kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দুর্নীতির দায়ে ইরানে ব্যবসায়ীর মৃত্যুদণ্ড

বাণিজ্য ডেস্ক   

৭ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



দুর্নীতির দায়ে ইরানে ব্যবসায়ীর মৃত্যুদণ্ড

দুর্নীতির অভিযোগে ইরানের বিশিষ্ট শিল্পপতি ও বিলিয়নেয়ার বাবাক জেনজানিকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন  দেশটির একটি আদালত। গতকাল রবিবার বিচার বিভাগের এক কর্মকর্তা জানান, দীর্ঘ বিচারের পর প্রমাণিত হয়েছে জেনজানি প্রতারণার মাধ্যমে ২.৮ বিলিয়ন ডলার পকেটস্থ করেছেন।

তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল তিনি ইরানের তেল বিক্রির টাকা আত্মসাত্ করেছেন।

ইরানের সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আহমাদিনেজাদের সময়ে ব্যবসায়িক প্রতারণার জন্য কুখ্যাতি অর্জন করেছিলেন ৪১ বছর বয়সী ব্যবসায়ী জেনজানি। তাঁর পুরো নাম বাবাক মোর্তেজা জেনজানি। তিনি সংযুক্ত আরব আমিরাতভিত্তিক সরিনেত গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। এ ছাড়া আরো বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানের মালিকানা রয়েছে তাঁর। তিনি ইরানের আন্তর্জাতিক তেল ব্যবসার সঙ্গেও জড়িত।

জেনজানির বিরুদ্ধে অভিযোগ হচ্ছে, আহমাদিনেজাদের সময়ে ইরানের বিরুদ্ধে পরমাণু ইস্যুতে আর্থিক নিষেধাজ্ঞা থাকায় তিনি তেল বিক্রির অর্থ অন্য পথে সরিয়ে ফেলেন। বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তা গোলাম হোসাইন মোহসেনেজাই বলেন, তাঁকে প্রতারণা ও অর্থনৈতিক সন্ত্রাসের দায়ে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। সেই সঙ্গে অবশ্যই তাঁকে আত্মসাত্ করা অর্থ ফেরত দিতে হবে, অর্থপাচারের জন্য জরিমানাও গুনতে হবে।

ইরানের আইন অনুযায়ী দুর্নীতি অত্যন্ত জঘন্য অপরাধ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। যার সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদণ্ড। তাই আইন অনুযায়ী প্রকাশ্যে, সম্পূর্ণ স্বচ্ছতা বজায় রেখে এ ব্যবসায়ীর বিচার করা হয়। তাঁর সঙ্গে আরো দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধেও দুর্নীতির অভিযোগে বিচার করা হয়। ফলে তাঁদেরও মৃত্যুদণ্ড ভোগ করতে হবে। বিচার বিভাগীয় এই কর্মকর্তা জানান, প্রাথমিক আদালত তাঁদের বিরুদ্ধে এ রায় দিয়েছেন। তবে এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিলের সুযোগ রয়েছে।

এদিকে নিজের বিরুদ্ধে করা সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন বাবাক জেনজানি। এক সাক্ষাত্কুংগ ারে তিনি বলেন, সেই সময়ে ইরানের ব্যাংক ও তেল মন্ত্রণালয়ের ওপর নিষেধাজ্ঞা থাকায় এ অর্থ পরিশোধ করা সম্ভব হয়নি। রায়ের বিরুদ্ধে তিনি আপিল করবেন। এএফপি।


মন্তব্য