kalerkantho

অফলাইন

অনলাইনে মজার মজার গল্প, বুদ্ধিদীপ্ত কৌতুক, সাম্প্রতিক বিষয়-আশয় নিয়ে নিয়মিত স্ট্যাটাস দিয়ে যাচ্ছেন পাঠক-লেখকরা। সেগুলোই সংগ্রহ করলেন ইমন মণ্ডল

২৯ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০



অফলাইন

গাইড

দিন-কাল বহুত খারাপ। বুঝে-শুনে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট একসেপ্ট করবেন। কয়েক দিন আগে এক দুষ্টু আমাকে ধাপ্পা দিয়ে আমার ফ্রেন্ডলিস্টে ঢুকে, হারায়ে গেছে। তাকে যে লিস্ট থেকে খুঁজে বের করে শাস্তি দেব, সে উপায়ই পাচ্ছিলাম না।

প্রথম যেদিন পরিচয়, সেদিন ঢং মেরে ইনবক্স করেছিল, ‘ভাইয়া ভাইয়া...আমি না আমি না...আমার জামাইয়ের সঙ্গে বাজি লেগেছি যে আমি আপনার ফ্রেন্ডলিস্টে ঢুকেই ছাড়ব। একটু হেল্প করেন, প্লিজ!’

আমি সরল মনে ডোমেস্টিক ভায়োলেন্সের ভয়ে অ্যাড করলাম। পরের দিন দেখি, নাম চেঞ্জ। খুকি হয়ে গেছে খোকা। সে-ই আসলে জামাই ছিল।

তা-ও ধরা পড়ত না। আজকে ধরা পড়েছে, কারণ সে আবার ইনবক্স করেছে; এবার করেছে পুরুষালি নাম নিয়ে, ‘ব্রাদার ব্রাদার, আমার বউয়ের জন্মদিন আজকে। এই হলো তার প্রোফাইল লিংক, ওকে কি একটু ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠায়ে সারপ্রাইজ দিয়ে দিবেন?’

বেচারা নিজের ইনবক্সের হিস্ট্রি ডিলিট করেছে; কিন্তু আমি তো করিনি। আমার ইনবক্সে শো করছে খোকা-খুকির কাহিনি। এবার সে তার কোন বন্ধুকে আমার লিস্টে ঢোকাতে চাচ্ছে বউ সাজিয়ে। বোঝেন অবস্থা।

আমি বুঝি না; তুই ঐ দিন, বুকে লোমওয়ালা পুরুষ হয়েও মাথা ঝাঁকিয়ে ঝাঁকিয়ে ‘ভাইয়া ভাইয়া ... আমি না আমি না’ বলে আহ্লাদি করতে কিভাবে পারলি? উত্তর দে। উত্তর না দেওয়া পর্যন্ত তোরে ব্লক করব না। আজকের মধ্যে উত্তর না দিলে কালকে তোকে ট্যাগ করে পোস্ট দিবো; তখন মজা বুঝবি, যখন আমার লিস্টের লাখখানেক খোকা-খুকির অ্যাকাউন্ট থেকে অনবরত পোক এসে তোকে কাগজের ঠোঙা বানিয়ে ফেলবে। তখন তুই নিজেই বুঝতে পারবি না, তুই খোকা না খুকি।

মিন হোয়াইল, সবার প্রতি উপদেশ রইল, ‘আপনারা, বার্থ সার্টিফিকেটের কপি ইনবক্সে না পাওয়া পর্যন্ত কারো ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট একসেপ্ট করবেন না। দিন-কাল আসলেই নাজুক।’

কয়েক দিন আগে জয়নাল নামের এক পুরুষকে অ্যাড করার পর ওয়ান ফাইন মর্নিং দেখি, সে হয়ে গেছে ‘উচ্চ মাধ্যমিক পদার্থবিজ্ঞানের গাইড বুক’। আমি সরু চোখে ফ্রেন্ডলিস্টের দিকে তাকিয়ে ভাবছি, এই গাইড বুক আমার লিস্টে ঢুকল কেমনে?

সে করে কী, আমার প্রতি স্ট্যাটাসে যেয়ে কমেন্ট করে, ‘কোমলমতি শিক্ষার্থী বন্ধুরা, দিন-রাত বইয়ের পাতায় চোখ বুলিয়ে কাটছে দিন? এই গাইডবুকটি যে কি দরকার, একবার ডাউনলোড করলেই বুঝবেন। আপনার কাজে না লাগলেও আপনার বন্ধু বা ছোটভাইয়ের ১০০% কাজে লাগবেই লাগবে। কিছু মেগাবাইট খরচ করে নামিয়ে ফেলুন। আর তারপর অবাক বিস্ময়ে দেখুন, কী কাজের গাইডবইটাই না দিলুম।’

এই ‘দিলুম ভাইজান’—আমার প্রতি স্ট্যাটাসে এসে এই কমেন্ট করে। বিএনপি নিয়ে স্ট্যাটাস দিলেও এই একই কমেন্ট, যুদ্ধাপরাধী নিয়ে স্ট্যাটাস দিলেও এই একই কমেন্ট, আজকে শীত বেশি পড়েছে টাইপ লেখায়ও একই কমেন্ট।

দিনকাল আসলেই খুব নাজুক। আর তাই ‘কিছু মেগাবাইট খরচ করে লিস্ট ঘেঁটে সরিয়ে ফেলুন এদের। আর তারপর অবাক বিস্ময়ে দেখুন, কি কাজের গাইডটাই না দিলুম।’

আরিফ আর হোসেন

 

সুন্দরী

মাত্রাতিরিক্ত সুন্দরী এক মেয়ে ইনবক্সে লিখেছে, ‘সব সময় বিভিন্ন কাজে আপনাকে নক দেই। একদিন আপনাকে আদর করে নক দিতে চাই।’

মনে মনে যে মেয়েটাকে বেশ খানিকটা পছন্দ করি, সে মেয়েটা আদর করার কথা বলাতে কেমন কেমন যেন একটা ভালো লাগার অনুভূতি তৈরি হলো। কিছুটা ইমোশনাল হয়ে লিখলাম—‘আদর করে নক দেবেন? দিয়েন প্লিজ! খুব খুশি হব।’

এরপর মেয়েটা লিখল, ‘স্যরি দাদা! আমি অদরকারে লিখতে গিয়ে আদরকরে লিখে ফেলেছি।’

আমি কোনো রিপ্লাই দিলাম না। শুধু মনে মনে ভাবলাম, ‘আমার ভাগ্যটা এ রকম কেন?’

দেব জ্যোতি ভক্ত

 

নাক ডাকা

আপনার স্বামী যদি ঘুমের মধ্যে নাক ডাকে, রেগে যাবেন না। বরং এটা নিজেকে সান্ত্বনা দিন, আপনাকে বিয়ে করে কত শান্তিতেই না ঘুমাচ্ছে।

বাবা মঈন

ভালোবাসা

ভালোবাসা এমন একটা APPS, যা সবার লাইফে সাপোর্ট করে না!

মুহাম্মদ জিলানী উজ্জ্বল

 

সংজ্ঞা

মুরগিকে undressed করাকে ড্রেসিং বলে!

অনামিকা মণ্ডল

 

 

করপোরেট অফিসে জব করা এক ব্যক্তি ছোট্ট এক ছেলেকে কোলে করে নিজের বাসায় এলেন। স্ত্রীকে বললেন, দেখো, এতটুকু ছেলে রাস্তায় দাঁড়িয়ে কাঁদছে। আমাকে দেখে আরো জোরে কান্না করছিল। বড় মায়া হলো, ওকে বাসায় নিয়ে এলাম। ওকে আমাদের খোকার সঙ্গে মানুষ করো।

স্ত্রী মুখ ঝামটা দিয়ে উঠলেন, তুমি কি চোখের মাথা খেয়েছ? নিজের ছেলেকেও চিনতে পারছ না?

মতিউর মামুন

 

ভয়

নিজের বউকে যে ভয় পায় না সে বীরপুরুষ, যে ভয় পায় সে মহাপুরুষ।

মাহমুদুল হাসান

 

আধুনিক পদ্ধতি

চোর ধরার আধুনিক পদ্ধতি! এক পুলিশ স্ট্যাটাস দিছে, ‘আপনার এলাকার চোরগুলোকে মেনশন করুন।’

সাকি

মেলা

আজ এক মেয়েকে বললাম, তুমি বাণিজ্য মেলায় যাও না কেন?

সুন্দরি : আমি সায়েন্সের স্টুডেন্ট। আমি শুধু বিজ্ঞান মেলায় যাই।

ফজলুল হক

 

বিশ্বাস

—বুঝলি, আমার এক্সকে আমি অনেক বিশ্বাস করতাম।

—তাই নাকি?

—হুম রে। এতটাই যে, ও একবার বলেছিল কাজী নজরুল ইসলাম নোবেল পাইছে, আমি সেটাই বিশ্বাস করেছিলাম। দু-তিনজনের সঙ্গে তর্কও করেছি। চাকরির পরীক্ষায় দুইবার এই উত্তর লিখে মার্ক কাটা খাইছি।

—তারপর?

—তারপর সে আমাকে ধোঁকা দিছে। আমার বিশ্বাস নিয়ে খেলেছে।

—এখন?

—এখন আমি ফ্ল্যাট আর্থ মুভমেন্ট নামে একটা সংগঠন খুলেছি। যে সংগঠনের কাজ হলো মানুষকে বোঝানো যে পৃথিবী গোল নয়। পৃথিবী সমতল।

—কেন, কেন?

—কারণ ওই মেয়ে একবার বলেছিল পৃথিবী গোল!

সোহাইল

আপনার লেখা মজার স্ট্যাটাস অফলাইন পাতায় ছাপাতে চাইলে নাম-ঠিকানাসহ স্ট্যাটাসটি মেইল করুন ghorardim@kalerkantho.com-এই ঠিকানায়



মন্তব্য