kalerkantho


ভ্যাট পরিশোধের নতুন বিধান ব্যবসাবান্ধব

ড. মো. আব্দুর রউফ   

১২ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



ভ্যাট পরিশোধের নতুন বিধান ব্যবসাবান্ধব

নতুন ভ্যাট আইন ১ জুলাই, ২০১৭ তারিখ থেকে কার্যকর হবে। ভ্যাট দেয় পণ্য ও সেবার ভোক্তা।

সারা দেশের সব মানুষই পণ্য ও সেবার ভোক্তা। সব মানুষের পক্ষে সরাসরি সরকারি কোষাগারে ভ্যাট জমা দিয়ে আসা সম্ভব নয়। তাই ভোক্তারা পণ্য ও সেবা ক্রয় করার সময় ক্রয়মূল্যের সঙ্গে বিক্রেতার কাছে ভ্যাটের টাকাটাও দিয়ে দেয়। বিক্রেতা সারা মাস ক্রেতাদের কাছ থেকে যে পরিমাণ ভ্যাটের টাকা সংগ্রহ করেন তা মাস শেষে সরকারি কোষাগারে জমা দিয়ে দেন। এভাবে বিক্রেতা কর্তৃক সরকারি কোষাগারে ভ্যাটের অর্থ জমা দেওয়াকে বলা হয় ভ্যাট পরিশোধ করা। অর্থাৎ ক্রেতারা ভ্যাট দেন আর বিক্রেতারা ভ্যাট পরিশোধ করেন।

আগের ভ্যাট আইন অনুসারে দুইভাবে বিক্রেতারা সরকারি কোষাগারে ভ্যাটের অর্থ পরিশোধ করে থাকে। একটি অগ্রিম পরিশোধ পদ্ধতি, আরেকটি হলো বিলম্বে পরিশাধ পদ্ধতি। অগ্রিম পরিশোধ পদ্ধতি হলো বিক্রেতা একটি রেজিস্টার রাখেন।

এই রেজিস্টারের নাম হলো চলতি হিসাব রেজিস্টার। বিক্রেতা সরকারি কোষাগারে ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে অগ্রিম ভ্যাটের অর্থ জমা দিয়ে চলতি হিসাব রেজিস্টারে ব্যালান্স সৃষ্টি করে রাখেন। এরপর বিক্রেতা যখন বিক্রি করেন তখন তার ভ্যাট পরিশোধ করার প্রয়োজন হয়। তখন তিনি চলতি হিসাব রেজিস্টারের ব্যালান্স থেকে ভ্যাট বিয়োগ করে ভ্যাট পরিশোধ করেন। অগ্রিম ভ্যাট পরিশোধের পদ্ধতি ব্যবসাবান্ধব নয়।

আর বিলম্বে ভ্যাট পরিশোধ করার পদ্ধতি হলো সারা মাস বিক্রেতা বিক্রি করতে থাকবে। বিক্রি করার সময় ক্রেতার কাছ থেকে বিক্রীত পণ্য বা সেবার মূল্য নেবে এবং তার সঙ্গে ভ্যাটও নেবে। মূল্য বাবদ প্রাপ্ত অর্থ তার নিজের কিন্তু ভ্যাট তার নিজের নয়। ভ্যাট সরকারের। কিন্তু তিনি এখনই সরকারকে ভ্যাট পরিশোধ করবেন না। সারা মাস শেষে তিনি সরকারকে ভ্যাট পরিশোধ করবেন। বিক্রির সময় সারা মাস তিনি যত ভ্যাট ক্রেতাদের কাছ থেকে সংগ্রহ করবেন, তা তিনি মাস শেষে পরের মাস শুরু হলে হিসাব করবেন। হিসাব করে ভ্যাটের অর্থ ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে সরকারি কোষাগারে জমা দেবেন। তবে পরের মাসের ১৫ তারিখের আগে, মাসিক দাখিলপত্র দাখিল করার আগে ভ্যাটের অর্থ সরকারি কোষাগারে জমা দিতে হবে। বিলম্বে ভ্যাট পরিশোধের এই পদ্ধতি ব্যবসাবান্ধব।

নতুন ভ্যাট আইনে অগ্রিম ভ্যাট পরিশোধের পদ্ধতি নেই। শুধু বিলম্বে ভাট পরিশোধের পদ্ধতি বলবৎ আছে। অর্থাৎ সরকারের পাওনা ভ্যাটের অর্থ প্রায় এক মাস বিক্রেতার হাতে থাকবে। তাই ভ্যাট পরিশোধের দিক থেকে নতুন ভ্যাট আইনের বিধান আগের ভ্যাট আইনের তুলনায় সহজ ও ব্যবসাবান্ধব।     (চলবে)

লেখক : জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের প্রথম সচিব

roufvat@gmail.com


মন্তব্য