kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ভারতে ১৯.৭৮ লাখ কোটি রুপির বাজেট প্রস্তাব

বাণিজ্য ডেস্ক   

১ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ভারতে ১৯.৭৮ লাখ কোটি রুপির বাজেট প্রস্তাব

গ্রামীণ অর্থনৈতিক উন্নয়ন, কৃষকদের আয় বৃদ্ধি, কর্মসংস্থান এবং বিনিয়োগ বাড়াতে অবকাঠামো উন্নয়নকে প্রাধান্য দিয়ে নতুন অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাব পেশ করেছেন ভারতের অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি। গতকাল সোমবার পার্লামেন্টে ২০১৬-১৭ অর্থবছরের জন্য ১৯ লাখ ৭৮ হাজার কোটি রুপির (২৮৮ বিলিয়ন ডলার) বাজেট প্রস্তাব করেন তিনি।

যা আগের বছরের চেয়ে ১১ শতাংশ বেশি। এটি ক্ষমতাসীন মোদি সরকারের তৃতীয় বাজেট।

গ্রামীণ অর্থনীতি শক্তিশালী করার পাশাপাশি কৃষকদের সহায়তায় বিলিয়ন ডলার খরচ করবে ভারত সরকার। গতকাল বাজেট প্রস্তাবে এমনটি জানালেন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি। বিশ্বের অন্যতম দ্রুত প্রবৃদ্ধিশীল দেশ ভারতে গত দুই বছর খরায় ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন কৃষকরা। সেই সঙ্গে কর্মসংস্থান খরায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তরুণরা। এ অবস্থায় দেশের শিল্প উন্নয়নের পাশাপাশি গ্রামীণ অর্থনীতিকে শক্তিশালী করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করে নতুন বাজেট দিতে যাচ্ছে সরকার।

বাজেট প্রস্তাবে অর্থমন্ত্রী স্বীকার করেন দেশের অর্থনীতিতে বেশ কিছু ঝুঁকি রয়েছে, তবে তিনি ভারতকে লক্ষ্যে এগিয়ে নেওয়ারও প্রতিশ্রুতি দেন। তিনি বলেন, ‘প্রতিটি ভারতীয় নাগরিকের আর্থসামাজিক নিরাপত্তা আমরা নিশ্চিত করতে চাই। বিশেষ করে কৃষক এবং যারা দারিদ্র্যের কষাঘাতে জর্জরিত। আমরা একটি সমৃদ্ধিশালী ভারতের স্বপ্ন দেখি। যা দেশের প্রতিটি নাগরিককে আর্থিকভাবে শক্তিশালী করবে। ভারতকে উন্নয়নের ধারায় বদলে দেবে। ’

অরুণ জেটলি জানান, আগামী পাঁচ বছরে ভারতের কৃষকদের আয় দ্বিগুণ করার লক্ষ্যে সরকার ৩৫৯ বিলিয়ন রুপি (৫.২ বিলিয়ন ডলার) ব্যয় করবে। দেশের ১২ কোটি কৃষকের অর্থনৈতিক উন্নয়নে ইনস্যুরেন্স স্কিম দেওয়া হবে এবং বাজারে প্রবেশের সুযোগ নিশ্চিত করা হবে। এ ছাড়া ২০১৫-১৭ অর্থবছরে কৃষিঋণও ৯ ট্রিলিয়ন রুপি পর্যন্ত দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। তিনি আরো জানান, আগামী দুই বছরেই দেশের সব গ্রামে বিদ্যুৎ পৌঁছাবে। বাজেটে কৃষি খাতে মোট বরাদ্দ রাখা হয়েছে ৩৫ হাজার ৯৮৪ কোটি রুপি।

বাজেটে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ২৩ শতাংশ বেতন বৃদ্ধির কথাও জানান অর্থমন্ত্রী। অর্থমন্ত্রীর বাজেট বক্তৃতার পরই বোম্বে স্টক এক্সচেঞ্জের সূচক ৩০০ পয়েন্ট পড়ে যায়। অর্থমন্ত্রী প্রতিশ্রুতি দেন দেশে বিনিয়োগ আকর্ষণ করতে সড়ক ও অবকাঠামো উন্নয়নে ২.২১ ট্রিলিয়ন রুপি ব্যয় করা হবে। এ ছাড়া রুগ্ণ সরকারি ব্যাংকগুলোকে শক্তিশালী করতে ২৫০ বিলিয়ন রুপি বিনিয়োগ করা হবে। ৭.৬ শতাংশ প্রবৃদ্ধি ধরে নতুন অর্থবছরের বাজেট ঘোষণা করেছে সরকার।

বিশ্লেষকরা বলছেন, বিজেপি সরকার ক্ষমতায় আসার পর যেভাবে উন্নয়ন ও বিনিয়োগের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল তা প্রত্যাশিত হয়নি। এমনকি দুই বছরের খরায় দরিদ্র মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হলেও এর বিপরীতে সরকারের সহায়তা খুব বেশি ছিল না। ফলে দেশের অনেক অঞ্চলে চাকরি, শিক্ষা এবং বিভিন্ন দাবিতে কৃষক ও সাধারণ মানুষ আন্দোলনেও নেমেছে। এমন পরিস্থিতিতে সরকার কর্মসংস্থান ও দরিদ্রবান্ধব বাজেট করতে যাচ্ছে আগামী বছরের জন্য। এএফপি।


মন্তব্য