kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সম্পদ কমেছে শীর্ষ ধনীদের

বাণিজ্য ডেস্ক   

৩ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



সম্পদ কমেছে শীর্ষ ধনীদের

বিশ্ব অর্থনৈতিক অস্থিরতার জেরে গত বছর বিশ্বের বেশির ভাগ ধনীকেই বড় অঙ্কের অর্থ খোয়াতে হয়েছে। এতে ধনীদের সম্পদ যেমন কমেছে, তেমনি বিলিয়নেয়ারের সংখ্যাও কমেছে।

গতকাল বুধবার ফোর্বস ম্যাগাজিনে প্রকাশিত ২০১৬ সালের বিলিয়নেয়ার তালিকায় এ চিত্র উঠে এসেছে।

প্রতিবেদনে দেখা যায়, গত বছর বিশ্বের শীর্ষ ২০ জন ধনী হারিয়েছেন সাত হাজার কোটি (৭০ বিলিয়ন) ডলারেরও বেশি সম্পদ। বিশ্ব শেয়ারবাজারে দরপতন, জ্বালানি তেলের অস্বাভাবিক মূল্যহ্রাস এবং মুদ্রা বাজারের অস্থিরতায় ধনীদের সম্পদ কমেছে ব্যাপকভাবে। ২০১৫ সালে ২০ জন ধনীর সম্মিলিত সম্পদ ৮৯৯ বিলিয়ন ডলার থাকলেও এক বছরের ব্যবধানে তা কমে হয় ৮২৭ বিলিয়ন ডলার। এমনকি অর্থবাজারের অস্থিরতা থেকে কমেছে বিলিয়নেয়ারের সংখ্যাও। ২০১৫ সালের তালিকায় বিলিয়নেয়ার ছিলেন এক হাজার ৮২৬ জন। এ বছর ১৬ জন কমে হয় এক হাজার ৮১০ জন। গত সাত বছরের মধ্যে এবারই প্রথম বিলিয়নেয়ারের সংখ্যা কমেছে বলে জানা যায়। এমনকি ২০১২ সালের পর থেকে এবারই প্রথম শীর্ষ ২০ ধনীর সম্পদের পরিমাণ কমেছে।

বিলিয়নেয়ারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি অর্থ খুইয়েছেন মেক্সিকোর টেলিকম টাইকুন কারলোস স্লিম। মাত্র এক বছরের ব্যবধানে তাঁর সম্পদ ৭৭.১ বিলিয়ন ডলার থেকে কমে হয়েছে ৫০ বিলিয়ন ডলার। তাঁর মালিকানাধীন টেলিকম ও মাইনিং কম্পানিসহ সব প্রতিষ্ঠানই শেয়ারবাজারে দর হারিয়েছে। ফলে এ বছর ধনীদের তালিকায় চতুর্থ স্থানে চলে এসেছে একসময়ের এ শীর্ষ ধনীর নাম। এ বছর যথারীতে বিশ্বের শীর্ষ ধনী হিসেবে রয়েছেন মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস। যদিও গত বছর তাঁরও সম্পদ কমেছে। তাঁর সম্পদের পরিমাণ ২০১৫ সালের ৭৯.২ বিলিয়ন থেকে এ বছর কমে হয় ৭৫ বিলিয়ন ডলার।

এ বছর এক হাজার ৮১০ জন বিলিয়নেয়ারের মধ্যে মাত্র ১৯০ জন রয়েছেন নারী। যদিও ২০১৫ সালে নারী বিলিয়নেয়ার ছিলেন ১৯৭ জন। নারীদের মধ্যে এ বছর শীর্ষ ধনী হয়েছেন এল’ওরিয়াল সাম্রাজ্যের মালিক লিলিয়ান বেটেনকোর্ট। এ বছর তাঁর সম্পদের পরিমাণ ৩৬.১ বিলিয়ন ডলার। তিনি সার্বিক তালিকায় ১১তম স্থানে রয়েছেন। নারীদের মধ্যে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছেন ওয়ালমার্টের প্রতিষ্ঠাতা স্যাম ওয়ালটনের মেয়ে অ্যালিস ওয়ালটন। সার্বিক তালিকায় ১৬তম স্থানে থাকা এ নারীর সম্পদের পরিমাণ ৩২.৩ বিলিয়ন ডলার। গত বছর বিলিয়নেয়ারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি লাভবান হয়েছেন ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ। ২০১৫ সালে তাঁর সম্পদ বেড়েছে ১১.২ বিলিয়ন ডলার। ফোর্বস ম্যাগাজিনের এবারের তালিকায় তিনি ৪৪.৬ বিলিয়ন ডলার সম্পদ নিয়ে বিশ্বের ষষ্ঠ ধনীর খ্যাতি অর্জন করেন। তাঁর আগের অবস্থানে অর্থাৎ পঞ্চম স্থানে রয়েছেন অ্যামাজনের প্রতিষ্ঠাতা জেফ বেজস। তাঁর সম্পদের পরিমাণ ৪৫.২ বিলিয়ন ডলার।

এ ছাড়া শীর্ষ দশে থাকা মাত্র চারজন বিলিয়নেয়ারের সম্পদ বেড়েছে গত বছর। তাঁরা হলেন মার্ক জাকারবার্গ, বেজস, মিখায়েল ব্লুমবার্গ এবং ওর্তেগা। ইউরোপের সবচেয়ে ধনী অ্যামেনসিও ওর্তেগা ৬৭ বিলিয়ন ডলার সম্পদের মালিকানা নিয়ে এ বছর দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছেন। আর তৃতীয় স্থানে রয়েছেন ওয়ারেন বাফেট। তাঁর সম্পদের পরিমাণ ৬০.৮ বিলিয়ন ডলার। ২০১৬ সালের এ তালিকায় এশিয়ার সবচেয়ে ধনী হিসেবে রয়েছেন চীনের রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়ী ওয়াঙ্গ জিয়ানলিন। সার্বিক তালিকায় ১৮তম স্থানে থাকা এ ধনীর সম্পদের পরিমাণ ২৮.৭ বিলিয়ন ডলার।

এদিকে রাজনৈতিক দৌড়ে এগিয়ে থাকা ডোনাল্ড ট্রাম্প পেছালেন অর্থনীতিতে। রিপাবলিকান দল থেকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট মনোনয়ন প্রার্থী শীর্ষ এ ব্যবসায়ী ২০১৫ সালে ফোর্বস ম্যাগাজিনের তালিকায় ছিলেন ১২১তম বিলিয়নেয়ার। কিন্তু গত বছর তাঁর সম্পদ কমে যাওয়ায় এবারের তালিকায় তিনি হন ৩২৪তম। বর্তমানে তাঁর সম্পদের পরিমাণ ৪.৫ বিলিয়ন ডলার থেকে কিছুটা বেশি। গার্ডিয়ান।


মন্তব্য