kalerkantho


বেনাপোলে কর ফাঁকি রোদে কড়াকড়ি

প্রভাব পড়েছে রাজস্বে

বেনাপোল প্রতিনিধি   

১৮ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



প্রভাব পড়েছে রাজস্বে

বেনাপোলে রাজস্ব আদায় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে কমেছে ৩১০ কোটি টাকা

রাজস্ব ফাঁকি রোধে ব্যাপক কড়াকড়ি আরোপ করায় চলতি ২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রথম আট মাসে বেনাপোল কাস্টম হাউসে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩১০ কোটি টাকার রাজস্ব আদায় কম হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানিয়েছেন, আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যে রাজস্ব ফাঁকি রোধে ব্যাপক কড়াকড়ি আরোপ করে পণ্যের শুল্কমূল্য বৃদ্ধি ও নতুন নতুন নিয়ম চালু হওয়ায় এই বন্দর থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন আমদানিকারকরা। এ কারণে চলতি অর্থবছরে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্য পূরণ হবে না। বরং ঘাটতির পরিমাণ ৫০০ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে অভিমত ব্যবসায়ীদের।

কাস্টম সূত্রে জানা গেছে, ২০১৫-১৬ অর্থবছরে বেনাপোল কাস্টম হাউসে রাজস্ব আহরণের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল তিন হাজার ১৪৩ কোটি ৩২ লাখ টাকা। এর মধ্যে অর্থবছরের প্রথম আট মাসে লক্ষ্যমাত্রা ছিল দুই হাজার ১৫ কোটি ৪৫ লাখ টাকা। এর বিপরীতে আহরণ হয়েছে এক হাজার ৭০৫ কোটি ৭৭ লাখ টাকা। অর্থাৎ রাজস্ব ঘাটতি ৩০৯ কোটি ৬৮ লাখ টাকা।

বেনাপোল আমদানি-রপ্তানিকারক সমিতির সহসভাপতি অমিনুল হক জানান, কাস্টমস কর্মকর্তাদের ব্যাপক কড়াকড়ি আরোপ করায় এই বন্দর দিয়ে পণ্য আমদানি কমেছে। আগে এখান দিয়ে প্রতিদিন গড়ে ৫০০ ট্রাক পণ্য আমদানি হতো। বর্তমানে তা নেমে এসেছে মাত্র ২৫০ ট্রাকে। ব্যবসায়ীদের মধ্যে আস্থার সংকট রয়েছে। ফলে তারা আমদানি কমিয়ে দিয়েছে।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান জানান, এই বন্দর দিয়ে আমদানি কমার কারণেই রাজস্ব আদায় কমেছে। কাস্টম কর্তৃপক্ষ আমদানিকারকসহ বন্দর ব্যবহারকারীদের সঙ্গে কোনো আলোচনা ছাড়াই আমদানীকৃত পণ্যের শুল্কমূল্য বৃদ্ধি এবং ইচ্ছেমতো এইচএস কোড পরিবর্তন করে শুল্কহার পরিবর্তন করায় ব্যবসায়ীরা বন্দর পরিবর্তন করছেন।

তাঁরা বলছেন, এ অবস্থা চলতে থাকলে চলতি অর্থবছরে রাজস্ব ঘাটতির পরিমাণ ৫০০ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে। তবে বেনাপোল বন্দরে রাজস্ব ঘাটতি পূরণের বিষয়ে এখনো আশাবাদী কাস্টম কর্তৃপক্ষ।

কাস্টমস কমিশনার এ এফ এম আব্দুল্লাহ খান বলেন, ‘ইতিপূর্বে এই বন্দর দিয়ে বিপুল পরিমাণ শুল্ক ফাঁকি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এখন সে সুযোগ নেই। প্রধানত উচ্চ শুল্কযুক্ত পণ্যের আমদানি ১৩ হাজার টন কম হওয়ায় রাজস্ব আহরণ কমেছে। আশা করছি, সামনের দিনগুলোয় তা পূরণ হয়ে যাবে। ’


মন্তব্য