইসলাম। ছবি : কালের কণ্ঠ

এবার প্রথমবারের মতো দেশে বিশ্বমানের টায়ার উত্পাদন হবে। প্রায় দুই হাজার কোটি টাকার বিনিয়োগে ২০০ বিঘা জমির ওপর এই বিশাল কারখানা তৈরি করতে এগিয়ে আসছে দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পগোষ্ঠী যমুনা গ্রুপ।

রাজধানী থেকে প্রায় ১৩৫ কিলোমিটার দূরে সিলেটের হবিগঞ্জে এই প্রকল্পটি চালু হচ্ছে। চীনের সহায়তার তৈরি এই প্রকল্পটি উত্পাদনে আসবে ২০১৭ সালে। উদ্যোক্তারা জানান, এতে প্রায় দুই হাজার শ্রমিক-কর্মচারীর কর্মসংস্থান হবে। একই সঙ্গে সাশ্রয়ী দামে বিশ্বমানের সেরা টায়ার পাবে স্থানীয় ভোক্তারা। গতকাল শনিবার রাজধানীর র‍্যাডিসন ব্লু ওয়াটার গার্ডেন হোটেলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান যমুনা গ্রুপের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। সংবাদ সম্মেলনে প্রকল্পের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। অন্যদের মধ্যে ছিলেন যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান মো. নুরুল ইসলাম, ব্যবস্থাপনা পরিচালক শামীম ইসলাম, চীনের শীর্ষস্থানীয় রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান ‘কেম চায়না’ এবং  টায়ার ও রাবার গবেষণা প্রতিষ্ঠান পেইচিং রিসার্চ অ্যান্ড ডিজাইন ইনস্টিটিউট অব রাবার ইন্ডাস্ট্রির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। দেশে ধারাবাহিক শিল্পায়নই এর প্রমাণ।

যমুনা গ্রুপ একের পর এক শিল্পপ্রতিষ্ঠান গড়ে তুলছে, যা দেশের অর্থনীতিকে গতিশীল করছে। তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের সরকার দেশীয় শিল্পকে রক্ষার জন্য সব ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। যা বিশ্বের সব দেশই তাদের নিজস্ব শিল্পকে সুরক্ষা দিতে এটা করে থাকে। আমরা আমাদের দেশে আমদানিনির্ভরতা কমাতে চাই। তাই সিমেন্ট ও কাগজের মতো টায়ারশিল্পকেও প্রয়োজনীয় সহায়তা দেওয়ার ব্যাপারে গুরুত্ব দেব। ’

বাংলাদেশ শিল্পায়নে দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, দেশে প্রথম বিশ্বমানের টায়ার উত্পাদন করছে যমুনা গ্রুপ। এই কারখানায় বছরে ৩৫ লাখ টায়ার উত্পাদিত হবে। গত বছর ১০ লাখ গাড়ির রেজিস্ট্রেশন হয়েছে। একটি গাড়িতে দুটি করে চাকা হলেও বছরে ৪০ লাখ চাকার বাজার রয়েছে এই দেশে।

নুরুল ইসলাম বলেন, স্বাধীনতার পরপরই দেশের অবকাঠামো উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে যাত্রা শুরু করে যমুনা গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ। এরই ধারাবাহিকতায় দেশে প্রথমবারের মতো  বিনিয়োগ করা হচ্ছে রেডিয়াল টায়ারশিল্পে। বাস, ট্রাক এবং পেসেঞ্জার কারের মতো যানবহনের টায়ার উত্পাদিত হবে যমুনা টায়ার অ্যান্ড রাবার ইন্ডাস্ট্রিজের কারখানায়। ২০১৭ সালের মধ্যে এই প্রকল্প উত্পাদনে যাবে বলে তিনি আশা করেন। যমুনা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শামীম ইসলাম বলেন, এক হাজার ৫০০ থেকে দুই হাজার কোটি টাকার বার্ষিক বাজারের পুরোটাই আমদানিনির্ভর। এই বাজার প্রতিবছরই বাড়ছে ৯ শতাংশ হারে। স্থানীয়ভাবে উত্পাদন করা গেলে স্থানীয় ভোক্তারা ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ কম দামে বিশ্বমানের টায়ার পাবে।


মন্তব্য