kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৪ জানুয়ারি ২০১৭ । ১১ মাঘ ১৪২৩। ২৫ রবিউস সানি ১৪৩৮।


নতুন বোয়িং এলো রিজেন্টে

চলবে মাসকাট রুটে

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২৫ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



নতুন বোয়িং এলো রিজেন্টে

রিজেন্ট এয়ারে যুক্ত হয়েছে ৭৩৭-৮০০ সিরিজের বোয়িং বিমান। ইন্দোনেশিয়া থেকে গতকাল বিমানটি ঢাকায় পৌঁছে === নতুন বোয়িং এলো রিজেন্টে চলবে মাসকাট রুটে নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম বেসরকারি বিমান সংস্থা রিজেন্ট এয়ারে যুক্ত হয়েছে আধুনিক ৭৩৭-৮০০ সিরিজের বোয়িং বিমান। ইন্দোনেশিয়া থেকে গতকাল বৃহস্পতিবার ভোরে নতুন এই বিমানটি ঢাকা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছে। বর্তমানে রিজেন্টের রয়েছে এর আগের সিরিজের দুটি ৭৩৭-৭০০ বিমান। নতুন বিমানটি বর্তমানে যাত্রী পরিবহনে নিয়োজিত বিমানের চেয়ে সুপরিসর ও আধুনিক। নতুন বিমান যুক্ত হওয়ার পর রিজেন্টের বহরে বিমান সংখ্যা দাঁড়াবে পাঁচটি। এর মধ্যে তিনটি বোয়িং এবং দুটি ড্যাশ। বিষয়টি নিশ্চিত করে রিজেন্ট এয়ারওয়েজের চিফ অপারেটিং অফিসার আশীষ রায় চৌধুরী কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘নতুন বিমান দিয়েই আগামী ৭ এপ্রিল চালু হতে যাওয়া ওমানের রাজধানী মাসকাট রুটে যাত্রী পরিবহন শুরু করবে। ঢাকা-চট্টগ্রাম-মাসকাট রুটে সপ্তাহে চার দিন ফ্লাইট চালাবে রিজেন্ট। পরবর্তী সময়ে সেটি প্রতিদিন চলবে। একই সঙ্গে মধ্যপ্রাচ্যের অন্য দেশেও ফ্লাইট চালানো হবে।’ নতুন রুট চালুর আগ পর্যন্ত বোয়িং বিমানটি দেশের অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক রুটে সমন্বয় করে যাত্রী পরিবহনে নিয়োজিত থাকবে জানিয়ে আশীষ রায় চৌধুরী আরো বলেন, এর ফলে রিজেন্টের যাত্রীরা আরো আরামদায়ক ভ্রমণের সুযোগ পাবে। অবশ্য এর আগে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ ও বেসামরিক বিমান পরিবহন কর্তৃপক্ষসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরের যাবতীয় ছাড়পত্রও অনুমোদন নেওয়া হবে। রিজেন্ট এয়ার কর্তৃপক্ষ জানায়, আমেরিকার জেকেস ইউকে থেকে ছয় বছরের জন্য বিমানটি লিজ নেওয়া হয়েছে। বিমানটির নতুন বৈশিষ্ট্য হচ্ছে ৭৩৭-৮০০ বিমানে যাত্রীদের আরামদায়ক ভ্রমণের জন্য সিটগুলোকে বিশেষভাবে সাজানো হয়েছে। ১৮৩ আসনবিশিষ্ট এই বিমানে কোনো বিজনেস ক্লাস সিট রাখা হয়নি। বিজনেস ক্লাসের বদলে ১৫টি প্রিমিয়াম ইকোনমি ক্লাস সিট রাখা হয়েছে, যেখানে দুই সিটের মাঝখানে ব্যবধান থাকবে বেশি এবং আরামদায়ক। বিমানের বাকি ১৬৮টি সিট হচ্ছে ইকোনমি সিট। এ বিষয়ে আশীষ রায় চৌধুরী বলেন, ‘ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ সর্বপ্রথম এই ধরনের সিট চালু করেছিল। সেই ধারণা থেকেই আমরা এটি চালু করেছি। সব সিট সাজানো হয়েছে ৩-৩ বিন্যাসে। অর্থাৎ এক পাশে তিনটি সিট, অন্য পাশে তিনটি সিট, মাঝখানে চলাচলের পথ। উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ২৬ জুলাই মালয়েশিয়ায় প্রথম আন্তর্জাতিক রুটে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করে দেশের শীর্ষস্থানীয় হাবিব গ্রুপের প্রতিষ্ঠান রিজেন্ট এয়ার।

বেসরকারি বিমান সংস্থা রিজেন্ট এয়ারে যুক্ত হয়েছে আধুনিক ৭৩৭-৮০০ সিরিজের বোয়িং বিমান। ইন্দোনেশিয়া থেকে গতকাল বৃহস্পতিবার ভোরে নতুন এই বিমানটি ঢাকা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছে।

বর্তমানে রিজেন্টের রয়েছে এর আগের সিরিজের দুটি ৭৩৭-৭০০ বিমান। নতুন বিমানটি বর্তমানে যাত্রী পরিবহনে নিয়োজিত বিমানের চেয়ে সুপরিসর ও আধুনিক। নতুন বিমান যুক্ত হওয়ার পর রিজেন্টের বহরে বিমান সংখ্যা দাঁড়াবে পাঁচটি। এর মধ্যে তিনটি বোয়িং এবং দুটি ড্যাশ।

বিষয়টি নিশ্চিত করে রিজেন্ট এয়ারওয়েজের চিফ অপারেটিং অফিসার আশীষ রায় চৌধুরী কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘নতুন বিমান দিয়েই আগামী ৭ এপ্রিল চালু হতে যাওয়া ওমানের রাজধানী মাসকাট রুটে যাত্রী পরিবহন শুরু করবে। ঢাকা-চট্টগ্রাম-মাসকাট রুটে সপ্তাহে চার দিন ফ্লাইট চালাবে রিজেন্ট। পরবর্তী সময়ে সেটি প্রতিদিন চলবে। একই সঙ্গে মধ্যপ্রাচ্যের অন্য দেশেও ফ্লাইট চালানো হবে। ’

নতুন রুট চালুর আগ পর্যন্ত বোয়িং বিমানটি দেশের অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক রুটে সমন্বয় করে যাত্রী পরিবহনে নিয়োজিত থাকবে জানিয়ে আশীষ রায় চৌধুরী আরো বলেন, এর ফলে রিজেন্টের যাত্রীরা আরো আরামদায়ক ভ্রমণের সুযোগ পাবে। অবশ্য এর আগে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ ও বেসামরিক বিমান পরিবহন কর্তৃপক্ষসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরের যাবতীয় ছাড়পত্রও অনুমোদন নেওয়া হবে।

রিজেন্ট এয়ার কর্তৃপক্ষ জানায়, আমেরিকার জেকেস ইউকে থেকে ছয় বছরের জন্য বিমানটি লিজ নেওয়া হয়েছে। বিমানটির নতুন বৈশিষ্ট্য হচ্ছে ৭৩৭-৮০০ বিমানে যাত্রীদের আরামদায়ক ভ্রমণের জন্য সিটগুলোকে বিশেষভাবে সাজানো হয়েছে। ১৮৩ আসনবিশিষ্ট এই বিমানে কোনো বিজনেস ক্লাস সিট রাখা হয়নি। বিজনেস ক্লাসের বদলে ১৫টি প্রিমিয়াম ইকোনমি ক্লাস সিট রাখা হয়েছে, যেখানে দুই সিটের মাঝখানে ব্যবধান থাকবে বেশি এবং আরামদায়ক। বিমানের বাকি ১৬৮টি সিট হচ্ছে ইকোনমি সিট। এ বিষয়ে আশীষ রায় চৌধুরী বলেন, ‘ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ সর্বপ্রথম এই ধরনের সিট চালু করেছিল। সেই ধারণা থেকেই আমরা এটি চালু করেছি। সব সিট সাজানো হয়েছে ৩-৩ বিন্যাসে। অর্থাৎ এক পাশে তিনটি সিট, অন্য পাশে তিনটি সিট, মাঝখানে চলাচলের পথ।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ২৬ জুলাই মালয়েশিয়ায় প্রথম আন্তর্জাতিক রুটে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করে দেশের শীর্ষস্থানীয় হাবিব গ্রুপের প্রতিষ্ঠান রিজেন্ট এয়ার।


মন্তব্য