kalerkantho


মার্চের পর কাঁচা চামড়া ঢুকবে না হাজারীবাগে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



মার্চের পর কাঁচা চামড়া ঢুকবে না হাজারীবাগে

বুড়িগঙ্গা, শীতলক্ষ্যা, বালু ও তুরাগ নদীর দূষণ রোধে ১ এপ্রিল থেকে হাজারীবাগে কাঁচা চামড়া না ঢোকানোর সিদ্ধান্ত হয়। ফাইল ছবি

হাজারীবাগে ১ এপ্রিল থেকে আর কোনো কাঁচা চামড়া প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। গতকাল রবিবার নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আন্তমন্ত্রণালয় সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ওই বৈঠকে বুড়িগঙ্গা, শীতলক্ষ্যা, বালু ও তুরাগ নদীর দূষণ রোধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণসংক্রান্ত সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। নৌপরিবহনমন্ত্রী শাহজাহান খান সভায় সভাপতিত্ব করেন। সভায় সিদ্ধান্ত হয়, নদীর দখল ও দূষণ রোধে জনসচেতনতা বাড়ানো এবং এনফোর্সমেন্ট  জোরদার করতে হবে।

সভায় জানানো হয়, নদী দূষণের অন্যতম কারণ হলো শিল্প বর্জ্য, যা শতকরা ৬০ ভাগ। এর মধ্যে ট্যানারির বর্জ্য ৪০ শতাংশ। হাজারীবাগের ট্যানারির বর্জ্য যাতে নদী দূষণ করতে না পারে সে জন্য হাজারীবাগের ট্যানারি মালিকদের তাঁদের জন্য নির্ধারিত সাভারের শিল্পনগরীতে দ্রুত চলে যেতে হবে।

সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, বুড়িগঙ্গা, শীতলক্ষ্যা, বালু ও তুরাগ নদীর দূষণ রোধে ‘ক্র্যাশ প্রোগ্রাম’ গ্রহণ করা হবে। বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও দপ্তরের কাজের মধ্যে সমন্বয় সাধন করে সমন্বিত উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় ‘লিড মিনিস্ট্রি’ হিসেবে কাজ করবে।

সভায় আরো জানানো হয়, বাংলাদেশ নৌবাহিনী নদীর দখল ও দূষণ রোধ বিষয়ে আগামী এক মাসের মধ্যে একটি কনসেপ্ট পেপার তৈরি করবে এবং সে অনুযায়ী পরবর্তী কার্যক্রম গ্রহণ করা হবে।

সভায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব আবুল কালাম আজাদ, নৌবাহিনী প্রধান ভাইস অ্যাডমিরাল নিজাম উদ্দিন আহমেদ, পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. জাফর আহমেদ খান ও নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব অশোক মাধব রায় উপস্থিত ছিলেন।


মন্তব্য