kalerkantho


ট্রিপ অ্যাডভাইজারের জরিপ

বিশ্বের বিমানসেবায় শীর্ষে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনস

বাণিজ্য ডেস্ক   

২২ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



বিশ্বের বিমানসেবায় শীর্ষে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনস

সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনসে যাত্রীদের সেবা দিচ্ছেন একজন ক্রু

সেবা ও গুণগত মান বিবেচনায় এ বছর বিশ্বের শীর্ষ বিমান সংস্থা হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনস। গত সোমবার ভ্রমণ ওয়েবসাইট ট্রিপ অ্যাডভাইজার এক বছরের একটি জরিপ শেষে বিশ্বের শীর্ষ ১০ এয়ারলাইনসের নাম প্রকাশ করেছে। এ তালিকায় প্রাধান্য বিস্তার করেছে এশিয়ার বিমান সংস্থাগুলো। গত বছর শীর্ষস্থানে থাকা এমিরেটস এ বছর তৃতীয় স্থানে এসেছে।

তালিকায় প্রথম স্থান অর্জন করেছে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনস। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে নিউজিল্যান্ডের এয়ার নিউজিল্যান্ড, তৃতীয় সংযুক্ত আরব আমিরাতের এমিরেটস, চতুর্থ জাপানের জাপান এয়ারলাইনস, পঞ্চম তাইওয়ানের এভা এয়ার, ষষ্ঠ যুক্তরাষ্ট্রের সাউথওয়েস্ট এয়ারলাইনস, সপ্তম যুক্তরাজ্যের জেটটু ডটকম, অষ্টম কাতারের কাতার এয়ারওয়েজ, নবম ব্রাজিলের অজুল এবং দশম স্থানে রয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার কোরিয়ান এয়ার। এতে দেখা যায়, শীর্ষ দশে এশিয়ার চারটি বিমান সংস্থা রয়েছে।

এ র‌্যাংকিং প্রকাশের পর সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনসের সিইও গো চুন ফোংগ এক বিবৃতিতে বলেন, ‘আমাদের ব্যাবসায়িক মডেল তিনটি স্তম্ভের ওপর দাঁড়িয়ে। সেগুলো হচ্ছে পণ্যে নেতৃত্বে থাকা, সর্বোত্কৃষ্ট মানের সেবা এবং নেটওয়ার্ক সংযোগ। আমরা মাটিতে এবং আকাশে উভয় স্থানেই আমাদের গ্রাহকদের প্রত্যাশা পূরণে চেষ্টা করে যাচ্ছি। সে জন্য এ তিনটি স্তম্ভে বিনিয়োগ করছি।

ট্রিপ অ্যাডভাইজার জানায়, এ জরিপে সঠিক ফলাফল বের করে আনতে এক বছর ভ্রমণকারীদের ফিডব্যাক নেওয়া হয়েছে অ্যালগোরিদমের ভিত্তিতে। এতে একটি বিমান সংস্থাগুলোর কোয়ান্টিটি এবং কোয়ালিটি দুটিই বিবেচনা করা হয়েছে। সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনস নিয়ে একজন ভ্রমণকারী লিখেছেন—‘সেরা ক্রু, সেরা ফ্লাইট মিল, সেরা বিনোদন, সেরা যাত্রীসেবা, সব সময় বিনয়ী এবং হেলপফুল, কোনো সমস্যা নেই এবং ভাড়াও যৌক্তিক। আমি সব সময় সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনসে ভ্রমণকারী। কারণ অন্যগুলোতে তা পাই না, যা এখানে পাই।’

প্রতিবেদনে বলা হয়, সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনস শীর্ষস্থানে এসেছে ইকোনমি এবং প্রথম শ্রেণির সেবার কারণে। কাতার এয়ারলাইনস ভালো করেছে বিজনেস ক্লাসে। অন্যদিকে এয়ার নিউজিল্যান্ড প্রিমিয়াম ইকোনমি অফারের ক্ষেত্রে শীর্ষে। সিএনবিসি, বিএনএন।


মন্তব্য