kalerkantho


সংস্কারে পিছিয়ে পড়া কারখানার দায় নেবে না এইচঅ্যান্ডএম

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৩ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



সংস্কারে পিছিয়ে থাকা সাপ্লায়ারদের কারখানার দায় নেবে না বাংলাদেশের পোশাক খাতের সবচেয়ে বড় ক্রেতা প্রতিষ্ঠান এইচঅ্যান্ডএম। সুইডেনভিত্তিক এ প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে ২২৯টি কারখানার মালিককে এই বার্তা জানিয়ে দিয়ে বলা হয়, কোনো সাপ্লায়ারের কারণে এইচঅ্যান্ডএম ব্র্যান্ডের দুর্নাম হোক এটা কিছুতেই মেনে নেওয়া হবে না।

এ জন্য সংস্কারে গতি আনতে চাপ দেওয়া হয়েছে কারখানা মালিকদের। তবে বাংলাদেশের সঙ্গে চলমান ব্যবসায়িক সম্পর্ক ও সহযোগিতা অব্যাহত রাখার কথা পুনর্ব্যক্ত করা হয়।  

বাংলাদেশের যেসব কারখানা থেকে তারা পোশাক নিয়ে থাকে সেসব কারখানার মালিকদের সঙ্গে এক বৈঠকে গতকাল এ বার্তা দেওয়া হয়। রাজধানীর গুলশানের একটি হোটেলে তিন ধাপে ২২৯টি কারখানার মালিকের সঙ্গে বৈঠক করে এইচঅ্যান্ডএম। এ দেশে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী রজার হুবার্ট সভা পরিচালনা করেন। বৈঠকে ইউরোপীয় ক্রেতাদের সমন্বয়ে গঠিত জোট অ্যাকর্ড অন ফায়ার অ্যান্ড বিল্ডিং সেফটি ইন বাংলাদেশের প্রতিনিধি এবং বিজিএমইএর প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। রানা প্লাজা ধসের পর অ্যাকর্ডের কার্যক্রমে সহযোগিতায় প্রথম স্বাক্ষরকারী ব্র্যান্ড এইচঅ্যান্ডএম।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, কারখানা সংস্কার ধীরগতির সমালোচনার জবাবে সংশ্লিষ্ট মালিকরা জানান, তাঁদের কারখানার অন্তত ৬২ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। অ্যাকর্ডের পক্ষ থেকেও এ দাবি সমর্থন করা হয়।

এর আগে এইচঅ্যান্ডএমের পক্ষ থেকে কারখানা মালিকদের কাছে পাঠানো চিঠিতে  আগামী মে মাসের মধ্যে সংস্কারকাজ শেষ করার সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়। তবে মালিকদের পক্ষ থেকে বলা হয়, এত স্বল্প সময়ের মধ্যে সংস্কারকাজ শেষ করা সম্ভব নয়। বৈঠকে উপস্থিত বিজিএমইএর সহসভাপতি মাহমুদ হাসান খান বাবু বলেন, অ্যাকর্ড এবং কারখানা মালিকদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তাঁদের কারখানাগুলোর গড়ে ৬২ শতাংশ সংস্কার ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে। বৈঠকে বাংলাদেশে অ্যাকর্ডের প্রধান রব ওয়েজ, প্রধান নিরাপত্তা পরিদর্শক ব্র্যাড লোয়েন উপস্থিত ছিলেন।


মন্তব্য